এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > দিন দিন বাড়ছে মৌসম-ডালুর তৃণমূল ‘প্রেম’ – আতঙ্কিত কংগ্রেস-কর্মীদের চিঠি খোদ রাহুল গান্ধীকে

দিন দিন বাড়ছে মৌসম-ডালুর তৃণমূল ‘প্রেম’ – আতঙ্কিত কংগ্রেস-কর্মীদের চিঠি খোদ রাহুল গান্ধীকে



রাজ্যে বিরোধী দল হলেও কংগ্রেসের  সংগঠনের ভগ্নপ্রায় দশা। নিজেদের অস্তিত্ব সংকট রুখতে বেশ কিছুদিন আগেই তৃনমূলের সাথে তাঁদের জোট চেয়ে তৃনমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করে এসেছিলেন মালদহের গনি পরিবারের সদস্য তথা কংগ্রেস সাংসদ আবু হাসেম খান চৌধুরী। যার জেরে প্রদেশ কংগ্রেসের অন্দরে তীব্র সমালোচনার মুখেও পড়তে হয়েছিল তাকে। কিন্তু এরপরও নিজেদের অবস্থানে অনড় ছিলেন মালদহের এই কংগ্রেস পরিবার।

সদ্য পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠনে বিজেপির মত সাম্প্রদায়িক শক্তিকে রুখতে হাতে হাত রেখেছেন তৃনমূল এবং কংগ্রেস। সাম্প্রদায়িকতা রুখতে তারা যে তৃনমূলের সাথে সমঝোতা করতে রাজে এই কথাও বুঝিয়ে দিয়েছেন সেই গনি পরিবারের আরেক সদস্য, সাংসদ তথা মালদহ জেলা কংগ্রেসের সভাপতি মৌসম বেনজির নুর। কিন্তু এবারে ডালো এবং মৌসমের তৃনমূলের প্রতি এই সদর্থক মনোভাব দেখানো নিয়ে বেজায় ক্ষুদ্ধ প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীররঞ্জন চৌধুরী এবং রাজ্য বিধানসভার কংগ্রেসের বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান।

এ প্রসঙ্গে আব্দুল মান্নান বলেন,”রাজ্যে তৃনমূলের সাথে আমাদের জোট হবে কি না তা হাইকমান্ড ঠিক করবে। কারও ব্যাক্তি ইচ্ছার ওপর তা নির্ভর করবে না।” এই ব্যাক্তি ইচ্ছা বলে তিনি যে মালদহের দুই কংগ্রেস সাংসদকেই খোঁচা দিলেন তা বুঝতে বাকি নেই কারোরই। কংগ্রেসের অন্দরে কানাঘুসো শোনা যাচ্ছে যে এই নিয়ে নাকি ইতিমধ্যেই এই ব্যাপারে প্রদেশ কংগ্রেসির তরফ থেকে অধীর চৌধুরী অনুগামী অনেক নেতা কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীকে একটি চিঠিও পাঠিয়েছেন। এ প্রসঙ্গে দলের সোশাল মিডিয়া সেলের কো-অর্ডিনেটর অনুপম ঘোষ বলেন,”এআইসিসি নিযুক্ত পর্যবেক্ষক গৌরব গগৈকেও এব্যাপারে চিঠি দেওয়া হয়েছে। রাজ্যে তৃনমূলের সাথে জোট নিয়ে দলের অবস্থান কী! তৃনমূল যেভাবে এখনও কংগ্রেসের ঘর ভাঙছে তাতে কি তা সম্ভব?

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

রাজনৈতিক মহলের মতে, রাজনৈতিক সম্ভব, অসম্ভব ভবিষ্যত বলবে। রাজ্যে ইতিমধ্যেই 42 টি লোকসভা কেন্দ্রে একা লড়ার কথা জানিয়ে দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃনমূল কংগ্রেস। এখন মালদহে যাতে সেই তৃনমূলকে মানিয়ে নিয়ে লড়াই করা যায় সেই চেষ্টা করছেন ডালু মৌসমরা। কিন্তু তাদের সেই ইঙ্গিতে কংগ্রেস হাইকমান্ড আদৌ সাড়া দেয় কি না সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!