এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > বিজেপি > মতুয়া ভোট আরও পোক্ত করতে বড়সড় পদক্ষেপ বিজেপির, শান্তনুর সঙ্গে দায়িত্ব আরও দুই হেভিওয়েটকে

মতুয়া ভোট আরও পোক্ত করতে বড়সড় পদক্ষেপ বিজেপির, শান্তনুর সঙ্গে দায়িত্ব আরও দুই হেভিওয়েটকে



আপনাদের সুবিধার্থে খবরের শেষে বিধানসভা ২০২১ উপলক্ষে আমাদের করা সর্বশেষ সমীক্ষার প্রতিটির লিঙ্ক দেওয়া আছে।

আপনার মতামত জানান -

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –  আগামী বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির দিকে মতুয়া ভোটব্যাংককে টানতে বিশেষ পরিকল্পনা রাজ্য বিজেপির। একারণেই মতুয়া বিষয়ক কর্মসূচি নিয়ে গঠিত রাজ্য কমিটিতে বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকার ও বিজেপি সাংসদ শান্তনু ঠাকুরের সঙ্গেই স্থান দেয়া হলো পেশায় চিকিৎসক বিজেপি নেতা মুকুটমনি অধিকারীকে। প্রসঙ্গত গত বছর নতুন জেলা কমিটি গঠনের পর জেলা কমিটি থেকে মুকুটমনি অধিকারীকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল। এবার তিনি বিজেপির রাজ্য স্তরের কমিটিতে স্থান পেলেন।

আগামী বিধানসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের মসনদ দখলে তীব্রভাবে সচেষ্ট উঠেছে বিজেপি। আগামী বিধানসভা নির্বাচনের নিরিখে ভোট ম্যানেজমেন্ট টিম গঠন করেছে বিজেপি। এখানে আলাদা আলাদা বিষয়ের উপর বেশকিছু কমিটি গঠন করা হয়েছে। যারমধ্যে যুব, উদ্বাস্তু, মতুয়াদের কর্মসূচির জন্য ৬ জন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। যে কমিটির দায়িত্বে রয়েছেন দেবজিৎ সরকার। বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকার, শান্তনু ঠাকুর প্রমুখের সঙ্গে তরুণ চিকিৎসক ও নদীয়া দক্ষিণ সাংগঠনিক জেলার সভাপতি মুকুটমনি অধিকারীকে স্থান দেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত নদীয়া জেলার দক্ষিনে মতুয়াদের সংখ্যার আধিক্য। অন্যদিকে বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রে মতুয়াদের সংখ্যাধিক্য আছে। আবার নদীয়ার দক্ষিণাংশের দুটি বিধানসভা কেন্দ্র বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত। এদিকে, রানাঘাট লোকসভা কেন্দ্রে গতবছর সাফল্য এসেছে বিজেপির। বিপুল ভোটে সাংসদ হয়েছেন জগন্নাথ সরকার। কিন্তু, নদীয়া জেলায় মুকুটমণি অধিকারী ও জগন্নাথ সরকারের মধ্যে বিরোধ আছে।

আপনার মতামত জানান -

এদিকে চাকরি সংক্রান্ত কারণে পেশায় চিকিৎসক মুকুটমণি অধিকারী লোকসভা ভোটে প্রার্থী হতে পারেননি, প্রার্থী হন সাংসদ জগন্নাথ সরকার। লোকসভা ভোটের পরে মুকুটমনি অধিকারীকে বিজেপির মতুয়া সংগঠনে আনা হয়েছিল।
অন্যদিকে জগন্নাথ সরকার সাংসদ হওয়ার পর নদীয়া দক্ষিনে মানবেন্দ্রনাথ রায়কে জেলা সভাপতি করা হয়েছিল। এ সময় জেলার সম্পাদক মন্ডলীর মুকুটমণি অধিকারীকে আনা হয়েছিল। তবে কয়েক মাস পর মানবেন্দ্রনাথ রায়কে অপসারিত করে অশোক চক্রবর্তীকে জেলা সভাপতি করা হয়। সেসময় জেলা কমিটি থেকে অপসারিত হন মুকুটমণি অধিকারী। এরপর রাজ্যস্তরে গঠিত মতুয়া-সংক্রান্ত কমিটিতে স্থান পেলেন তিনি।

রাজ্যস্তরে গঠিত মতুয়া-সংক্রান্ত কমিটিতে স্থান পাওয়ার পর মুকুটমণি অধিকারী জানালেন যে, সবার সঙ্গে একজোট হয়ে কাজ করবেন তিনি। অন্যদিকে, বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকার জানালেন যে, দলের অনুগত সৈনিক হিসেবে দলের দেওয়া সমস্ত দায়িত্ব পালন করবেন তিনি। প্রসঙ্গত, রাজ্য বিজেপির নবদ্বীপ জোনের মুখপাত্র হিসেবে জগন্নাথ সরকার ও মানবেন্দ্রনাথ রায়কে নিয়োগ করা হলো। এভাবেই মতুয়া ভোটকে বিজেপি মুখী করতে বড়সরো পদক্ষেপ নিল রাজ্য বিজেপি, শান্তনু ঠাকুরের সঙ্গে আনা হলো দলের দুই হেভিওয়েটকে।


দেশে যে কোনো দিন ব্যান হয়ে যেতে পারে হোয়াটস্যাপ। তাই এখন থেকে আমরা শুধুমাত্র টেলিগ্রাম ও সিগন্যাল অ্যাপে। প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার নিউজ নিয়মিতভাবে পেতে যোগ দিন –

টেলিগ্রাম গ্রূপটাচ করুন এখানে

সিগন্যাল গ্রূপটাচ করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

একনজরে দেখে নিন আমাদের সর্বশেষ বিধানসভা ২০২১ ওপিনিয়ন পোল –

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – দ্বিতীয় পর্ব – 

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – প্রথম পর্ব – 

# মালদহ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# উত্তর দিনাজপুরে জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# জলপাইগুড়ি ও কালিম্পঙ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# আলিপুরদুয়ার ও দার্জিলিং জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# কুচবিহার জেলার ওপিনিয়ন পোল –

আপনার মতামত জানান -
আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!