এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মমতার বিরুদ্ধে বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী মুখ হওয়ার দৌড়ে শেষ লড়াই এই দুই হেভিওয়েটের? জল্পনা তুঙ্গে

মমতার বিরুদ্ধে বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী মুখ হওয়ার দৌড়ে শেষ লড়াই এই দুই হেভিওয়েটের? জল্পনা তুঙ্গে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – পশ্চিমবঙ্গে সাম্প্রতিক করোনার পরিস্থিতি যথেষ্ট বেসামাল থাকলেও এই বিপজ্জনক পরিস্থিতির মধ্যেই ইতিমধ্যে আগামী বিধানসভা নির্বাচনের পদধ্বনি শোনা যাচ্ছে।আগামী বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী কে হবেন সে ব্যাপারে সন্দেহ কোনো অবকাশ নেই। কিন্তু রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী কে হবেন সেই বিষয়টি এখনো পরিষ্কার নয় ।

প্রসঙ্গত কিছুদিন আগেই রাজ্য বিজেপির প্রাক্তন সভাপতিও সেইসঙ্গে মেঘালয়ের রাজ্যপাল তথাগত রায় পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনের প্রকৃত লড়াইয়ের জন্য একজন বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী প্রয়োজনীয়তার কথা বলেছিলেন। তারপর কিছুদিন আগে বিজেপি নেতা মুকুল রায় একজন বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থীর গুরুত্বের কথা জানিয়েছেন। তৃণমূলের তরফ থেকেও বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী পদ প্রার্থীর নাম নিয়ে একাধিক বার একাধিক প্রশ্ন তোলা হয়েছে। তবে এই প্রসঙ্গে বিজেপির তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে, মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসেবে তাদের পছন্দের তালিকায় বেশ কয়েকজন রয়েছেন।

প্রসঙ্গত আসানসোলের মতো অবাঙালি কেন্দ্র থেকে পরপর দুবার নির্বাচিত হয়ে এসেছেন ভারত খ্যাত গায়ক বাবুল সুপ্রিয়। বর্তমানে তিনি একজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। কোন কোন মহল থেকে তাঁকে আবার হাফপ্যান্ট পরা মন্ত্রীও বলা হয়ে থাকে। তবে যাই বলা হোক না কেন দেশের সংস্কৃতি জগতের সঙ্গে তার এক বিরাট যোগাযোগ আছে, একথা অস্বীকার করার নয়। বাগ্নি হিসেবেও তিনি যথেষ্ট জনপ্রিয় । শুদ্ধ বাংলা ছাড়াও ইংরেজি, হিন্দিতেও তিনি যথেষ্ট সাবলীল।

অন্যদিকে খড়গপুর বিধানসভা কেন্দ্র থেকে গত ২০১৬ সালের পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে প্রথম নির্বাচিত হয়েছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এর পর মেদিনীপুর লোকসভা কেন্দ্র থেকে গত ২০১৯ এর লোকসভা ভোটেও বিজয়ী হয়েছেন তিনি। তবে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের তরফ থেকে তাঁকে কোন মন্ত্রী পদ দেয়া হয়নি। পরিবর্তে রাজ্য সভাপতি হিসেবেই বহাল রাখা হয়েছে তাঁকে। বলা হয়ে থাকে বাঙালি হয়েও বক্তৃতাদানে শুদ্ধ বাংলার পরিবর্তে হিন্দিতে তিনি অধিক স্বচ্ছন্দ বোধ করে থাকেন। তবে ইংরেজিতে বক্তৃতা দিতে তাঁকে ইতিপূর্বে শোন যায়নি।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তবে উপরোক্তদের ছাপিয়ে বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসেবে একজন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির নাম বারবার করে উঠে আসছে। তিনি আর কেউ নন তিনি যোগী পুরুষ রামকৃষ্ণ মিশনের সাধক স্বামী কৃপাকরানন্দ মহারাজ। এই স্বামিজীকেই নাকি বাংলার পর পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী করা হতে পারে বলে বিজেপি রাজ্য বিজেপির পক্ষ থেকে কানাঘুষো শোনা যাচ্ছে। এমনও শোনা যাচ্ছে যে, দিলীপ ঘোষ মুকুল রায়ের যৌথ নেতৃত্বে যদি বিজেপি বাঙালি দখলে সক্ষম হয় তবে তাঁদের পরিবর্তে বাংলার সিংহাসনে আরোহণ করতে চলেছেন বাংলার এই যোগী মহারাজ।

প্রসঙ্গত স্বামী কৃপাকরানন্দ মহারাজ এর প্রকৃত নাম দেবদাস চক্রবর্তী। তিনি অত্যন্ত মেধাবী ছাত্র ছিলেন। মাধ্যমিকের যিনি পঞ্চম স্থান অর্জন করেছিলেন, উচ্চমাধ্যমিক অর্জন করেছিল সপ্তম স্থান, তারপর মেডিক্যাল এন্ট্রান্স পরীক্ষাতে ১৭ তম স্থান। এরপর তিনি এনআরএস মেডিকেল কলেজে শিক্ষা লাভের উদ্দেশ্যে ভর্তি হন। মেডিকেল কলেজের শিক্ষা সমাপ্ত করে  তিনি তাঁর এম.ডি. ডিগ্রী অর্জন করেন দিল্লির এইমস থেকে।

এর পরবর্তীতে ইংল্যান্ডে তিনি হার্ট সম্পর্কিত রিসার্চ করার উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন। তাঁর মতো স্বনামধন্য একজন ডাক্তার, সেইসঙ্গে একজন আকর্ষণীয় বক্তাও তিনি। আবার একজন আকর্ষণীয় একজন শিল্পীর সঙ্গে সঙ্গে একজন ভালো গায়কও তিনি। শোনা গেছে খুব সুন্দর শাস্ত্রীয় সংগীত গান তিনি। একজন মানুষের মধ্যে এতো গুনের সমন্বয় পাওয়া সত্যিই দুষ্কর। বিজেপির পক্ষ থেকে মনে করা হচ্ছে তার মতো এতোটা যোগ্য মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী বাংলায় সত্যিই বিরল।

বিজেপি সূত্রের সংবাদ অনুযায়ী অমিত শাহ নরেন্দ্র মোদির খুব কাছের মানুষ হিসেবে যিনি পরিচিত সেই স্বপন দাসগুপ্তের কাছে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসেবে পছন্দের মানুষ বাবুল সুপ্রিয়। এমনকি মুকুল রায়ও যথেষ্ট ভাবে পছন্দ করেন বাবুল সুপ্রিয়কে। তবে আরএসএস কর্মী হিসেবে পরিচিত হলেও দিলীপ ঘোষ এখনো পছন্দের তালিকায় উঠে আসতে পারেননি, পরিবর্তে সেখানে আছেন যোগী পুরুষ স্বামী কৃপাকরানন্দ মহারাজ বলে জল্পনা। আর তাই এই জল্পনা যদি সত্যি হয়, তাহলে বলাই যায়, আপাতত গেরুয়া শিবিরের মুখ্যমন্ত্রী মুখ হিসাবে ফাইনাল রাউন্ডের দৌড়ে আপাতত দুজন – স্বামী কৃপাকরানন্দ ও বাবুল সুপ্রিয়।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!