এখন পড়ছেন
হোম > খেলা > কলকাতা ফুটবলের রঙ আবার সবুজ-মেরুন, ৩০ তম বারের জন্য সিএফএল ঘরে তুলল মোহনবাগান

কলকাতা ফুটবলের রঙ আবার সবুজ-মেরুন, ৩০ তম বারের জন্য সিএফএল ঘরে তুলল মোহনবাগান



দীর্ঘ আট বছরের অপেক্ষার অবসান – ২০১৮ মরশুমের সিএফএল চ্যাম্পিয়নের নাম মোহনবাগান এবং তা এই ম্যাচ বাকি থাকতেই। মহামেডানের সঙ্গে মিনি ডার্বি বাকি থাকা অবস্থাতেই শঙ্করলাল চক্রবর্তীর ছেলেরা আজ কলকাতা প্রিমিয়ার ডিভিশন ফুটবল লীগে পৌঁছে গেল অপ্রতিরোধ্য ২৬ পয়েন্টে। ফলে, লীগের শেষ ম্যাচে খেলতে নামার আগেই ৩০ তম বারের জন্য কলকাতা ফুটবল লীগ ক্লাব তাঁবুতে ঢুকিয়ে ফেললেন চিংড়ি-পালতোলা নৌকা ব্রিগেড।

ক্লাবে কর্তাদের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব বা তার জেরে খেলোয়াড়দের বেতন আটকে যাওয়া – ফোকাস নড়ে যাওয়ার জন্য যথেষ্ট ছিল। কিন্তু বরফ-শীতল মাথার ‘ডাউন-টু-আর্থ’ কোচ শঙ্করলাল চক্রবর্তী কোনো কিছুতেই নিজের দলের খেলোয়াড়দের ফোকাস নড়তে দেন নি। আর তাই, প্রতি ম্যাচের শেষেই প্রত্যাশার ফানুসটা আরো উঁচুতে উঠছিল মোহন জনতার। মোহনবাগান এবং ইস্টবেঙ্গল সমানে সমানে পাল্লা দিয়ে দৌড়োচ্ছিল লীগের বড় ম্যাচ পর্যন্ত। দুটি দলই একই বিন্দুতে দাঁড়িয়ে ছিল সেই ম্যাচের শেষে। ২-২ গোলে অমীমাংসিত সেই ম্যাচের শেষে দুই দলেরই পয়েন্ট দাঁড়ায় ৮ ম্যাচে ২০, গোল পার্থক্যও সমান (১৩)।

আপামর বাংলার ফুটবল প্রেমীরা যখন এবারের সিএফএলের ফটো ফিনিশের অপেক্ষা করছে, তখন সবুজ-মেরুন ব্রিগেড পরের ম্যাচেই এফসিআইকে ৫-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে গোলপার্থক্য বাড়িয়ে নেয়। কিন্তু পদস্খলন ঘটে ইস্টবেঙ্গলের, পরের ম্যাচে তারা হেরে যায় পিয়ারলেসের কাছে ১-২ গোলে। তখন থেকেই লীগ জয়ের গন্ধে ম-ম করছিল গঙ্গাপাড়ের ক্লাবের তাঁবু। তবু, মনের মধ্যে কোথাও একটা যেন শঙ্কা ছিল – শেষ মুহূর্তে এসে পদস্খলন হবে না তো? খেলোয়াড়রা ফোকাস ঠিক রাখতে পারবে তো?

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এরপর গতকাল মহামেডানের কাছেও প্রবল প্রতিদ্বন্দ্বী ইস্টবেঙ্গল ১-২ গোলে হেরে যাওয়ায়, গত সন্ধ্যা থেকেই উৎসবের পরিবেশ শুরু হয়ে যায় মোহন-সমর্থকদের মধ্যে। আর তাই আজ, দুপুর গড়াতে না গড়াতেই মোহনবাগান মাঠের বাইরে ভিড় উপচে পড়তে থাকে। ম্যাচ শুরু বিকেল ৪:৩০ টেয়, কিন্তু লীগ জয়ের আনন্দের শরিক হতে মোহন-সমর্থকরা দুপুর ২:৩০ টা বাজতে না বাজতেই ভরিয়ে ফেলেন গ্যালারি। আর তাঁদের হতাশ করেননি সবুজ-মেরুন ফুটবলাররা।

কাস্টমসের সঙ্গে, ম্যাচের একদম শুরুতেই মাত্র ৩ মিনিটের মাথায় অরিজিৎ বাগুইয়ের পাশ থেকে গোল করে মোহনবাগানকে এগিয়ে দেন হেনরি কিসেকা। এরপর প্রথমার্ধের একদম শেষ দিকে ৪৪ মিনিটের মাথায় ডিকার অনাবাধ্য থ্রু পাশ ধরে নিজের ও দলের দ্বিতীয় গোল করে মোহনবাগানকে অপ্রতিরোধ্য ২-০ গোলে এগিয়ে দেন। এরপর গোটা দ্বিতীয়ার্ধে জুড়েই দুই দল বেশ কয়েকটি সুযোগ পেলেও, ওই ২-০ ফলেই শেষপর্যন্ত জিতে এবারের লীগ চ্যাম্পিয়ন হল মোহনবাগান।

যে যে বছরে কলকাতা ফুটবল লীগের রঙ হয়েছে সবুজ-মেরুন (মোট ৩০ বার) – ১৯৩৯, ১৯৪৩, ১৯৪৪, ১৯৫১, ১৯৫৪, ১৯৫৫, ১৯৫৬, ১৯৫৯, ১৯৬০, ১৯৬২, ১৯৬৩, ১৯৬৪, ১৯৬৫, ১৯৬৯, ১৯৭৬, ১৯৭৮, ১৯৭৯, ১৯৮৩, ১৯৮৪, ১৯৮৬, ১৯৯০, ১৯৯২, ১৯৯৪, ১৯৯৭, ২০০১, ২০০৫, ২০০৭, ২০০৮, ২০০৯, ২০১৮

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!