এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > মোদির কুশপুত্তলিকা জ্বালিয়ে প্রতিবাদ এবার বাংলায়, সৌজন্যে তৃণমূল, জেনে নিন

মোদির কুশপুত্তলিকা জ্বালিয়ে প্রতিবাদ এবার বাংলায়, সৌজন্যে তৃণমূল, জেনে নিন



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে রাজ্যের তৃণমূল সরকারের প্রতিবাদ নতুন কিছু নয়। বিভিন্ন সময় তৃণমূলের পক্ষ থেকে নানা বিষয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে প্রতিবাদের সুরকে চওড়া করা হয়। বর্তমানে কৃষি বিলের বিরুদ্ধে গেরুয়া শিবিরের বিপক্ষে নিজের প্রতিবাদ সপ্তমে চড়িয়েছেন তৃণমূল নেত্রী তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কৃষকদের স্বার্থ বিঘ্নিত হচ্ছে বলে উত্তরকন্যা প্রশাসনিক বৈঠক থেকেও প্রতিবাদ করতে দেখা গেছে তাকে। আগামীদিনে কৃষকদের স্বার্থ বিঘ্নিত হলে এর প্রতিবাদ চলবে বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছে তৃণমূল সরকার।

আর এই পরিস্থিতিতে এবার কৃষি বিলের বিরুদ্ধে কর্মসূচিতে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কুশপুত্তলিকা দাহ করল তৃণমূল কংগ্রেস। যাকে কেন্দ্র করে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে। বিধানসভা নির্বাচনের আগে যেভাবে তৃণমূলের পক্ষ থেকে কৃষি বিলের বিরোধিতা করে স্বয়ং নরেন্দ্র মোদির কুশপুত্তলিকা দাহ করা হল, তাতে রাজনৈতিক উত্তেজনা যে ক্রমশ বৃদ্ধি পাবে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

সূত্রের খবর, এদিন বনগাঁ তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে ধর্মপুকুরিয়া থেকে চাঁদাবাজার পর্যন্ত সবজির মালা নিয়ে কৃষি বিলের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে প্রতিবাদ জানানো হয়। যেখানে উপস্থিত ছিলেন উত্তর 24 পরগনা জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের কো-অর্ডিনেটর গোপাল শেঠ সহ অন্যান্যরা। আর সেখানেই তৃণমূলের এই কর্মসূচিতে বিলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে গিয়ে কৃষকদের সমস্যার কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কুশপুত্তলিকা দাহ করে তৃণমূল কংগ্রেস।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে গোপাল শেঠ বলেন, “নির্লজ্জের মত কৃষকদের উপর অত্যাচার চালাচ্ছে মোদি সরকার। আমরা জীবন বাজি রেখে কৃষকদের পাশে দাঁড়াব।” স্বভাবতই যেভাবে রাজনৈতিক কর্মসূচির মধ্য দিয়ে কৃষি বিলের বিরোধিতা করে নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে নিজেদের সুরকে আরও চওড়া করল ঘাসফুল শিবির, তাতে বিধানসভা নির্বাচনের আগে উত্তেজনা ক্রমশ বৃদ্ধি পাবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

একাংশের মতে, এই কৃষি বিলের বিরোধিতা করতে গিয়ে অসাংবিধানিক আচরণের প্রতিবাদে রাজ্যসভা থেকে কিছুদিনের জন্য বহিষ্কার হতে হয়েছিল তৃণমূলের ডেরেক ও’ব্রায়েন এবং দোলা সেনের মত সাংসদদের। পরে গান্ধী মূর্তির পাদদেশে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছিলেন তারা। আর এবার যেভাবে এই গোটা ঘটনায় স্বয়ং প্রধানমন্ত্রীর কুশপুত্তলিকা পুড়িয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করল তৃণমূল কংগ্রেস, তাতে কৃষি বিলকে কেন্দ্র করে তৃণমূলের প্রতিবাদ যে বিজেপির ঘুম অনেকটাই উড়িয়ে দেবে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। এখন গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, তৃণমূলের পক্ষ থেকে যেভাবে কৃষিবিলের বিরুদ্ধে রাস্তায় নামা হচ্ছে, তাতে বিজেপির অস্বস্তি কতটা বৃদ্ধি পায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!