এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > বিজেপি > করোনা পরিস্থিতিতে কি অবস্থা মোদি-শাহ ব্যক্তিগত সম্পত্তির? জানুন এক নজরে

করোনা পরিস্থিতিতে কি অবস্থা মোদি-শাহ ব্যক্তিগত সম্পত্তির? জানুন এক নজরে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট- করোনা পরিস্থিতিতে কর্মসংস্থান হারিয়েছেন দেশের বহু মানুষ। দিন আনা দিন খাওয়া মানুষদের করোনা কেড়ে নিয়েছে কষ্ট করে সুখে বাঁচায় সমস্ত আশা। বস্তুত এতমাস পরে যদিও আনলক শুরু হয়েছে, তবে আবারও নতুন করে সমস্ত কিছু শুরু করার তাগুদ জোগাড় করতে হিমশিম খাচ্ছেন অনেকেই।

বস্তুত করোনাতে এমনই অবস্থা দেশের অসংখ্য মানুষের। কিছুদিন আগেই একটি সমীক্ষায় উঠে এসেছিল এই পরিস্থিতিতে সবথেকে কষ্টে রয়েছেন নিম্ন মধ্যবিত্ত এবং দিন আনা দিন খাওয়া মানুষ আর মজদুর প্রকৃতি মানুষেরা। এছাড়া সেখানে বলতে দেখা গিয়েছিল যে, করোনা পরিস্থিতিতে দেশের একাধিক উচ্চ মধ্যবিত্ত পরিবার রাতারাতি নিম্নবিত্ত পরিবারে পরিণত হয়েছে। তবে এমন পরিস্থিতিতে কী অবস্থা আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর? আগের বছরের তুলনায় অমিত শাহের সম্পদে কতটা হেরফের হয়েছে? আসুন দেখে নেওয়া যাক।

জানা গেছে, গত ১ বছরে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহের মোট সম্পদের পরিমাণ কিছুটা কমেছে। বস্তুত এই বছর তাঁর হাতে থাকা সিকিউরিটিজের বাজার মূল্য পড়ে যাওয়াতেই এটা ঘটেছে বলে মনে করা হচ্ছে। চলতি বছরের জুন মাসে অমিত শাহের ঘোষণা অনুযায়ী তাঁর মোট সম্পদের পরিমাণ ছিল ২৮.৬৩ কোটি টাকা। ২০১৯ সালে যা ৩২.৩ কোটি টাকা বলে জানা যায়।

সেই সঙ্গে অমিত শাহ ১০টি অস্থাবর সম্পত্তির মালিক বলেও জানা গেছে। বর্তমানে যার মূল্য ১৩.৫৬ কোটি টাকা। প্রধানমন্ত্রীর দফতর সূত্রে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর কাছে আপাতত নগদ ১৫৮১৪ টাকা আছে বলে জানা গেছে। সেই সঙ্গে তাঁর ব্যাঙ্ক ব্যালেন্স ১.০৪ কোটি টাকা।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে, বীমা ও পেনশন প্রকল্পে তিনি ১৩.৪৭ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করেছেন বলেও জানা গেছে। এছাড়া ফিক্সড ডিপোজিট এবং গহনা নিয়ে যথাক্রমে তাঁর ২,৭৯ লক্ষ টাকা ও ৪৪.৪৭ লক্ষ টাকা আছে বলে জানা গেছে।

তবে অন্যদিকে, গত বছরের তুলনায় এই বছর ২০২০ শহর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সম্পদ বেড়ে হয়েছে ৩৬ লক্ষ টাকা। গত জুন মাসে তাঁর সম্পদের ঘোষণা অনুযায়ী, তাঁর মোট সম্পদের পরিমাণ ২.৮৫ কোটি টাকা। গত বছর যা ২,৪৯ কোটি টাকা ছিল বলে জানা গেছে। এর কারণ হিসেবে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ২০১৯ সালের ৩৩ লক্ষ টাকার বিনিয়োগ থেকে ৩.৩ লক্ষ টাকার ব্যাঙ্ক জমা ও ফেরত পাওয়াতেই টাকা বেড়েছে।

সেইসঙ্গে জানা গেছে মোদীর কাছে নগদ ৩১৪৫০ টাকা আছে। সেই সঙ্গে তাঁর ব্যাঙ্ক ব্যালান্স রয়েছে ৩৩৮১৭৩ টাকা এবং ফিক্সড ডিপোজিট ১৬০২৮৯৩৯ টাকা রয়েছে এছাড়া, তাঁর জাতীয় সঞ্চয় সার্টিফিকেট(এনএসসি) রয়েছে ৮৪৩১১৪ টাকার। তবে তাঁর কোনও ঋণ নেই। এছাড়া নিজের নামে কোনও ব্যক্তিগত গাড়িও নেই তাঁর।

সেই সঙ্গে তাঁর ১৫০৯৫৭ টাকার জীবন বীমার পলিসি রয়েছে বলে জানা গেছে। সেইসঙ্গে কর বাঁচানো ইনফ্রা বন্ড রয়েছে ২০০০০ টাকার। তিনি ১.৭৫ কোটি টাকা মূল্যের স্থাবর সম্পত্তির মালিক বলেও জানা গেছে। ৪৫ গ্রামের তাঁর ৪টি সোনার আংটি আছে, যার মূল্য ১.৫ লক্ষ টাকা। এছাড়া গান্ধীনগরে সেক্টর ১এ এলাকায় যৌথনামে তাঁর ৩৫৩১ বর্গ ফুটের একটি জমি আছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!