এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > সংসদ ভবনে শপথ নিতে এসে এই কাজ করলেন মিমি এবং নুসরত, প্রশংসা সর্বত্র, জেনে নিন

সংসদ ভবনে শপথ নিতে এসে এই কাজ করলেন মিমি এবং নুসরত, প্রশংসা সর্বত্র, জেনে নিন



নির্বাচনে দাঁড়ানোর পর থেকে তাদের দুজনকে নিয়ে ব্যাপক ট্রোল হয়েছিল। কখনও হাতে গ্লাবস পরে সাধারণ মানুষের হাতের সাথে হাত মেলানো, আবার কখনও বা মেজাজ দেখিয়ে কথা বলা – বিভিন্ন ইস্যুতে তারা দুজনেই সমালোচনার শিকার হয়েছেন। কিন্তু সকলের মুখে ঝামা ঘষে দিয়ে যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্র থেকে বিশিষ্ট অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী এবং বসিরহাট থেকে আরেক অভিনেত্রী নুসরাত জাহান তৃণমূলের টিকিটে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেছেন। তবে শপথ গ্রহণের প্রথম দিন বাংলার এই দুই তৃণমূল সাংসদ সংসদে উপস্থিত হননি।

কেননা সেদিন বসিরহাটের তৃণমূল সাংসদ নুসরাত জাহানের বিবাহের অনুষ্ঠান ছিল। অবশেষে গতকাল সংসদে উপস্থিত হয়ে তারা যে বাংলার সৃষ্টি এবং কৃষ্টিকে পাথেয় করেই পথ চলতে চান, তা প্রমাণ করে দিলেন মিমি চক্রবর্তী এবং নুসরাত জাহান। এদিন সংসদে ঢোকার আগে তারা সংসদ ভবনের দরজায় প্রণাম করেন। আর তারপরই শাড়ি পড়ে নববধূর সাজে কপালে সিঁদুর পরিহিত অবস্থায় শপথবাক্য পাঠ করেন বসিরহাট লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল সাংসদ নুসরাত জাহান।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

একইভাবে প্রথম সংসদে উপস্থিত হয়ে বাংলায় শপথ বাক্য পাঠ করতে দেখা যায় বসিরহাট লোকসভা কেন্দ্রে তৃণমূল সাংসদ মিমি চক্রবর্তীকেও। আর প্রতিটি অভিজ্ঞ সাংসদেরা যখন শপথবাক্য শেষে স্পিকারের সঙ্গে করমর্দন করেই দায় সারছেন, ঠিক তখনই নতুন সংসদে এসে এই ব্যাপারে যেন মাস্টারস্ট্রোক দিলেন এই মিমি এবং নুসরাত।

সূত্রের খবর, এদিন শপথ বাক্য শেষে তারা দুজনেই স্পিকার ওম বিড়লার পায়ে হাত দিয়ে প্রণাম করেন। যা এতদিন সংসদের দায়িত্ব সামলানো অনেক অভিজ্ঞ সাংসদদেরও অনেক কিছু বার্তা দিল বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহলের একাংশ।

বস্তুত, নির্বাচনের আগে এবং পরে তৃণমূলের এই দুই সেলেব সাংসদকে নিয়ে কম বিতর্ক হয়নি। কিন্তু বাঙালি হিসেবে নিজেদের সঠিক পরিচয় দিয়ে শপথ বাক্য পাঠ শেষে স্পিকারের পায়ে প্রণাম করে সমালোচকদের মুখে এদিন কার্যত ঝামা ঘষে দিলেন বসিরহাট এবং যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল সাংসদরা বলেই মত বিশেষজ্ঞদের।

আর প্রথম সাংসদ হিসেবে মিমি চক্রবর্তী এবং নুসরাত জাহানের এহেন আচরণ দেখে এখন রীতিমতো গর্ব অনুভব করছে বঙ্গবাসী। অনেকেই বলছেন, অতীতে যাই হোক না কেন, বাংলা যে কৃষ্টি এবং সংস্কৃতির জন্ম দেয়, তা এদিন শপথবাক্য পাঠ শেষে এই দুই অভিনেত্রী সাংসদের সৌজন্যতার মধ্যে দিয়েই প্রমাণিত হয়ে গেল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!