এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > মিছিলে টাকা খরচ করে লোক আনছে তৃণমূল! অভিযোগ খোদ তৃণমূল বিধায়কেরই! তীব্র শোরগোল রাজ্যে!

মিছিলে টাকা খরচ করে লোক আনছে তৃণমূল! অভিযোগ খোদ তৃণমূল বিধায়কেরই! তীব্র শোরগোল রাজ্যে!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –  এতদিন সভা-সমিতিতে বেশি ভিড় হলে বিরোধীদের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হত, টাকা দিয়ে তৃণমূল এই জনসমাগম করছে। কিন্তু স্বপ্নেও কল্পনা করা যায়নি, তৃণমূলের সভায় হওয়া লোক নিয়ে বিরোধীদের তোলা সেই অভিযোগের কথা শোনা যাবে খোদ তৃণমূল বিধায়কের গলায়। কিন্তু এবার এরকমই একটি আশ্চর্যজনক এবং বেনোজির ঘটনা ঘটে গেল রাজ্যে। যেখানে দলের সভায় লোক হওয়া নিয়ে টাকা খরচ করে লোক আনা হচ্ছে বলে বিস্ফোরক অভিযোগ তুললেন তৃণমূল বিধায়ক আব্দুল করিম চৌধুরী। আর দলীয় বিধায়কের এই মন্তব্যে এখন তীব্র অস্বস্তিতে পড়েছে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, রাজ্যের প্রতি কেন্দ্রে বিমাতৃসুলভ আচরণ, রেল সহ বিভিন্ন সরকারি সংস্থা বেসরকারীকরণের প্রতিবাদে রবিবার গোটা রাজ্য জুড়ে তৃণমূলের পক্ষ থেকে বিক্ষোভ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছিল। উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরেও এই কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু এই ইসলামপুরে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের কথা কারোরই অজানা নয়।

যার একদিকে রয়েছে জেলা তৃণমূল সভাপতি কানাইলাল আগরওয়ালের গোষ্ঠী এবং অন্যদিকে রয়েছেন ইসলামপুরের তৃণমূল বিধায়ক আব্দুল করিম চৌধুরীর গোষ্ঠী। আর এই গোষ্ঠী আলাদা আলাদা করে দুটি কর্মসূচির আয়োজন করে। কিন্তু আশ্চর্যজনক ভাবে কানয়াইলাল আগরওয়ালের কর্মসূচিতে লোক হওয়া নিয়ে বিস্ফোরক উক্তি করে রীতিমত জেলা তৃণমূল সভাপতি এবং দল তৃণমূল কংগ্রেসকে অস্বস্তিতে ফেলে দিলেন আব্দুল করিম চৌধুরী।

এদিন কানাইলাল আগরওয়ালের কর্মসূচি প্রসঙ্গে মন্তব্য করতে গিয়ে আব্দুল করিম চৌধুরী বলেন, “কানাইয়ালাল এদিনের মিছিলে টাকা দিয়ে লোক এনেছে। মাথাপিছু দুশো করে দিয়ে লোক জুটিয়েছে। এটা তৃণমূলের সংস্কৃতি নয়। তুমি দাঁড়ালেও মানুষ তোমাকে ভোট দেবে না। তোমার গায়ে এখনও কংগ্রেসের গন্ধ আছে।”

আর এখানেই একাংশের প্রশ্ন, এতদিন বিরোধীরা তৃণমূলের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ করত। কিন্তু এবার যেভাবে জেলা তৃণমূল সভাপতি কর্মসূচিতে লোক হওয়া নিয়ে টাকা দেওয়ার অভিযোগ তুললেন তৃণমূলের বিধায়ক আব্দুল করিম চৌধুরী, তাতে শাসকদল তো প্রবল অস্বস্তিতে পড়ল! অনেকে বলছেন, ইসলামপুরে আব্দুল করিম চৌধুরী এবং কানাইয়ালালের দ্বন্দ্ব মেটানোর জন্য বারবার তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্ব পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

কিন্তু এবার যেভাবে অতীতের সমস্ত কিছুকে ম্লান করে দিয়ে সভায় লোক আনা নিয়ে টাকা দেওয়ার অভিযোগ তুললেন আব্দুল করিম চৌধুরী, তাতে সেই দ্বন্দ্ব আরও বাড়ার আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। যদি এভাবেই চলতে থাকে, তাহলে বিরোধীরা এই গোটা ব্যাপারটিকে হাতিয়ার করে আগামী দিনে তৃণমূলের অস্বস্তি আরও বাড়িয়ে দেবে বলেই দাবি করছেন বিশেষজ্ঞরা।

এদিকে আব্দুল করিম চৌধুরী এই ধরনের মন্তব্য করার পর তাকে পাল্টা কটাক্ষ করেছেন জেলা তৃণমূল সভাপতি কানাইলাল আগরওয়াল। তিনি বলেন, “করিম সাহেবের সঙ্গে লোকজন নেই। তাই এসব মন্তব্য করছেন।” কিন্তু তারা যদি এইভাবে একে অপরের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মন্তব্য করতে শুরু করেন, তাহলে তৃণমূল নেতৃত্বের পক্ষ থেকে যে শৃংখলার বার্তা দেওয়া হচ্ছে, তা তো প্রতিমুহূর্তে ভাঙতে শুরু করবে! শুধু তাই নয়, বিধানসভা নির্বাচনের আগে দলের দুই হেভিওয়েট নেতা যদি নিজেদের মধ্যে অস্তিত্বের লড়াইয়ে মাততে থাকেন, তাহলে তো আদতে ক্ষতি হবে দলের!

কেন তারা নিজেদের মধ্যে এখনও দ্বন্দ্বকে মিটিয়ে নিতে পারছেন না! সব মিলিয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে কর্মসূচিতে লোক হওয়া নিয়ে জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে টাকা দিয়ে লোক আনার বিস্ফোরক অভিযোগ করে রীতিমত দলকে অস্বস্তিতে ফেলে দিলেন আব্দুল করিম চৌধুরী। তবে করিম সাহেবের এই মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে এখন তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্বের পক্ষ থেকে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয় কিনা, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!