এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > মহাজোটে সিলমোহর পড়লো বিহারে ,জেনে নিন বিস্তারিত

মহাজোটে সিলমোহর পড়লো বিহারে ,জেনে নিন বিস্তারিত



লোকসভা ভোটে বিহারের বিজেপি বিরোধী মহাজোট নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছে গতবছরের শেষ দিক থেকেই। আগামী লোকসভা ভোটে বিহারের মহাজোটের অংশ হতে কংগ্রেসের হাত ধরতে চলেছেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা রাষ্ট্রীয় লোক সমতা পার্টির প্রধান উপেন্দ্র কুশওয়াহা। এমন গুঞ্জনও ভালোই রাজনৈতিক মহলে জায়গা করে নিয়েছিল।

অবশেষে সব জল্পনার ইতি টেনে বিহারে পাকা হয়ে গেল বিজেপি বিরোধী ‘মহাজোট’। আসনরফাও চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছে। এখন কোন আসনে কোন দল লড়বে বাকি শুরু সেই ঘোষণা। হোলির পরই সেই আনুষ্ঠানিক ঘোষণাটি হয়ে যাবে বলেই দাবী করছেন রাষ্ট্রীয় জনতা দলের নেতা তেজস্বী যাদব।

তিনি জানালেন,’‌বিহারে মহাজোট চূড়ান্ত। শক্তিশালী এই জোট বিজেপি-‌র বিরুদ্ধে লড়াই করতে তৈরি। কে কোথায় লড়বেন তা হোলির পরে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হবে।’‌ এর আগে একাধিকবার মহাজোট নিয়ে আলোচনা হলেও কয়েকটি আসন নিয়ে জোট শরিকদের মধ্যে জটিলতা তৈরি হয়েছিল।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

সংবাদমাধ্যমে জোট সমস্যা নিয়ে জল্পনাও ছড়ায়। তবে এবার আর কোনো সমস্যা নেই। আগামীকাল অর্থাৎ শুক্রবার (২২ মার্চ) আনুষ্ঠানিকভাবে মহাজোটের আসন ফর্মুলা ঘোষণা করা হবে। রাজ্যের ৪০ টি আসনের মধ্যে ১১ টি আসন দাবী করেছে কংগ্রেস। ওদিকে বিরোধী শিবিরের অন্যতম শক্তিশালী দল আরজেডি তাঁদের ৯ টি আসন ছাড়তে রাজি হয়েছে। অর্থাৎ আরজেডি ১৯-২০ টি আসনে লড়বে। বাকি আসন ছোট শরিকদের মধ্যে ভাগ করে দেওয়া হবে। এ নিয়ে কোনো আপত্তি নেই কংগ্রেসের।

অন্যদিকে,একইদিনে জম্মু ও কাশ্মীরের ৬ টি লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে ৩ টি আসনে কংগ্রেসের সঙ্গে ন্যাশনাল কনফারেন্সের জোট চূড়ান্ত হয়েছে। এছাড়া লাদাখ আসন নিয়েও আলোচনা শুরু হয়েছে। বারমুলা এবং অনন্তনাগে দুই দলই প্রার্থী দেবে বলে মনে করা হচ্ছে। এই দুই আসনে ‘বন্ধুত্বপূর্ণ’ লড়াই হওয়ার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে। যেহেতু ভোটের পর দুই দলই একই শিবিরে থাকবে তাই লড়াইটা বন্ধুত্বপূর্ণ হবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

সম্প্রতি এনসি নেতা ফারুক আবদুল্লা এবং কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজাদ বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নেন, জম্মু ও উধমপুর কেন্দ্রে কংগ্রেস লড়বে। শ্রীনগর আসনে লড়বেন এনসি নেতা ফারুক আবদুল্লা। এই আসনের জন্যে যৌথভাবে প্রচারও করবে দুই দলের শীর্ষ নেতৃত্ব। গত লোকসভা নির্বাচনে শ্রীনগর আসনটিতে ন্যাশনাল কনফারেন্স জয়ী হয়েছিল বলেই জানা গিয়েছে সূত্রের খবরে।

উল্লেখ্য,বিহারে কংগ্রেস এবং আরজেডি জোটে শামিল হয়েছে উপেন্দ্র কুশওয়াহর রাষ্ট্রীয় লোক সমতা পার্টি, জিতনরাম মাঝির হিন্দুস্থানি আওয়াম মোর্চা (‌হাম), শারদ যাদবের লোকতান্ত্রিক জনতা দল-‌‌সহ আরো কয়েকটি ছোট দল। মহাজোটের সব দলকে বন্টন করতে গিয়ে সমস্যা তৈরি হয়। কারণ ছোট দলগুলি সামান্য আসন পেয়ে সন্তুষ্ট হচ্ছিল না। অন্তত একটি করে বাড়তি আসনের দাবী ছিল তাদের। এই প্রেক্ষিতে আরজেডি নিজেদের প্রাপ্তি থেকে একটি করে আসন কমিয়ে কংগ্রেসকে ২ টি আসন ছাড়তে অনুরোধ করায় তেজস্বী যাদবের সঙ্গে বৈঠকের পর সম্মত হন রাহুল গান্ধী।

জাতীয় কংগ্রেস সুপ্রিমোর থেকে সবুজ সংকেত পেয়েই তেজস্বী এবং শারদ যাদব বিহারের মহাজোট নিয়ে প্রকাশ্য মন্তব্য করেন। বলেন,বিহারের মহাজোট নিয়ে যাবতীয় প্রক্রিয়া সম্পন্ন। এখন বাকি কেবল আনুষ্ঠানিক ঘোষণার। এ নিয়ে শারদ যাদব জানান, ‘‌২২ মার্চ পাটনায় মহাজোটের শরিকদের উপস্থিতিতে সাংবাদিক বৈঠকে কোন দল কত আসনে লড়বে তা জানিয়ে দেওয়া হবে।’‌ এই প্রেক্ষিতে গতকালের বিহারের মহাজোটের আনুষ্ঠানিক ঘোষণার দিকে তাকিয়ে রয়েছে গোটা রাজনৈতিকমহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!