এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > কলকাতার মেয়রের জন্য কি মুখ পেয়ে গেলো বঙ্গ বিজেপি, জোর জল্পনা !

কলকাতার মেয়রের জন্য কি মুখ পেয়ে গেলো বঙ্গ বিজেপি, জোর জল্পনা !



২০১৯ এর পর বাংলায় বিজেপি খাতায় কলমে না হলেও মৌখিকভাবেই প্রধান বিরোধী দল হয়ে উঠেছে। এখন জোর টক্কর শুধুমাত্র তৃণমূল ও বিজেপিতে। লোকসভা ভোটে ১৮ টি আসন জিতে ২০২১ এর বঙ্গ দখলের স্বপ্নে বুঁদ বিজেপির কাছে এসিড টেস্ট হলো পুরোভোট। কোরোনার জেরে আপাতত স্থগিত পুরভোট, ফলে সময় মিলেছে অনেকখানিই। নিজেদেরকে ঘুচিয়ে নিতে কিছুটা সময় আরো বেশি পেলো বঙ্গ বিজেপি।

তবে পুরভোটে লড়লেও তেমন কোনো মুখ ছিল না বিজেপির কাছে। শোভন চট্ট্যোপাধ্যায় তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে এলে মনে করা হয়েছিল যে তিনিই এর প্রধান মুখ হতে পারেন কিন্তু তা হয়নি। সময়ের সাথে সাথে বেড়েছে দূরত্বও। তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে গিয়েও শোভন চট্টোপাধ্যায় সক্রিয় হননি। এখনও তিনি তৃণমূলমুখীই রয়ে গিয়েছেন। বিজেপি শতচেষ্টা করেও তাঁকে আসরে নামাতে পারেননি।


দেশে যে কোনো দিন ব্যান হয়ে যেতে পারে হোয়াটস্যাপ। তাই এখন থেকে আমরা শুধুমাত্র টেলিগ্রাম ও সিগন্যাল অ্যাপে। প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার নিউজ নিয়মিতভাবে পেতে যোগ দিন –

টেলিগ্রাম গ্রূপটাচ করুন এখানে

সিগন্যাল গ্রূপটাচ করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

বিজেপির কমিটিতে স্থান পাননি শোভন চট্টোপাধ্যায়, ঠাঁই পাননি শোভন-বান্ধবী বৈশাখীও। উভয়কেই ব্রাত্য রাখা হয়েছে। অথচ মুকুলের পর তৃণমূলের সবথেকে হেভিওয়েট শোভনই বিজেপিতে যোগদান করেছিলেন। এবং কলকাতা পুরসভার মুখ করে তোলার মতো একজন নেতা পেয়েছিল বিজেপি।
এদিকে তৃণমূলের সঙ্গে সমস্ত সম্পর্ক ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছে সব্যসাচী দত্ত। তিনি আদতে মুকুল ঘনিষ্ট হলেও দিলীপ ঘোষের সঙ্গেও তাঁর সম্পর্ক বেশ ভালোই, সদ্য পেয়েছেন পদও। সব্যসাচীকে বঙ্গ বিজেপির সম্পাদক করা হয়েছে। ফলে জল্পনা বাড়ছেই। রাজনৈতিক মহল মনে করছে, সব্যসাচী দত্তই হতে পারেন কলকাতা পুরসভার বিজেপির মুখ। কেননা শোভনের মতো তাঁরও পুরসভার মেয়র পদের অভিজ্ঞতা রয়েছে বিস্তর। শোভনের বিকল্প ভেবে রেখেছে বিজেপি তাই গুরুত্ব বাড়ানো হয়েছে তাঁর।যদিও এখনিই এই নিয়ে কিছু বলেনি বিজেপি নেতৃত্ব, মুখ খোলেননি সব্যসাচীও।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!