এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > মেয়র ও মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায় এবার নিজেই এবার কি পদত্যাগ করতে চলেছেন? বাড়ছে জল্পনা

মেয়র ও মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায় এবার নিজেই এবার কি পদত্যাগ করতে চলেছেন? বাড়ছে জল্পনা



মেয়র ও মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায় নাকি তাঁর ঘনিষ্ঠমহলে বলেছেন যে দলে থাকার মতো অবস্থা তাঁর আর নেই তাই তিনি দল ছাড়তে চলেছেন এমনটাই দাবি কলকাতার এক জনপ্রিয় ওয়েব পোর্টালের। ওই পোর্টালের দাবি অনুযায়ী তাঁর এমন বক্তব্যের কারণ হিসাবে তিনি দলীয় নেতৃত্ব ও পুলিশের একাংশের ভূমিকা-কেই দায়ী করেছেন। বৃহস্পতিবার রাতভর শোভনবাবুর স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায় ধরনা দেন। এরপর বার বার পুলিশের সহায়তা চাইলেও পুলিশ সহায়তা করে আইপিএস অফিসারকে ফোন করেন নি বলে অভিযোগ। এই নিয়ে অভিযোগ শোভনবাবু প্রথমে আইপিএস অফিসারকে ফোন করেন সেই অফিসার ‘দেখছি’ বলে লাইন কেটে দেন। এরপর এক শীর্ষস্তরেqর পুলিশকর্তাকে ফোন করেন শোভনবাবু। আর সেই পুলিশকর্তা ‘১০ মিনিট দিন, দেখছি।’ বলার পাশাপাশি শোভনবাবুকে জিজ্ঞাসা করেন যে কেন তিনি তাঁর মেয়ের ভিসা ফর্মে স্বাক্ষর করছেন না? সাথে পরামর্শ দেন যে মেয়রের উচিত তাঁর আইনজীবীদের বদলে ফেলা।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এর উত্তরে যখন শোভনবাবু পুলিশ কর্তাকে বলেন এত রাত্রে এইসব কথা বলার সময় নয়। তখন সেই পুলিশ কর্তা পাল্টা শোভনবাবুকে প্রশ্ন করেন যে এত রাতে তা হলে শোভন কী করে তাঁর সহায়তা চাইছেন ? ও ‘শুভরাত্রি’ বলে ফোন কেটে দেন। এরপর আরও সিনিয়র এক আইপিএস অফিসারকে ফোন করে সাহায্য প্রার্থনা করেন তিনি। ইতিমধ্যেই নাকি দু’জন ওসি তাঁর ফ্ল্যাটে গিয়ে মেয়ের ভিসা ফর্মে সই করতে বলেন।শেষে এক এক সিনিয়র আইপিএস অফিসারের হস্তক্ষেপে পুলিশ নিরস্ত হয়। এরপর শোভনবাবু দলের শীর্ষনেতৃত্বকে হোয়াট্সঅ্যাপ মেসেজ পাঠিয়ে জানান, তিনি হয়তো বাঁচবেন না, তবে রত্নাদেবীর ‘ব্ল্যাকমেলিংয়ের’ কাছে ঝুঁকবেনও না। তখন নাকি শীর্ষনেতৃতের কাছ থেকে উত্তর আসে যে সামনে মহেশতলা উপনির্বাচন। আর তাই শোভনবাবু যেন এখন চুপ করে থাকেন।এরপর মেয়রকে আশ্বাস দেওয়া হয় যে শীর্ষনেতৃত্বের তরফে সব কিছু খতিয়ে দেখা হবে। আর তাই শোভনবাবু মনে করছেন, এমন একটা পরিস্থিতি তৈরির চেষ্টা হচ্ছে যাতে তিনি এক রকম বাধ্য হয়েই পদত্যাগ করেন দাবি ওই ওয়েবপোর্টালের।  প্রিয়বন্ধু বাংলার তরফে এই খবরের সত্যতা যাচাই করে দেখা সম্ভব হয় নি। এই প্রবন্ধ সম্পূর্ণরূপে ওই পোর্টালে প্রকাশিত খবরের পরিপ্রেক্ষিতে করা, কোনোভাবেই রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত নয় বা কোনো ব্যক্তি বা দলের সম্মানহানির উদ্দেশ্যে রচিত নয়।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!