এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মেদিনীপুর > উত্তপ্ত পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথিও, তৃণমূল কর্মীর রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার ঘিরে জোর চাঞ্চল্য

উত্তপ্ত পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথিও, তৃণমূল কর্মীর রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার ঘিরে জোর চাঞ্চল্য



পঞ্চম দফার ভোট শেষে ষষ্ঠ দফার ভোটকে ঘিরে যখন উত্তপ্ত রাজ্য রাজনীতি, যখন শাসক বনাম বিরোধীর দাবি পাল্টা দাবিকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ছে সর্বত্র, ঠিক তখনই এবার ষষ্ঠ দফার ভোটের আগের রাতে রক্তাক্ত হয়ে উঠল পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথি। আর ভোটের আগে খোদ রাজ্যের হেভিওয়েট মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর গড়ে তৃণমূল কর্মীর রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধারকে ঘিরে এখন ব্যাপক শোরগোল তৈরি হয়েছে রাজনৈতিক মহলেও।

সূত্রের খবর, গতকাল শনিবার রাতে তমলুক জেলা হাসপাতালে অসুস্থ আত্মীয়কে দেখতে গিয়েছিলেন স্থানীয় তৃণমূল কর্মী সুধাকর মাইতি। আর তারপর থেকেই নিখোঁজ হয়ে যান তিনি। আর এরপরই রাস্তার ধারে কালভার্টের উপর সেই জন্য তৃনমূল কর্মী সুধাকর মাইতির রক্তাক্ত দেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। সেখান থেকেই সকলে মিলে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

আর এই ঘটনার পরই সেই নিহত তৃণমূল কর্মী সুধাকর মাইতির পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে যে, এই গোটা ঘটনার পিছনে বিজেপিই রয়েছে। তবে পাল্টা বিজেপির পক্ষ থেকে অবশ্য তা অস্বীকার করা হয়েছে। বর্তমানে এই গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। অন্যদিকে এদিনই এলাকা দখলকে কেন্দ্র করে গুলিবিদ্ধ হতে হয় দুই বিজেপি কর্মী অনন্ত গুছাইত এবং রনজিৎ মাইতিকে।

গেরুয়া শিবিরের অভিযোগ, এলাকা দখল করতে আসা তৃণমূল কর্মীদের বাধা দেওয়াতেই তারা তাদের দুই দলীয় কর্মীর বুকে এবং হাতে গুলি চালিয়েছে। অন্যকে তৃণমূলের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, আসলে এসবই বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্বেরই ফসল। সব মিলিয়ে এবার ভোটের আগে রক্তাক্ত হয়ে উঠল পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথি।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!