এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > রাহুলের মাস্টারস্ট্রোকে বরুন গান্ধীর ঘর ওয়াপসি, চাপে বিজেপি

রাহুলের মাস্টারস্ট্রোকে বরুন গান্ধীর ঘর ওয়াপসি, চাপে বিজেপি



এবার রাজনৈতিকমহলে জোর জল্পনা শুরু হলো বরুন গান্ধীকে নিয়ে। আর কয়েকদিনের মধ্যেই রাহুল গান্ধীকে কংগ্রেস সভাপতি করা হবেন বলে রাজনৈতিক গুঞ্জন। নতুন দ্বায়িত্ত্বও ভালোভাবে সামলাবেন তিনি বলেও আশাবাদী কংগ্রেস। আর এরমধ্যেই নতুন জল্পনা শুরু হয়ে গেল আর তা হলো কংগ্রেস সভাপতি হয়েই খুরতুতো ভাই বরুণ গান্ধীকে দলে নিতে পারেন রাহুল গান্ধী। সোনিয়া গান্ধীর সাথে মেনকা গান্ধীর তেমন বনিবনা নেই, কিন্তু বরুনের সাথে রাহুল-প্রিয়াঙ্কার সম্পর্ক যথেষ্ট ভালো। জল্পনার কারণ অবশ্য প্রবীণ কংগ্রেস নেতা হাজি মঞ্জুর আহমেদের কথা। তিনি বলেছেন ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটকে সামনে রেখে বরুণকে হয়ত কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির সদস্য করা হবে। প্রিয়ঙ্কা ভদ্রের সমর্থন নিয়ে রাহুল আর বরুণই হবেন কংগ্রেসের প্রচারের মুখ।
আর এই নিয়েই আশায় বুক বেঁধেছে কংগ্রেস দল থেকে কর্মী। এবার যে ঘরের ছেলে ঘরে ফিরতে পারে। অন্যদিকে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের ধারণা এর সম্ভাবনাও প্রবল কেননা বরুন গান্ধী যতই উত্তরপ্রদেশের সুলতানপুর কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ হন না কেন, যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও তাঁকে প্রাপ্য গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে না বিজেপিতে বলে তাঁর অনুগামীদের অভিযোগ। দলের নানা সিদ্ধান্তে তিনি অখুশি। বিশেষ করে উত্তরপ্রদেশে বিপুল জয়ের পর মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে ছিলেন বরুণ। কিন্তু তাঁকে পিছনে ফেলে রেখে আদিত্যনাথকে মুখ্যমন্ত্রী করা হয়। বরুণ ঘনিষ্ঠ নেতা হাজি জামালউদ্দিন বলেছেন, বিজেপিতে নরেন্দ্র মোদি ছাড়া কারও ‘মন কি বাত’ জানানোর অধিকার নেই। বরুণ গান্ধীই একমাত্র যিনি নিজের মতামত জানানোর স্পর্ধা দেখিয়েছেন। তাই তাঁকে একঘরে করা হয়েছে। তাই দ্বায়িত্ব পেলে বরুণকে কাছে টানতে পারে রাহুল.আর দুই ভাই মিলে গেলে বিজেপিকে মাত দেওয়া যাবে বলেও কংগ্রেসের অন্দরে ভাবনাচিন্তা শুরু হয়েছে। তবে গান্ধী পরিবারের বিবাদকে কাজে লাগিয়ে বিজেপি যে গান্ধী নামের সহানুভূতি পেত, ক্ষমতায় এসেই সেই বিভেদ তুলে গান্ধী-পরিবারকে এক করে দিয়ে প্রথমেই মাস্টারস্ট্রোক দিলেন রাহুল গান্ধী বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক মহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!