এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মুকুলের পর অধীর চৌধুরীর বিজেপিতে যাওয়া নিশ্চিত বলে বিস্ফোরক দাবি প্রাক্তন সাংসদের

মুকুলের পর অধীর চৌধুরীর বিজেপিতে যাওয়া নিশ্চিত বলে বিস্ফোরক দাবি প্রাক্তন সাংসদের



মুকুল রায়ের বিজেপিতে যোগদানের পর থেকেই  শাসকদল সমেত অন্য দলের  অনেক হেভিওয়েট নেতা বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন বলে গুঞ্জন উঠেছিল রাজনৈতিক মহলে। এই হেভিওয়েট নেতাদের মধ্যে একদম উপরের সারিতেই নাম ছিল প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীর। আর তাকে মান্যতা দিয়ে কলকাতার এক ওয়েব পোর্টালের দাবি শুভেন্দু অধিকারী এবার অধীরের বিজেপিতে যাওয়া একেবারে কনফার্ম করে দিলেন! ওই পোর্টালের দাবী যে শুভেন্দু অধিকারী মুর্শিদাবাদে দাঁড়িয়ে যা বলেছেন তাতেই বেড়েছে বিতর্ক। তিনি বলেন, মুকুল রায়ের পর বিজেপিতে পা বাড়িয়ে রয়েছেন অধীর চৌধুরী, তাঁর বিজেপিতে যাওয়া স্রেফ সময়ের অপেক্ষা।

ফলে রাজনৈতিক মহলে প্রশ্ন উঠেছে যে হঠাৎ করে শুভেন্দু অধিকারী কেন এমন দাবি করলেন? সত্যিই কি কোনো খবর আছে তাঁর কাছে নাকি সবটাই কথার কথা। এই নিয়ে শুভেন্দুবাবুর বিশদে কোনো ব্যাখ্যা অবশ্য ওই রিপোর্টে পাওয়া যায় নি। তবে রাজনৈতিক মহলে এই নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে, কেননা অধীরবাবু এখনো প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি থাকলেও তার আসন টালমাটাল অবস্থায় আছে বলে রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন, এমনও গুঞ্জন বাতাসে যে রাজ্যসভার কংগ্রেস সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য্য তাঁর স্থলাভিষিক্ত হতে পারেন যেকোনদিন। এর পরে যা খবর রাজ্যে কংগ্রেসের  সাথে তেমন শাসকদলের সদ্ভাব না থাকলেও সোনিয়া গান্ধী ও রাহুল গান্ধীর সাথে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সখ্যতা ক্রমশ বাড়ছে আর তা নিয়ে অখুশি অধীরবাবু বলেও জল্পনা। তার উপর প্রায় রোজই কংগ্রেস ছেড়ে হয় তৃণমূল না হয় বিজেপিতে কর্মীরা চলে যাচ্ছেন। আর তাই সব মিলিয়ে শুভেন্দুবাবুর কথাকে গুরুত্ত্ব দিতে হচ্ছে  বলেই মত রাজনৈতিকমহলের। যদিও এই খবর সম্পূর্ণ ওই ওয়েব পোর্টালের খবরের ভিত্তিতে করা, প্রিয়বন্ধু বাংলা এই খবরের সত্যতা যাচাই করে দেখতে পারে নি। এর কোনো মতামতই প্রিয়বন্ধু বাংলার নিজস্ব নয়। এই প্রবন্ধ কোনো মতেই রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত নয় বা কোনো ব্যক্তি বা দলের সম্মানহানির উদ্দেশ্যে রচিত নয়।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!