এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > বিয়ে এবার ‘অনলাইনেই’, যুগান্তকারী প্রচেষ্টা রাজ্য সরকারের

বিয়ে এবার ‘অনলাইনেই’, যুগান্তকারী প্রচেষ্টা রাজ্য সরকারের



বিয়ে নিয়ে এবার যুগান্তকারী পদক্ষেপ নিতে চলেছে রাজ্য সরকার। বিয়ের সরকারি প্রমাণপত্র হিসেবে গণ্য হয় ম্যারেজ রেজিস্টারের দেওয়া সার্টিফিকেটে। বর্তমান ব্যবস্থায় ম্যারেজ রেজিস্ট্রারের হেড অফিসে নথির পাহাড় জমে গিয়েছে, পুরনো কোনও নথি খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। তাছাড়া সার্টিফায়েড কপি তুলতেও অনেক সময় যুবক যুবতীদের হয়রান হতে হয়। পাশাপাশি অনেকে বিয়ে করেও প্রতারিত হন, কিছু ক্ষেত্রে দেখা গিয়েছে অনেকে ভুয়ো রেজিস্ট্রারের ফাঁদে পড়েন। তারা ভুয়ো কাগজপত্র তৈরি করে নতুন দম্পতির হাতে তুলে দেয়, পরে নতুন দম্পতিকে সমস্যায় পড়তে হয়।

আর এইসব সমস্যার সমাধান করতে এবার রাজ্য সরকার অনলাইনে ম্যারেজ রেজিস্ট্রি শুরু করতে চলেছে। রাজ্যের আইনমন্ত্রী মলয় ঘটক জানিয়েছেন, অনলাইনে রেজিস্ট্রি করার জন্য কাজ অনেক আগেই শুরু হয়েছে। ম্যারেজ রেজিস্ট্রাররা প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন, আরও কিছু টেকনিক্যাল কাজ বাকি আছে। আশা করি এক মাসের মধ্যেই অনলাইনে ম্যারেজ রেজিস্ট্রি চালু হয়ে যাবে। প্রশাসন সূত্রে খবর, আপাতত পাইলট প্রজেক্ট হিসেবে হুগলি ও কলকাতার কয়েকটি থানা এলাকাকে বেছে নেওয়া হয়েছে, পরে ধাপে ধাপে বাকি জেলাগুলিতেও এই কাজ হবে।

কিভাবে কাজ করবে এই ‘অনলাইন বিয়ে’?
১. রাজ্য সরকার বিশেষ একটা সফটওয়্যার তৈরি করেছে
২. এই সফটওয়্যারে ক্লিক করলেই একটি ফর্ম আসবে
৩. সেটি বিয়ে করতে আসা যুবক, যুবতীদের ফিলআপ করতে হবে
৪. পরে তাঁদের বয়সের প্রমাণপত্র, ঠিকানার প্রমাণ সহ অন্যান্য নথি স্ক্যান করতে হবে
৫. রেজিস্ট্রির জন্য এখন যেসব নিয়ম চালু আছে তার সবটাই থাকবে
৬. শুধু সিস্টেমটা পেপারলেস হয়ে যাবে
৭. এক্ষেত্রে সব নথি বিশেষ সফটওয়ারে অনলাইনে স্ক্যান করে জমা দেওয়ার পরে তা আপলোড হয়ে যাবে
৮. এই পদ্ধতিতে নবদম্পতি সার্টিফায়েড কপি সঙ্গে সঙ্গেই পেয়ে যাবেন
৯. রেজিস্ট্রির জন্য বিশেষ সফটওয়্যার শুধু ম্যারেজ রেজিস্ট্রারের কাছেই থাকবে
১০. অনলাইন পদ্ধতিতে কত টাকা খরচ হবে তা এখনও ঠিক না হলেও পেপারলেস ম্যারেজ রেজিস্ট্রি চালু হলে উভয়পক্ষের সুবিধা হবে

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!