এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > পুরভোটের আগে মানুষের মন পেতে কল্পতরু মুখ্যমন্ত্রী, জেনে নিন

পুরভোটের আগে মানুষের মন পেতে কল্পতরু মুখ্যমন্ত্রী, জেনে নিন



রাজ্যের দরজায় কড়া নাড়ছে পুরসভা নির্বাচন। আর এই পুরসভা নির্বাচনকে মাথায় রেখেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দরাজহস্ত হয়ে উঠেছেন বলে মনে করা হচ্ছে সাম্প্রতিক ঘটনাকে মাথায় রেখে। মঙ্গলবার তিনি জেলা সফরকালে এসেছেন উত্তর দিনাজপুরের কালিয়াগঞ্জে। সেখানেই প্রশাসনিক বৈঠকের মাঝেই তিনি বেশ কয়েকটি নতুন প্রকল্পের ঘোষণা করলেন। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো জয় বাংলা প্রকল্প, জয় জোহার প্রকল্প, স্নেহালয় প্রকল্প, কর্মসাথী প্রকল্প ইত্যাদি। তবে পুরসভার নির্বাচন প্রাক্কালে এভাবে একের পর এক প্রকল্প ঘোষণায় রাজনৈতিক মহলে জোর গুঞ্জন শুরু হয়েছে।

এদিন মুখ্যমন্ত্রী উত্তর দিনাজপুরের কালিয়াগঞ্জে প্রশাসনিক সভা করতে পৌঁছান। সেখান থেকেই তিনি বিভিন্ন প্রকল্পের ঘোষণার মধ্য দিয়ে জেলার মানুষের মন জয়ের রাস্তা প্রশস্ত করলেন বলে মনে করা হচ্ছে। এদিন মুখ্যমন্ত্রী জয়বাংলা প্রকল্পের মধ্য দিয়ে ঘোষণা করেন তপশিলি সম্প্রদায়ের অধিবাসীদের সুবিধা পাওয়ার কথা। এদিন জয় বাংলা প্রকল্পের বর্ণনা করতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দেন তপশিলি জাতি পরিবারের যেসব সদস্য বা সদস্যারা 60 বছর পেরিয়েছেন, তাঁরা এবার থেকে এই প্রকল্পের আওতাভুক্ত হলে মাসে হাজার টাকা করে পেনশন পাবেন।

অবশ্য জয় বাংলা প্রকল্প এবং জয় জোহার প্রকল্পটির ঘোষণা এবারের বাজেটে আগেই ঘোষণা করেছিলেন অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। অন্যদিকে জয় জোহার প্রকল্পটির মধ্য দিয়ে আদিবাসীদের সুবিধা প্রদান করা হলো বলে দাবি করা হচ্ছে শাসক মহল থেকে। জয় জোহার প্রকল্পের মধ্য দিয়েও একইভাবে আদিবাসীদের মধ্যে যারা 60 বছর বয়স পেরিয়েছেন, এই প্রকল্পের আওতাভুক্ত হলে প্রতিমাসে হাজার টাকার অধিকারী হবেন তাঁরা। শুধু তাই নয়, এ দিন মুখ্যমন্ত্রী কালিয়াগঞ্জ এর সভা থেকে একের পর এক প্রকল্পের ঘোষণা করতে থাকেন। এদিন তিনি জানান, রাজ্য সরকারের বিধবা ভাতা এবং শারীরিকভাবে অক্ষমদের জন্য যে ভাতা প্রদান করা চলছে তা এবার থেকে বাড়ানো হতে চলেছে।

এতদিন পর্যন্ত এই ভাতা ছিল মাসে 750 টাকা। এবার থেকে তা বেড়ে হচ্ছে হাজার টাকা। যদিও মুখ্যমন্ত্রী এই প্রকল্পগুলির ঘোষণা শেষে জানান, রাজ্য সরকারের অতিরিক্ত হাজার কোটি টাকা বেশি খরচ হবে এই প্রকল্প গুলি চালিয়ে নিয়ে যেতে।  এদিন মুখ্যমন্ত্রী আরো একটি প্রকল্পের ঘোষণা করেন, যার নাম স্নেহালয় প্রকল্প। এই প্রকল্পের মধ্য দিয়ে বাড়ি তৈরি করার জন্য আর্থিক সাহায্য দেওয়া হবে বলে জানা গেছে। প্রশাসনিক সূত্রে জানা গেছে প্রতিটি ক্ষেত্রেই প্রকল্পের অধীন হওয়ার জন্য বিডিও অফিসে প্রথমে আবেদন করতে হবে এবং পরবর্তীতে প্রকল্প অনুযায়ী টাকা আবেদনকারীদের ব্যাংক একাউন্টে জমা হয়ে যাবে সরাসরি।

অন্যদিকে মুখ্যমন্ত্রীর একের পর এক প্রকল্প ঘোষণা কথা উল্লেখ করে বিরোধী দল থেকে দাবি করা হচ্ছে, আসন্ন ভোটের কথা মাথায় রেখেই মুখ্যমন্ত্রী একের পর এক সামাজিক প্রকল্প ঘোষণা করছেন। অন্যদিকে মুখ্যমন্ত্রীও এদিন কালিয়াগঞ্জ এর সভা থেকে কেন্দ্রীয় সরকারের কড়া সমালোচনা করেন বলে জানা গেছে। সূত্রের খবর, সোমবার পুরভোট প্রচারে ঝড় তুলতে ‘বাংলার গর্ব মমতা’ কর্মসূচি চালু করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। আর এরপর জেলার প্রশাসনিক বৈঠক এসেছেন তৃণমূল নেত্রী। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের দাবি এরই মাঝে একের পর এক প্রকল্প ঘোষণা করে পুরভোটের রাস্তা সুগম করতে চমক দিতে চাইছেন মুখ্যমন্ত্রী। আপাতত পরিস্থিতির ওপর নজর রাখবে ওয়াকিবহাল মহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!