এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > সবং বাঁচাতে মাটি কামড়ে লড়াই মানস ভূঁইয়ার, বিজেপিকে রাখছেন না ধর্তব্যের মধ্যেই

সবং বাঁচাতে মাটি কামড়ে লড়াই মানস ভূঁইয়ার, বিজেপিকে রাখছেন না ধর্তব্যের মধ্যেই



মানস ভূঁইয়া আর সবং যেন সমার্থক। ২০১৬ তে রাজ্যজুড়ে প্রবল মমতা-হাওয়াতেও বাম সমর্থিত কংগ্রেস প্রার্থী হিসাবে হাসতে হাসতে জয় ছিনিয়ে নিয়েছিলেন এখন থেকে, যেখানে পার্শ্ববর্তী নারায়ণগড় থেকে হারতে হয়েছিল সিপিএমের হেভিওয়েট প্রার্থী সূর্য্যকান্ত মিশ্রকে। সবং মানেই মানস ভূঁইয়া মিথ, এটাই যেন বদ্ধমূল ধারণা হয়ে গিয়েছিল রাজ্য-রাজনীতিতে। সেই মানস ভূঁইয়া এখন দল বদলে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন, শাসকদলের টিকিটে হয়েছেন রাজ্যসভার সাংসদ। আর তাই সবংয়ে হতে চলেছে বিধানসভা উপনির্বাচন। যেখানে শাসকদলের টিকিট পেয়েছেন তাঁরই পত্নী গীতারানি ভূঁইয়া। রাজনৈতিক মহলের গুঞ্জন, এখানে টিকিটের দাবিদার ছিলেন অনেকেই, যার মধ্যে আবার অনেকে ‘আদি’ তৃণমূলী এবং মানস ভূঁইয়ার বিরোধী শিবিরের বলেই পরিচিত। ফলে ভূঁইয়া পরিবারেই টিকিট যাওয়ায় ক্ষোভ বেড়েছে তাঁদের মধ্যে। উল্টোদিকে দলবদলে মুকুল রায় এখন বিজেপি শিবিরে, ফলে বিজেপিও জোর কদমে নেমেছে সবং-অভিযানে।

আরও পড়ুন: উনি সবংয়েই টের পাবেন, নাম না করে মুকুল রায়কে তীব্র কটাক্ষ শুভেন্দু অধিকারীর

আর তাই প্রার্থী তাঁর স্ত্রী হলেও, বকলমে লড়ছেন মানস ভূঁইয়াই। আর সেই লড়াইয়ে এক ইঞ্চি জমিও ছাড়তে রাজি নন তিনি। মাটি কামড়ে লোরে যাচ্ছেন সবংকে নিজের গড় করে রাখতে, বিজেপি হাওয়া বা গোষ্ঠীদ্বন্দ্বকে কানছেন ধর্তব্যের মধ্যেই। ছোট ছোট পথসভা করে আপাতত সবংয়ের মন বুঝতে চাইছেন তিনি। সেখান থেকেই জানালেন, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করার পরিকল্পনা নিয়েছে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার। কারণ, নরেন্দ্র মোদীর বিকল্প একমাত্র মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই এই প্রচেষ্টাকে প্রতিহত করতে তৃণমূলের সঙ্গে থাকুন। সবংয়ে সিপিএম-বিজেপি এক হয়েছে। দিনের বেলায় যারা সিপিএম, রাতের অন্ধকারে তারাই বিজেপি হয়ে পতাকা টাঙাচ্ছে। আসলে সবংয়ে বিজেপি নেই। তবে সবং নিয়ে প্রত্যাশী হলেও প্রচারে কোনো খামতি রাখতে রাজি নন তিনি। আগামীকালই প্রচারে আসছেন তৃণমূলে অন্যতম ‘হার্টথ্রব’ শুভেন্দু অধিকারী। এরপর একে একে অন্যান্য শীর্ষনেতৃত্ত্ব ও মন্ত্রীরাও আসবেন প্রচারে বলে জানা যাচ্ছে। এখন দেখার, সবং সত্যিই মানসবাবুর সাথে থাকে নাকি সেখানে ভেঙে যাবে মানস-মিথ, সব উত্তর মিলবে ইভিএম মেশিন খুললে। সেদিকেই তাকিয়ে রাজ্য-রাজীনীতি, কেননা সবং হতে পারে আগামীদিনের বঙ্গ রাজনীতির দিকনির্দেশ বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

আরও পড়ুন: সবং জয়ের লক্ষে আজ আসরে বিজেপির শীর্ষনেতৃত্ত্ব

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!