এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > মমতার লড়াইয়েই বাংলার কৃষকদের অ্যাকাউন্টে পিএম কিষান ফান্ডের টাকা ঢুকছে? নতুন দাবি মমতার!

মমতার লড়াইয়েই বাংলার কৃষকদের অ্যাকাউন্টে পিএম কিষান ফান্ডের টাকা ঢুকছে? নতুন দাবি মমতার!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – দীর্ঘদিন প্রধানমন্ত্রী কিষাণ সম্মান নিধি প্রকল্পের অর্থ থেকে বঞ্চিত ছিলেন বাংলার কৃষকেরা। নির্বাচনী প্রচারে এসে প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, বিজেপি ক্ষমতায় এলে রাজ্যের কৃষকদের প্রধানমন্ত্রী কিষান প্রকল্পের অর্থ সরাসরি তাদের ব্যাংক একাউন্টে দেয়া হবে।

তবে, বিজেপি রাজ্যে ক্ষমতায় না এলেও শেষপর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী কিষাণ সম্মান নিধির অর্থ আজ পেলেন রাজ্যের বহু কৃষক। রাজ্যের সাত লক্ষ কৃষকের ব্যাংক একাউন্টে এই অর্থ সাহায্য পৌঁছে গেল। রাজ্যের কৃষকদের অর্থপ্রাপ্তি তাঁর লড়াইয়ের কারণে হয়েছে বলেই দাবি করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

দীর্ঘদিন ধরে এ রাজ্যের কৃষকদের প্রধানমন্ত্রী কিষান সম্মান নিধির অর্থসাহায্য আটকে ছিল, বেশ কিছু অস্বচ্ছতার কারণে। কৃষকরা এই সাহায্য থেকে বঞ্চিত হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছিল। এই ইস্যুতে রাজ্য সরকারকে বারবার কাঠগড়ায় তোলা হয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে। অবশেষে আজ রাজ্যর ৭ লক্ষ কৃষকেরা একাউন্টে ২০০০ টাকা করে অর্থ সাহায্য পেতে চলেছেন। কৃষকদের এই অর্থ প্রাপ্তির কৃতিত্ব নিজের বলে দাবি করলেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

আজ সরাসরি রাজ্যের কৃষকদের উদ্দেশ্যে চিঠি দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন যে, দীর্ঘ টালবাহানা করে, নানা অজুহাত দিয়ে কেন্দ্র সরকার কিষান সম্মান নিধি প্রকল্পের অর্থ আটকে রেখেছিল। ২০১৮ সালে পশ্চিমবঙ্গে কৃষক বন্ধু যোজনা চালু করা হয়েছে। যা দেখে কেন্দ্রীয় সরকার ২০১৯ সালে কিষান সম্মান নিধি প্রকল্প চালু করেছে। পিএম কিষান প্রকল্পের তুলনায় কৃষক বন্ধু প্রকল্পের সুবিধা অনেক বেশি। কৃষক বন্ধু প্রকল্পের সুবিধা পেয়ে থাকেন ভাগচাষি ও বর্গাদাররাও। এই প্রকল্পে ভবিষ্যতে আরো বাড়ানো হবে আরও সুযোগ।

মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, রাজ্য সরকারের লড়াইয়ের কারণেই পি এম কিষান প্রকল্পের অর্থ কৃষকের একাউন্টে এসে পৌঁছেছে। কৃষকদের প্রতি তিনি জানিয়েছেন, তাদের চিন্তা না করতে, তাদের প্রাপ্য বকেয়া অর্থের জন্য লড়াই করবেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, কৃষকদের প্রাপ্য ছিল ১৮ হাজার টাকা। কিন্তু তাদের অনেক কম অর্থ দেয়া হচ্ছে। তিনি যদি কৃষকদের জন্যে লড়াই না করতেন, তবে এটুকু অর্থও কৃষকরা পেতেন না।

এভাবেই পিএম কিষান প্রকল্পে কৃষকদের অর্থপ্রাপ্তি মুখ্যমন্ত্রী তথা রাজ্য সরকারের দীর্ঘ লড়াইয়ের কারণেই হয়েছে বলেই, দাবি করলেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী। রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা জানিয়েছেন, ইতিপূর্বেও একাধিক কেন্দ্রীয় প্রকল্পকে রাজ্যের প্রকল্প বলে বারবার দাবি করার অভিযোগ উঠেছিল। এই পরিস্থিতিতে মুখ্যমন্ত্রীর এই দাবি নতুন সংযোজন বলেই ধারণা রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!