এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > মমতার জেলা সফরে দেখাই মিলল না প্রধান সেনাপতির! তৃণমূলের সঙ্গে বিচ্ছেদ কি সময়ের অপেক্ষা?

মমতার জেলা সফরে দেখাই মিলল না প্রধান সেনাপতির! তৃণমূলের সঙ্গে বিচ্ছেদ কি সময়ের অপেক্ষা?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – অতীতে তৃণমূল কংগ্রেস যে যে এলাকায় পরাজিত হয়েছে, সেই এলাকা পুনরুদ্ধার করতে দায়িত্ব পড়েছিল শুভেন্দু অধিকারীর ওপর। পূর্ব মেদিনীপুর থেকে মুর্শিদাবাদ, মালদহ থেকে শুরু করে নদিয়া, সমস্ত জেলাতেই শুভেন্দু অধিকারীকে দায়িত্ব দিয়ে সেখানকার সংগঠনকে চাঙ্গা করার চেষ্টা করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর প্রত্যাশা মতই নেত্রী দায়িত্ব দেওয়ার পর সেই সমস্ত জায়গায় সাফল্যের সঙ্গে কাজ করে সেখানকার ভালো ফল করিয়েছেন তৃণমূলের এই দাপুটে মন্ত্রী।

তবে আশ্চর্যজনকভাবে লোকসভা নির্বাচনের পর থেকেই সমীকরণ বদলাতে শুরু করে।সাংগঠনিক বৈঠকের একাধিক জেলার রদবদলের পাশাপাশি পর্যবেক্ষক তুলে দিয়ে যে সমস্ত জেলায় শুভেন্দু অধিকারী দায়িত্বে ছিলেন, সেই সমস্ত জেলা থেকে তাকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই এই পরিস্থিতিতে শুভেন্দু অধিকারীর ডানা ছাটা হচ্ছে ধরে নিয়ে তার অনুগামীদের বিদ্রোহ মাঝেমধ্যেই চোখে পড়তে দেখা যাচ্ছে। একইভাবে শুভেন্দু অধিকারীকেও তেমন ভাবে দলের কোনো কর্মসূচিতে দেখা যাচ্ছে না। যার ফলে নিত্যনতুন জল্পনা ছড়িয়ে পড়ছে রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রীকে নিয়ে।

মাঝে শুভেন্দুবাবুর বিজেপিতে যোগদানের জল্পনা উঠলে তিনি পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দেন, দলে একজন নেত্রী। তার নাম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।  সকলে তার  অনুগত সৈনিক। তিনি নেত্রীর আনুগত্য মেনেই কাজ করবেন।  তারপর   রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রীকে নিয়ে জল্পনা কিছুটা হলেও বন্ধ হয়। তবে সাম্প্রতিককালে আবার নতুন করে এই বিষয়ে গুঞ্জন তৈরি হতে শুরু করেছে। জানা গেছে, সম্প্রতি করোনা আবহের মধ্যেই ঝাড়গ্রাম এবং পশ্চিম মেদিনীপুরে জেলা সফর করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অতীতে এই সমস্ত জেলা সফরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গেলে তাঁর ছায়াসঙ্গী হিসেবে দেখা যেত রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীকে। কিন্তু এবার সেই শুভেন্দুবাবুর লেশমাত্র দেখা গেল না। আর তা নিয়েই রাজনৈতিক মহলে ব্যাপক জল্পনা তৈরি হয়েছে। যেখানে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জেলা সফরে আসলেন, অথচ তার সঙ্গে দেখা গেল না শুভেন্দু অধিকারীকে, সেখানে শুভেন্দুবাবু কি তাহলে দলের সঙ্গে দূরত্ব বাড়াতে শুরু করেছেন? এবার কি তিনি চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন?

বিধানসভা নির্বাচনের আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জঙ্গলমহলে গেলেও, সেই জঙ্গলমহলের সংগঠনের পরিচালনা যার কাঁধে, সেই শুভেন্দু অধিকারীকে তৃণমূল নেত্রীর সঙ্গে দেখতে না পাওয়ায় নানা মহলে প্রশ্ন তৈরি হয়েছে। তা থেকেই রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রীর আগামী রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে তৈরি হয়েছে গুঞ্জন।

একাংশ বলছেন, কিছুদিন আগেই শুভেন্দু অধিকারী করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। বর্তমানে তিনি সুস্থ হয়ে উঠেছেন। তবে নানা স্বাস্থ্যবিধি মানতে হচ্ছে তাকে। তাই এই সময় সামাজিক দূরত্ব ভেঙে কোনো কর্মসূচিতে যোগ দেওয়া তার পক্ষে উচিত হবে না। তাই তিনি এই কর্মসূচিতে যোগ দিতে পারেননি।

তবে শুভেন্দুবাবুর ঘনিষ্ঠ অনুগামীরা এই যুক্তি দিতে চাইলেও একাংশ বলছেন, নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এলেন, অথচ সেখানে অনুপস্থিত থাকলেন শুভেন্দু অধিকারী! এটা ঠিকমত অনেকেরই হজম হচ্ছে না। তাই অতীতে শুভেন্দু অধিকারীর বিজেপি যোগ নিয়ে এমনিতেই জল্পনা চলছিল। কিন্তু তার মধ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জেলা সফরে এলে সেখানে তাঁর অনুপস্থিতি কি সেই বিচ্ছেদ এবং দূরত্বকে আরও তীব্র করল! এখন এই প্রশ্নই উঠতে শুরু করেছে বাংলার রাজনীতির অন্দরমহলে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!