এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > বিজেপি > “মমতা এখানকার মুসলিম সমাজকে অশিক্ষিত ও গরিব করে রেখে ভোটের জন্য ব্যবহার করতে চাইছেন।” – বিস্ফোরক বিজেপির রাজ্য সভাপতি

“মমতা এখানকার মুসলিম সমাজকে অশিক্ষিত ও গরিব করে রেখে ভোটের জন্য ব্যবহার করতে চাইছেন।” – বিস্ফোরক বিজেপির রাজ্য সভাপতি



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – আজ মুর্শিদাবাদের একাধিক জনসভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তথা রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। জঙ্গিপুরের জনসভা থেকে তিনি জানালেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কখনো মানুষের চাকরি, শিক্ষা, শুদ্ধ পানীয় জলের ব্যবস্থা করা হোক, যোগাযোগ ব্যবস্থা ভাল হোক তা চান না। তিনি অভিযোগ করেন, মুসলিম সমাজকে অশিক্ষিত, দারিদ্র রেখে তাদের ভোটের জন্য ব্যবহার করতে চাইছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ অভিযোগ করেছেন যে, এই রাজ্যের যুবকদের ভিন রাজ্যে কাজ করতে যেতে হচ্ছে। লকডাউন এর সময় শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন চালু করে পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়ি ফেরানো শুরু হয়েছিল। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার তা করেনি। তিনি জানান, শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনকে করোনা স্পেশাল ট্রেন বলে কটাক্ষ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর অভিযোগ, ১০ বছর ধরে রাজ্যের দরিদ্র মানুষের জন্য কোন কাজই করেননি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

কেন্দ্রীয় সরকারের পাঠানো সাহায্য বাংলার মানুষকে পেতে দেয়নি তৃণমূল সরকার। বাংলার মহিলারা সুরক্ষিত নন। এ রাজ্যে ধর্ষণের শাস্তি দেয়া হয় না। আবার, মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানালেন যে, এখন আর মানুষ তাঁর মুখ দেখতে চাইছেন না। মুখ্যমন্ত্রী এটা ভালো করেই বুঝে গিয়েছেন। তাই সকলকে পা দেখাচ্ছেন তিনি। বাংলা আর নিজের মেয়েকে চাইছে না। তিনি জানালেন, খেলা তো শুরুতেই শেষ হয়ে গেছে। নন্দীগ্রামেই খেলা শেষ হয়ে গেছে। ঘাস ফুল শুকিয়ে গিয়েছে।

অন্যদিকে, আজ মুর্শিদাবাদের সুতির সভা থেকে পুলিশের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। পুলিশকে হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি জানালেন, বিজেপি নেতাদের না ধমকাতে। সারাজীবন তাঁদের পায়ের নিচে থেকে চাকরি করতে হবে। তিনি হুঁশিয়ারি দিয়েছেন যে, এত বড় সাহস ওসির যে এক সর্বভারতীয় দলের কর্মীদের ধমকাচ্ছেন তিনি। এদের ধম্কানোর দুঃসাহস না দেখাতে। কারো ধার ধরা হবে না। বাকি জীবন তাঁদের পায়ের নিচে থেকেই চাকরি করতে হবে।

আজ পুলিশের বিরুদ্ধে তিনি যেভাবে বক্তব্য রেখেছেন, তা নিয়ে যথেষ্ট বিতর্ক শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। তবে,এ প্রসঙ্গে মুর্শিদাবাদ জেলা বিজেপি নেতৃত্বের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, রাজ্যে যেভাবে বিজেপি নেতাদের ওপর হুমকি দেয়া হচ্ছে ও মিথ্যা মামলা কিংবা গাজা কেসে জেলে ভরা হচ্ছে, তার বিরুদ্ধে কথা বলতে গিয়ে পুলিশকে এ কথা বলেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। সম্প্রতি, সুতির বিজেপি প্রার্থী কৌশিক দাসকে হুমকি দিয়েছিলেন ওসি। এ প্রসঙ্গেই বিজেপির রাজ্য সভাপতি এ ধরনের বক্তব্য রেখেছেন।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!