এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মমতার সরকার ৩০% মানুষের জন্য কাজ করে, বিজেপি এলে ‘সবকা সাথ, সবকা বিকাশ’! বড় দাবি কৈলাশের

মমতার সরকার ৩০% মানুষের জন্য কাজ করে, বিজেপি এলে ‘সবকা সাথ, সবকা বিকাশ’! বড় দাবি কৈলাশের



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – গেরুয়া শিবিরের পক্ষ থেকে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দীর্ঘদিন ধরেই কোন একটি বিশেষ সম্প্রদায়ের তোষণকারী বলে ব্যাখ্যা করা হয়। আর এদিন কলকাতার বুকে শহীদ তর্পণে বাধা পাওয়ার পর গেরুয়া শিবিরের পক্ষ থেকে আবারও সেই দাবিকেই জোরদারভাবে পেশ করা হল। চলতি সপ্তাহেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পুরোহিতদের জন্য ভাতার ব্যবস্থা করেছেন। তারই পরিপ্রেক্ষিতে আজ গেরুয়া শিবিরের পক্ষ থেকে বাগবাজার ঘাট শহীদ তর্পণের আয়োজন করা হয়েছিল

কিন্তু পুলিশ এই অনুষ্ঠানের অনুমতি দেয়নি। আর তাতেই লাগে গন্ডগোল। পুলিশের বাধায় ক্ষিপ্ত বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তীব্র আক্রমণ করেন এদিন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতি অভিযোগ করেন দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের ঐতিহ্যকে আটকানোর চেষ্টা করে চলেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। এ প্রসঙ্গে উঠে এসেছে লকডাউনে শুক্রবার এবং মহরম বাদ দেওয়া নিয়ে তৃণমূল নেত্রীর সিদ্ধান্ত। এই নিয়ে আগেও কটাক্ষ করেছে গেরুয়া শিবির।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিন শহীদ তর্পণ অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন কৈলাশ বিজয়বর্গীয়, অরবিন্দ মেনন,মুকুল রায় সহ একাধিক হেভিওয়েট বিজেপি নেতা। তর্পণে বাধা পেয়ে বিক্ষোভ শুরু করেবন তাঁরা। এই ঘটনা প্রসঙ্গে কৈলাস বিজয়বর্গীয় অভিযোগ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তর্পণে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করে প্রমাণ করে দিয়েছেন তিনি 30 শতাংশ লোকের সরকার। আর সেই সূত্রেই উঠে এসেছে একুশের বিধানসভা নির্বাচনের কথা। একুশের বিধানসভা নির্বাচনে যদি বিজেপি সরকার আসে তা হলে তারা 100% লোকের জন্যই কাজ করবে বলে দাবী করেন বিজেপি নেতা।

তবে কৈলাস বিজয়বর্গীয় জানিয়েছেন, তাঁরা বাগবাজার ঘাটে প্রশাসনের বাধা পেলেও গোলাবাড়ি ঘাটে যথা নিয়মে শহীদ তর্পণ অনুষ্ঠান পালন করা হয়। অন্যদিকে বিশেষজ্ঞদের মতে, রাজ্যে আজকে হয়ে যাওয়া তর্পণ কাণ্ডের রেশ আরো দীর্ঘদিন থাকবে। বলা যায়, একুশের বিধানসভা নির্বাচনে গেরুয়া শিবির এই ঘটনার ফায়দা নেবার চেষ্টা চালাবে। অন্যদিকে রাজনৈতিক মহলের একাংশের দাবী, তৃণমূল বিজেপির রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব ক্রমশ যে বেড়েই চলেছে তা আবারও প্রমাণ হলো।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!