এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > মমতার প্রধান পরিকল্পনা কি? প্রকাশ্য সভায় জানিয়ে দিলেন মোদী!

মমতার প্রধান পরিকল্পনা কি? প্রকাশ্য সভায় জানিয়ে দিলেন মোদী!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – চতুর্থ দফার নির্বাচনের পর বাংলার রাজনৈতিক লড়াই যেন আরও জমে উঠেছে। একের পর এক সভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেমন বিজেপিকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করছেন, ঠিক তেমনই পাল্টা তৃণমূলকে আক্রমণ করছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আজ বর্ধমানের সভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রধান পরিকল্পনার কথা তুলে ধরে তৃণমূল সুপ্রিমোকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন প্রধানমন্ত্রী।

যেখানে রাজ্য নেতাদের পথ অনুসরণ করে তৃণমূলকে “কোম্পানি” বলে অভিহিত করে ঘাসফুল শিবিরকে কাঠগড়ায় দাঁড় করালেন নরেন্দ্র মোদী। পাশাপাশি তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের বিদ্রোহকে বাড়িয়ে দিয়ে তৃণমূলকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভাইপোর হাতে তুলে দেওয়ার পরিকল্পনা করছেন বলেও মন্তব্য করতে দেখা গেল তাকে।

সূত্রের খবর, আজ বর্ধমানের একটি জনসভায় উপস্থিত হন প্রধানমন্ত্রী। আর সেখানেই তৃণমূল কংগ্রেস সম্পর্কে বিস্ফোরক মন্তব্য করতে দেখা গেছে তাকে। নরেন্দ্র মোদী বলেন, “টিএমসি কোম্পানি ভাইপোকে দেওয়ার পরিকল্পনা করেছেন দিদি। কিন্তু দিদির খেলা মানুষ ধরে ফেলেছেন। দিদিকে এবার মাঠের বাইরে বের করে দিয়েছেন বাংলার মানুষ।” অর্থাৎ প্রধানমন্ত্রী নিজের মন্তব্যের মধ্যে দিয়ে বুঝিয়ে দিতে চাইলেন, তৃণমূল কংগ্রেস আসলে একটা কোম্পানি।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এক্ষেত্রে তৃণমূল দলটাকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাতে তুলে দেওয়ার পরিকল্পনা চলছে বলে শাসক দলের অভ্যন্তরীণ সমস্যাকে নিজের কৌশলী মন্তব্যের মধ্যে দিয়ে আরও বাড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলেন প্রধানমন্ত্রী বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। একাংশ বলছেন, মুকুল রায় থেকে শুরু করে অর্জুন সিংহ, শুভেন্দু অধিকারী থেকে শুরু করে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা বিজেপিতে যোগদান করার পর সকলের গলাতেই শোনা গিয়েছিল, তৃণমূল কংগ্রেস কোম্পানিতে পরিণত হয়েছে।

এক্ষেত্রে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথা তুলে ধরে পিসি-ভাইপোর সরকার চলছে বলেও দাবি করেছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের এই সমস্ত প্রাক্তন নেতারা। আর এবার বিধানসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে যখন ধুন্ধুমার পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে রাজ্যে, তখন তৃণমূলকে “কোম্পানি” বলে অভিহিত করে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাতে তুলে দেওয়ার চেষ্টা হচ্ছে বলে মন্তব্য করলেন প্রধানমন্ত্রী। যা বর্তমান সময় রাজনৈতিক ভাবে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী এই ধরনের মন্তব্য করার পর তৃণমূলের পক্ষ থেকে পাল্টা কোনো প্রতিক্রিয়া আসে কিনা, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!