এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > কংগ্রেস > মমতার কোন ‘গোপন রাজনীতি’ ফাঁস করে দিলেন অধীর? একুশের মহাযুদ্ধের আগে উত্তাল রাজ্য-রাজনীতি?

মমতার কোন ‘গোপন রাজনীতি’ ফাঁস করে দিলেন অধীর? একুশের মহাযুদ্ধের আগে উত্তাল রাজ্য-রাজনীতি?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – পঞ্চমীতে রাজ্য রাজনীতিতে চমকপ্রদ নাটকীয় পরিবর্তন দেখা গিয়েছে। গোর্খাল্যান্ডের প্রতিশ্রুতি রাখেনি বলে নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহকে ছেড়ে বিমল গুরুং হাত ধরতে চেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। এই ঘটনায় রাজ্য রাজনীতিতে শুরু হয়েছে তীব্র আলোড়ন। শাসক দলের অন্দরেও শুরু হয়েছে গুঞ্জন। কিন্তু এর মধ্যেই বিরোধীরা আবারও তৃণমূলের বিরুদ্ধে শুরু করেছেন তীব্র আক্রমণ। এদিন যেমন কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরী মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের শাসনকালের তথাকথিত গোপন কাণ্ডকারখানা ফাঁস করলেন।

প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী এদিন বিমল গুরুংকে মাওবাদী নেতা কিষেণজির সঙ্গে তুলনা করেছেন। প্রসঙ্গত, তিনবছর ফেরার থাকার পর হঠাৎই প্রকাশ্যে আসেন বিমল গুরুং এবং জানান, 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে দেখতে চান। বিমল গুরুংয়ের দাবি, গেরুয়া শিবিরের পক্ষ থেকে গত 6 বছর ধরে যে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল তা সম্পূর্ণ করা হয়নি। কিন্তু সেক্ষেত্রে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পাহাড়ের মানুষদের জন্য যা যা প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, তাই করেছেন।

আর সেই সূত্রে এনডিএ ছেড়ে এবার যে বিমল গুরুং তৃণমূলে আসতে চাইছেন তার স্পষ্ট ইঙ্গিত দিয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে এবার কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরী জানালেন, জঙ্গলমহলের মাওবাদীদের ছত্রছায়ায় থাকা পুলিশি সন্ত্রাসবিরোধী জনসাধারণের কমিটি একসময় যথেষ্ট শক্তিশালী ছিল জঙ্গলমহলে। মাঝেমাঝেই মাওবাদী নেতা কিষেণজী টিভিতে আসতেন। কিষেণজি যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পছন্দ করেন সে কথা বহুবার প্রকাশ করেছেন। 2011 সালে তৎকালীন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তিনি যে বাংলায় মুখ্যমন্ত্রী রূপে দেখতে চান সে কথাও বলেন কিষেণজি।


দেশে যে কোনো দিন ব্যান হয়ে যেতে পারে হোয়াটস্যাপ। তাই এখন থেকে আমরা শুধুমাত্র টেলিগ্রাম ও সিগন্যাল অ্যাপে। প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার নিউজ নিয়মিতভাবে পেতে যোগ দিন –

টেলিগ্রাম গ্রূপটাচ করুন এখানে

সিগন্যাল গ্রূপটাচ করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

কিন্তু মমতা ব্যানার্জ্জী মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পরেই জঙ্গলে সংঘর্ষে কিষেণজি মারা যান। সে সময় রাজ্যের মানবাধিকার সংগঠনগুলোর তরফ থেকে কিষাণজিকে ঠান্ডা মাথায় খুন করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়। অধীর চৌধুরীর অভিযোগ, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একটা সময় জঙ্গলমহলে মাওবাদীদের সঙ্গে আঁতাত করেছিলেন বাম শিবিরকে উৎখাত করবেন বলে। আর এবার উত্তরবঙ্গ দখলের জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আবারও ভয়ঙ্কর খেলা খেলছেন বলে দাবি অধীর চৌধুরীর।

অধীর চৌধুরী উল্লেখ করেছেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কিন্তু বরাবর গোর্খাল্যান্ডের বিরোধিতা করেছেন। সেই মুখ্যমন্ত্রীকে কিভাবে বিমল গুরুং পছন্দ করছেন, তা রীতিমতো ভাবাচ্ছে। অধীর চৌধুরীর অভিযোগ, তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজনীতিতে ক্ষমতা ধরে রাখতে গোপন আঁতাত করেছেন বিমল গুরুংয়ের সঙ্গে। অন্যদিকে অধীর চৌধুরী অভিযোগ তুলেছেন, একজন ইউএপিএতে অভিযুক্ত আসামি কিভাবে প্রকাশ্যে সাংবাদিক সম্মেলন করলেন এতদিন পর?

একইসঙ্গে তিনি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সমঝোতার কথা বলছেন প্রকাশ্যে যা যথেষ্টই ইঙ্গিতপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, একুশের বিধানসভার নির্বাচনী প্রস্তুতি যখন ক্রমশ তুঙ্গে, ঠিক সে সময় রাজনৈতিক মঞ্চে বিমল গুরুংয়ের অবতরণ এবার রাজনৈতিক সমীকরণের বদল আনতে পারে। বলাই বাহুল্য বিমল গুরুংয়ের প্রকাশ্যে আসায় এবং তাঁর মন্তব্য ঘিরে ইতিমধ্যেই রাজ্য রাজনীতিতে ঝড় বয়ে যাচ্ছে। তবে বিমল গুরুংয়ের মন্তব্য নিয়ে বিরোধীরা বিভিন্ন কথা বললেও এখনো পর্যন্ত মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বা তৃণমূলের পক্ষ থেকে কেউ কোনো প্রতিক্রিয়া জানাননি।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!