এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মমতাকে স্বস্তি দিয়ে যুব-দিবস থেকেই তৃণমূলের নেতৃত্বের ব্যাটন নিজের হাতে তুলে নিচ্ছেন অভিষেক?

মমতাকে স্বস্তি দিয়ে যুব-দিবস থেকেই তৃণমূলের নেতৃত্বের ব্যাটন নিজের হাতে তুলে নিচ্ছেন অভিষেক?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – যুব দিবস থেকে শুরু করে মনীষীদের সম্মান জানানো, সব কিছুতেই তৃণমূলের পক্ষ থেকে সামনের সারিতে প্রধান মুখ হিসেবে রাখা হত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। এমনকি প্রতিবাদ আন্দোলন থেকে শুরু করে মনীষীদের মূর্তি ভাঙ্গা, বিভিন্ন ইস্যুতে রাস্তায় বেরিয়ে সামনের সারিতে থেকে মিছিলে হাঁটতে দেখা যেত বাংলার প্রশাসনিক প্রধানকে। কিন্তু এবার স্বামী বিবেকানন্দের জন্ম দিবসে তৃণমূলের প্রধান মুখ কি হতে চলেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়! এখন তা নিয়েই রীতিমত জল্পনা তৈরি হয়েছে গোটা রাজ্য জুড়ে।

সূত্রের খবর, এদিন দক্ষিণ কলকাতায় যুব তৃনমূলের পক্ষ থেকে একটি পদযাত্রার আয়োজন করা হয়েছে। যার নেতৃত্ব দেওয়ার কথা রয়েছে তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি তথা সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের। জানা গেছে, দুপুর দেড়টার সময় গোলপার্ক থেকে হাজরা মোড় পর্যন্ত এই পদযাত্রা অনুষ্ঠিত হবে। স্বাভাবিকভাবেই বিবেকানন্দের জন্মদিনে এভাবে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সামনের সারিতে থেকে মিছিলে নেতৃত্ব দেওয়ার ঘটনা রীতিমত আলোড়ন সৃষ্টি করেছে রাজ্য রাজনীতিতে।

নিঃসন্দেহে বিবেকানন্দের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে যে কোনো ব্যক্তি নিজের মত করে কোনো উদ্যোগ নিতেই পারেন। কিন্তু এতদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এই সমস্ত বিশিষ্ট মনীষীদের জন্মদিনে প্রধান কর্মসূচিতে নেতৃত্ব দিতে দেখা যেত। কিন্তু এবার যেভাবে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে সেই বিবেকানন্দের জন্ম জয়ন্তীতে রাস্তায় নামতে দেখা যাচ্ছে, তাতে নতুন সমীকরণের ইঙ্গিত করছেন বিশেষজ্ঞরা।

অনেকে বলছেন, তৃণমূলের পক্ষ থেকে অনেকেই বলতে শুরু করেছেন যে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পর অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী। এক্ষেত্রে অনেকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে দলের সেকেন্ড ইন কমান্ড বলেও আড়ালে-আবডালে দাবি করেন। সেদিক থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বদলে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের দক্ষিণ কলকাতায় যুব তৃনমূলের পক্ষ থেকে বিবেকানন্দের জন্ম জয়ন্তীতে এইভাবে রাস্তায় নামা কি সেই ইঙ্গিতকেই সীলমোহর দিল, এখন তা নিয়ে নানা মহলে তৈরি হয়েছে জল্পনা।

একাংশের আবার দাবি, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় যুব সমাজের আইকন বলে দাবি করেন শাসক দলের একাংশ। সেদিক থেকে তৃণমূলের পক্ষ থেকে তাকে এই বিবেকানন্দের জন্মদিনে পদযাত্রায় সামনের সারিতে রেখে বিজেপিকে কার্যত চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিতে চাইছে রাজ্যের শাসক শিবির। স্বাভাবিকভাবেই সেই বিজেপিকে মোকাবিলা করতে গিয়ে বার অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে সামনের সারিতে নিয়ে তৃনমূল কংগ্রেস পরিস্থিতিকে আয়ত্তে আনতে চাইছে! এখন তা নিয়ে তৈরি হয়েছে প্রশ্ন।


দেশে যে কোনো দিন ব্যান হয়ে যেতে পারে হোয়াটস্যাপ। তাই এখন থেকে আমরা শুধুমাত্র টেলিগ্রাম ও সিগন্যাল অ্যাপে। প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার নিউজ নিয়মিতভাবে পেতে যোগ দিন –

টেলিগ্রাম গ্রূপটাচ করুন এখানে

সিগন্যাল গ্রূপটাচ করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে দক্ষিণ কলকাতার যুব তৃনমূলের সভাপতি বাপ্পাদিত্য দাশগুপ্ত বলেন, “এই কর্মসূচির মূল বার্তা বাংলায় বিভাজনের কোনো জায়গা নেই। সব মানুষকে সঙ্গে নিয়ে বাংলাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়াই মূল লক্ষ্য। স্বামীজীর আদর্শকে সামনে রেখে যুবসমাজকে একত্রিত করার কথা উল্লেখ করেছে তৃণমূল নেতৃত্ব।” রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা বলছেন, সমালোচক মহলের পক্ষ থেকে বলা শুরু হয়েছে যে, বিজেপি যখন বাংলার ক্ষমতা দখল করতে উদ্যত, তখন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে সামনের সারিতে রাখতে চাইছে তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্ব।

এক্ষেত্রে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের পর অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় যে দলের পরবর্তী মুখ, তা বিবেকানন্দের জন্মদিনে সেই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে এই পদযাত্রায় আরও একবার স্পষ্ট হয়ে গেল বলে দাবি করছেন একাংশ। অনেকেই বলতে শুরু করেছেন, এমনিতেই বিজেপির পক্ষ থেকে অরাজনৈতিক ব্যানারে আজ বিবেকানন্দের জন্ম জয়ন্তী পালন করা হবে। সেদিক থেকে তৃণমূল যুব কংগ্রেসের পক্ষ থেকে দক্ষিণ কলকাতায় এই কর্মসূচি করে পাল্টা গেরুয়া শিবিরকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিতে পারে শাসকদল। স্বাভাবিক ভাবেই বিধানসভা নির্বাচনের আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বদলে এভাবে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিবেকানন্দের পদযাত্রায় উপস্থিতি বাড়তি মাত্রা যোগ করল বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!