এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ফের কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ মমতা বন্দোপাধ্যায়ের, জেনে নিন

ফের কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ মমতা বন্দোপাধ্যায়ের, জেনে নিন



প্রায় বিভিন্ন ইস্যুতেই কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সরব হন তিনি। আর এবার ক্যাফে কফি ডের প্রতিষ্ঠাতা ভি জি সিদ্ধার্থের মৃত্যুতে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানাতে দেখা গেল তৃণমূল নেত্রী তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। প্রসঙ্গত, দেশের বৃহত্তম কফি চেন হিসেবে পরিচিত “ক্যাফে কফি ডে” প্রতিষ্ঠা করে নিজের ব্যবসায়িক জগতে বিপ্লব ঘটিয়েছিলেন ভি জি সিদ্ধার্থ।

জানা যায়, গত সোমবার রাতে বেঙ্গালুরু থেকে তিনি ম্যাঙ্গালুরুর দিকে রওনা দিয়েছিলেন। তবে মাঝ রাস্তা দিয়ে গাড়ি থামিয়ে সেই ভি জি সিদ্ধার্থ নেমে গেলে তারপর থেকে তার আর কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। তবে পুলিশ আধিকারিকদের আশঙ্কা ছিল যে উলাল সেতু থেকে নেত্রাবধী অবধি নদীতে হয়ত বা এই বিশিষ্ট শিল্পপতি ঝাপ দিতে পারেন। আর সেই অনুযায়ী পুলিশের পক্ষ থেকে উদ্ধারকার্যে নামা হলে একটি রহস্যময় চিঠি পাওয়া যায়।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

যেখানে সেই ভিজি সিদ্ধার্থ লিখেছিলেন, “উন্নয়নের পথে বারবার ব্যর্থ হয়েছি। যারা তারপরও ভরসা করেছিলেন, তাদেরও হতাশ করেছি।” আর ভি জি সিদ্ধার্থের এহেন চিঠি উদ্ধার হওয়ার পরই বিভিন্ন মহলে গুঞ্জন শুরু হয় যে, তাহলে কি ব্যবসায় বিপুল ক্ষতি হওয়ার কারণেই শেষমেষ নিজের জীবন শেষ করে দিলেন এই বিশিষ্ট শিল্পপতি!

এদিকে এই প্রশ্নচিহ্ন যখন বিভিন্ন মহলে ঘুরতে শুরু করেছে, ঠিক তখনই এই গোটা ঘটনা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা গেল বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। সূত্রের খবর, বুধবার সকালে নিজের ফেসবুক পোস্টে এই শিল্পপতি ভি জি সিদ্ধার্থের মৃত্যুতে দুঃখপ্রকাশ করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লেখেন, “চিঠিতে তিনি যা লিখে গিয়েছেন তা থেকে স্পষ্ট, বিভিন্ন কেন্দ্রীয় এজেন্সির চাপের মুখে তাঁকে পড়তে হয়েছিল। তাই তিনি নিশ্চিন্তে ব্যবসা করতে পারছিলেন না। তাই মানসিক চাপ সহ্য করতে পারেননি।”

আর বিশিষ্ট শিল্পপতির মৃত্যুতে বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর কেন্দ্রের বিরুদ্ধে এহেন বিষোদগার কেন্দ্র বনাম রাজ্যের সম্পর্কে আরও অনেকটাই প্রভাব ফেলতে পারে বলে মনে করছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!