এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > পিকের পরিকল্পনা, মমতার সবুজসংকেত! এবার তৃণমূলের বড়সড় দায়িত্ব পেতে চলেছেন এই এক ঝাঁক নেতারা

পিকের পরিকল্পনা, মমতার সবুজসংকেত! এবার তৃণমূলের বড়সড় দায়িত্ব পেতে চলেছেন এই এক ঝাঁক নেতারা



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – করোনা ভাইরাসের কারণে সঠিক সময় নির্বাচন করা সম্ভব হয়নি। যার পরবর্তীতে মেয়াদ উত্তীর্ণ কলকাতা পৌরসভায় প্রশাসক বসিয়ে দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি রাজ্যের যে সমস্ত পৌরসভার মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে গিয়েছিল, নির্বাচন না হওয়ায় সেখানেও গঠন করা হয়েছে প্রশাসক বোর্ড। কিন্তু আগামী দিনে বিধানসভা নির্বাচন রয়েছে।

তাই কলকাতা পৌরসভার সংগঠন নিয়ে চিন্তিত তৃণমূল কংগ্রেস এবার নয়া পদ্ধতি অবলম্বন করল। যেখানে প্রশান্ত কিশোরের পরিকল্পনামাফিক কলকাতা পৌরসভায় যে সমস্ত বিদায়ী কাউন্সিলররা রয়েছেন, তাদের ওপরেই নিজ নিজ ওয়ার্ডের দায়িত্ব দিতে চলেছে তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্ব।

জানা গেছে, ইতিমধ্যেই এই ব্যাপারে নিজের পরিকল্পনার কথা তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্বকে জানিয়ে দিয়েছেন দলের রাজনৈতিক পরামর্শদাতা প্রশান্ত কিশোর। আর যার পরেই তৃণমূলের পক্ষ থেকে কার্যত পাকাপাকি ভাবে সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলা হয়েছে যে, কলকাতায় দলের সংগঠনকে আরও শক্তিশালী করতে হলে এখন আর বসে থাকার মত সময় নেই। প্রাক্তন কাউন্সিলরদেরকেই সেই ওয়ার্ডের দায়িত্ব দিয়ে সেখানকার সংগঠনকে চাঙ্গা করতে চাইছে তৃণমূল নেতৃত্ব।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তৃণমূলের পক্ষ থেকে পৌরসভার মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার পরেই যে সমস্ত ওয়ার্ডে যারা কাউন্সিলর ছিলেন, তাদের সেই ওয়ার্ড দেখাশোনার দায়িত্ব দেওয়া হয়। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই করোনা আবহের সঙ্কটকালে সাধারণ মানুষের কাছে তারা ঠিকমত পৌঁছতে পারেননি বলে অভিযোগ উঠতে শুরু করেছিল।

তাই এমত পরিস্থিতিতে আগামীদিনে বিধানসভা নির্বাচনের আগে দলকে শক্তিশালী করতে গেলে বিভিন্ন ওয়ার্ডে সংগঠনকে চাঙ্গা করা অত্যন্ত জরুরি। আর তার ফলেই এবার ওয়ার্ড ধরে ধরে সেখানকার বিদায়ী কাউন্সিলরদের সভাপতির দায়িত্ব দিতে চাইছেন প্রশান্ত কিশোর। জানা গেছে, প্রথমে এই এই সমস্ত কাউন্সিলরদের মৌখিকভাবে দায়িত্ব দেওয়া হবে। আর তারপরেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সবুজ সঙ্কেত পাওয়ার সাথে সাথেই তাদের হাতে তুলে দেওয়া হবে দলের লিখিত নিয়োগপত্র।

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ওয়ার্ডে কো অর্ডিনেটর নিয়োগ হলেও সেভাবে দলীয় কোনো কর্মসূচি হচ্ছিল না। যার ফলে কিছুটা হলেও ব্যাকফুটে পড়ে যাচ্ছিল তৃণমূল কংগ্রেস। তাই সেখানকার বিদায়ী কাউন্সিলরদের উজ্জীবিত করতে এবং বেশি করে মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে তাদের দলীয় সভাপতির দায়িত্ব দিয়ে সংগঠনকে শক্তিশালী করার রণকৌশল নিলেন প্রশান্ত কিশোর। এখন তৃণমূলের এই উদ্যোগে কলকাতার বিভিন্ন ওয়ার্ডে শাসকদলের সংগঠন কতটা শক্তিশালী হয়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!