এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > ‘দিদির অহঙ্কার’ ভেঙে দ্রুত ‘ধমক-চমক শেষ’ করার ‘স্বপ্ন ফেরি’ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির

‘দিদির অহঙ্কার’ ভেঙে দ্রুত ‘ধমক-চমক শেষ’ করার ‘স্বপ্ন ফেরি’ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির



দেশজুড়ে চলছে লোকসভা নির্বাচন – আর সেই নির্বাচনে কেন্দ্রের শাসকদল বিজেপির অন্যতম পাখির চোখ বাংলায় দুর্দান্ত ফলাফল করা। ফলে, গেরুয়া শিবিরের ‘পোস্টার-বয়’ তথা দ্বিতীয়বারের জন্য এনডিএ জোটের প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী নরেন্দ্র মোদির বিমান আর হেলিকপ্টার সমানে চক্কর কাটছে বাংলার আকাশে। অতীতদিনে লোকসভা নির্বাচনের প্রচারে বাংলার বুকে কোনো প্রধামন্ত্রী পদপ্রার্থী এতবার আসেননি – ফলে, রাজনৈতিক মহলের বক্তব্য শুধু লোকসভা নির্বাচনে ভালো ফলাফল করায় নয়, বাংলা নিয়ে বৃহত্তর লক্ষ্য আছে বিজেপির।

আর বঙ্গ-বিজেপির অন্দরমহলে কান পাতলে সেই দাবিতেই কার্যত সিলমোহর পড়ছে। গেরুয়া শিবিরের নেতাদের দাবি, নরেন্দ্র মোদী শুধুমাত্র নির্বাচনে জেতার জন্য রাজনীতি করেন না। তিনি আদর্শ নেতার মত দেশ থেকে দুর্নীতি দূর করে ভবিষ্যতের জন্য এক মজবুত ভারত দেশবাসীকে উপহার দিতে চান। অন্যদিকে, তাদের অভিযোগ,-বাংলায় বর্তমান সরকার শুধুমাত্র রোহিঙ্গা ও বাংলাদেশী অনুপ্রবেশকারীদের জায়গা করে দিয়ে ভোটব্যাঙ্কের রাজনীতি করছে। এক বিশেষ জাতিকে তোষন করে ও রাজ্যকে বিরোধীশূন্য করতে গিয়ে পশ্চিমবঙ্গকে দ্রুত ‘পশ্চিম বাংলাদেশ’ করার দিকে নিয়ে যাচ্ছে। ফলে, ‘দেশের স্বার্থে’ বাংলাতে দ্রুত পরিবর্তন দরকার।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

আর ঘোষিতভাবে বিজেপির এই নীতি গোটা রাজ্যজুড়েই নিজেদের সমর্থকদের মধ্যে বিলি করছেন গেরুয়া নেতারা। গতকাল, প্রথমে হলদিয়ার হেলিপ্যাড ময়দানে ও পরে ঝাড়গ্রামে নির্বাচনী জনসভায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আরেকবার এই স্বপ্নই নতুন করে ফেরি করলেন দলীয় সমর্থকদের উদ্দেশ্যে। এই অঞ্চল দাপুটে তৃণমূল নেতা শুভেন্দু অধিকারীর গড় বলে পরিচিত হলেও জনসভায় জনতার উপস্থিতি যেন বাঁধ ভেঙেছিল। আর সেই জন-সুনামিকে সাক্ষী রেখে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দিদির অহঙ্কার বেড়েছে, এবার ওঁর ধমক চমক শেষ হবে! জয় শ্রীরাম বললে এখানে জেলে ভরে দেওয়া হচ্ছে! সমস্ত জায়গায় কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে, আর দিদির ধমক-চমক চলবে না, এবার চলবে জনতার ধমকি!

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তৃণমূল নেত্রীর বিরুদ্ধে সুর আরও ছড়িয়ে বলেন, দিদির দিল্লি যাওয়ার স্বপ্ন মাটিতে মিশে গিয়েছে, দিদির মাথা খারাপ হয়ে গিয়েছে। ভয়ে আছেন দিদি – আপনারা দিদিকে ১০ আসনেও পৌঁছতে দেবেন না! পশ্চিমবঙ্গের ‘স্পিডব্রেকার দিদি’ সম্প্রতি হয়ে যাওয়া ঘূর্ণিঝড়ের পরিস্থিতিতেও রাজনীতি করার চেষ্টা করেছেন! আমি মমতা দিদির সঙ্গে ফোনে কথা বলার চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু, দিদির অহঙ্কার এতটাই বেশি, উনি আমার সঙ্গে কথা বলেননি। দিদি নিজের সভায় বলেছেন, বিজেপি নাকি রামকে পোলিং এজেন্ট বানিয়ে দিয়েছে। আমি দিদিকে পরিষ্কার বলব, ভগবান রাম আমাদের শিরায় আছেন। রাম আমাদের প্রেরণা। দিদি ভগবানের কথাও সহ্য করতে পারছেন না। যাঁরাই জয় শ্রীরাম বলছেন দিদি তাঁদের গ্রেপ্তার করে জেলে পাঠাচ্ছেন। রামজির কাছে অনেকের অহঙ্কার ভেঙে চুরমার হয়ে গিয়েছে। আপনারটা কত দিন থাকবে?

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!