এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মাত্র 4 দিনের মধ্যে 30 লক্ষ মানুষের কাছে 1,444 কোটি টাকা পৌঁছে দিয়েছেন দাবি মুখ্যমন্ত্রীর

মাত্র 4 দিনের মধ্যে 30 লক্ষ মানুষের কাছে 1,444 কোটি টাকা পৌঁছে দিয়েছেন দাবি মুখ্যমন্ত্রীর


একদিকে করোনা মোকাবিলা এবং অন্যদিকে ভয়াবহ দূর্যোগ মোকাবিলায় এখন রীতিমতো অতিষ্ঠ রাজ্য প্রশাসন। কিভাবে এই পরিস্থিতি সামাল দেওয়া যাবে, তা নিয়ে চিন্তায় রয়েছেন সকলেই। তবে প্রথম থেকেই এই দুর্যোগে বিপর্যস্ত জনজীবন স্বাভাবিক রাখতে পদক্ষেপ গ্রহণ করে রাজ্য সরকার। যেখানে দুর্গতদের জন্য আর্থিক সাহায্যের ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

গত 29 মে বিপর্যস্তদের জন্য এই ঘোষণা করেছিলেন রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান। যেখানে প্রায় 1 লক্ষ মানুষের অধিকার আকাউন্টে টাকা পৌঁছানোর হিসেবে দিয়েছিলেন তিনি। আর এবার এই ঘটনার চার দিনের মাথায় ফের টুইট করে মানুষকে সহযোগিতা করার কথা জানালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।সূত্রের খবর, এদিন একটি টুইট করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “প্রাথমিকভাবে ক্ষতিপূরণের 1350 কোটি টাকা ছাড়া কথা ছিল। কিন্তু আমরা আনন্দের সঙ্গে জানাচ্ছি, ক্ষতিপূরণের জন্য এখনও পর্যন্ত সরকার 1444 কোটি টাকা ছেড়েছে।”

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

অর্থাৎ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই একথা বলে বোঝাতে চাইলেন যে, রাজ্য সরকার করোনা বিপর্যয় থেকে ভয়াবহ দূর্যোগ, সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়াতে বিন্দুমাত্র কার্পণ্য করেনি। আর তাই পরিযায়ী শ্রমিক থেকে শুরু করে দুর্যোগে বিপর্যস্ত মানুষদের পাশে দাঁড়িয়ে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে যে আর্থিক সহযোগিতার কথা জানানো হয়েছিল, তা সরাসরি মানুষের কাছে পৌঁছে দিয়ে নিজের মহানুভবতার পরিচয় দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেই মত ওয়াকিবহাল মহলের।

এদিন মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, “করোনা মোকাবিলায় যখন আমরা লড়ে যাচ্ছি, তখন আমপান আমাদের আতঙ্ক আরও বাড়িয়ে দিল। ভাঙ্গা বাড়ি, ধসে পড়া কৃষি, মৎস্য চাষ অনভিপ্রেত ক্ষতির মুখে দাঁড় করিয়ে দিল। এরপরেও ক্ষতিপূরণে বাংলার মানুষ সরকারি সহযোগিতায় মাথা তুলে দাঁড়াতে বদ্ধপরিকর। দ্রুত সেই কাজ শুরু হয়েছে। আমরা দ্রুত শুরু করেছি। পুনর্গঠনের কাজে আমরা প্রথম দফায় অবিলম্বে 6250 কোটি টাকার প্যাকেজ ঘোষণা করেছি।”

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভয়াবহ দুর্যোগ এবং করোনা মোকাবিলায় রাজ্য সরকার ঠিকমতো সাহায্য করছে না বলে বিরোধীরা দীর্ঘদিন ধরেই অভিযোগ করে আসছে। কিন্তু কথা দিয়ে যে তিনি কথা রাখেন, তা প্রমাণ করে দিলেন রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান। সব মিলিয়ে এবার কথা দেওয়ার ৪ দিনের মধ্যে কথা রাখলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!