এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ মিলতেই গ্রেপ্তার একের পর এক জমি মাফিয়া,ঘুম উড়েছে বাকিদের

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ মিলতেই গ্রেপ্তার একের পর এক জমি মাফিয়া,ঘুম উড়েছে বাকিদের



জমি মাফিয়াদের রমরমা চলছিল শিলিগুড়িতে। কিন্তু সম্প্রতি একের পর এক জমিমাফিয়া পুলিশি হেফাজতে আসছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গত সপ্তাহেই গিয়েছিলেন উওরবঙ্গ সফরে। সেখানে শিলিগুড়ির উওরকন্যার প্রশাসনিক বৈঠক করে জমি মাফিয়া,তোলাবাজি সহ একাধিক দুর্নীতির বিরুদ্ধে পুলিশকে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দিয়ে এসেছেন।

নেত্রীর নির্দেশ পেয়েই নড়ে চড়ে বসেছে শিলিগুড়ি পুলিশ প্রশাসন। শিলিগুড়ির প্রতিটি থানাতেই জমিসংক্রান্ত পুরানো এবং নতুন ভাবনা ভালো করে খতিয়ে দেখে পুলিশ। এবং যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিলো তাদেরও দফায় দফায় জেরা করা হয়। তারপরই জমি মাফিয়াদের দুর্নীতি ফাঁস হয় পুলিশের কাছে। বৃহস্পতিবার তিন জমি মাফিয়াকে গ্রেফতার করার পর শনিবার শহরের দুটি থানার পুলিশ আরো পাঁচজন জমিমাফিয়াকে গ্রেফতার করে এবং একজন আশিঘর ফাঁড়ির পুলিশের কাছে ধরা পড়ে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

জানা গেছে শনিবার ধৃত পাঁচজন জমিমাফিয়াই প্রধাননগর থানার বাসিন্দা। তাঁরা যথাক্রমে দেবীডাঙ্গার সিসাবাড়ির রমেশ বিশ্বকর্মা,দাগাপুরের রোশন চৌহান ও সুভাষ শর্মা এবং মিলন রোডের গনেশ মাহাতো। প্রধাননগর থানার দাগাপুরের বাসিন্দা সুমিত্রা রাই থানায় এফআইআর দায়ের করেছিলেন যে তাঁর পাঁচ কাঠা জমি ওই মাফিয়ারা দখল করে তা অন্যের কাছে বিক্রি করে দিয়েছে। আরো কয়েকজন স্থানীয়রাও তাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই গ্রেফতার করা হল তাদের। এমনটাই জানা যাচ্ছে পুলিশ সূত্র থেকে। অন্যদিকে,আশিগড় ফাঁড়ির পুলিশ  ইস্টার্ন বাইপাস লাগোয়া ভোলানাথ পাড়া থেকেই ওই রাতেই গ্রেফতার করেছে ধ্রুব রায় নামের এক জমি মাফিয়াকে। ধৃতের বাড়ি থেকেই তোলা হয় তাকে। ধৃতের বিরুদ্ধে একাধিক জমিসংক্রান্ত মামলার অভিযোগ রয়েছে। বেশ কয়েকদিন আগে হাতিয়াডাঙায় এক মহিলাকে তাঁর বাড়ি থেকে বের করে দিয়প জমিবাড়ি বেআইনি ভাবে দখল করায় নাম জড়িয়েছিলো ওই জমিমাফিয়ার। এর সঙ্গেই এক বিএসএফ আধিকারিককে টাকার বিনিময়ে জমি পাইয়ে দেওয়ার অভিযোগও রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। এদিন গোপন সূত্রে খবর পেয়ে পুলিশ হানা দিয়েই গ্রেফতার করল তাকে।

উল্লেখ্য,পুলিশ সূত্রে আরো জানা গেছে, মুখ্যমন্ত্রীর কড়া নির্দেশের পরই পুরানো এবং নতুন মামলা ঘেঁটে ২৭ জন জমি মাফিয়ার তালিক প্রস্তুত করেছে পুলিশ। সেই মতো জমিমাফিয়া ধরার অভিযানে নেমেছে পুলিশ। শিলিগুড়ি পুলিশ কমিশনারের অধীনস্ত সমস্ত থানার পুলিশদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে জমিসংক্রান্ত অভিযোগ, তোলাবাজির অভিযোগ এলেই সক্রিয়তা দেখাতে। এ প্রসঙ্গে,শিলিগুড়ি পুলিশ কমিশনার ভরতলাল মিনা জানান,মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ মতো জমি মাফিয়ারাজের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। প্রতিটি থানার অফিসারদের নজরদারি বাড়াতে বলা হয়েছে। যাদের বিরুদ্ধেই অভিযোগ উঠছে,তাদের সকলকেই গ্রেফতার করা হবে। এই দুর্নীতির বিরুদ্ধে পুলিশি সক্রিয়তা দেখে এলাকার মানুষ স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন। এবার এলাকায় জমি মাফিয়াদের দাপট থেকে নিষ্কৃতি মিলবে বলেই আশা করছেন স্থানীয় বাসিন্দারা,এমনটাই জানা যাচ্ছে।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
Facebook Friends
error: Content is protected !!