এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > মুখ্যমন্ত্রীর হ্যাটট্রিক – পরপর তিনবার বাংলাকে ভারতসেরা করলেন, জানুন বিস্তারিত

মুখ্যমন্ত্রীর হ্যাটট্রিক – পরপর তিনবার বাংলাকে ভারতসেরা করলেন, জানুন বিস্তারিত



অগ্নিকন্যার প্রত্যাশা মতই ফের বাংলা ভারতসভায় শ্রেষ্ট আসন লাভ করল বাংলা। তবে এটা নতুন নয়, এর আগেও দু দুবার 100 দিনের কাজে সবার প্রথমে উঠে এসেছিল বাংলা। এবার ফের নিজেদের বিজয়রথকে ধরে রাখল তাঁরা। সূত্রের 2017-18 বর্ষে 100 দিনের কাজে শ্রমদিবসের লক্ষ্যমাত্রা 23 কোটি থাকলেও বর্ষ শেষে দেখা যায় যে লক্ষ্যমাত্রাকে ছাড়িয়ে সেই শ্রমদিবসের পরিমান হয়েছে 31 কোটি 25 লক্ষ। কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রক থেকে পাঠানো এই খবরে আরও জানানো হয়েছে যে, জেলাপর্যায়ে এবার এই কাজে জাতীয় পুরস্কার পাচ্ছে পূর্ব বর্ধমান এবং কোচবিহার।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গতবছরে কিছুদিন আগেই কেন্দ্রের প্রতিনিধিদল রাজ্যের এই 100 দিনের কাজ পরিদর্শনে এলে তাঁদের কাছ থেকে  শ্রমদিবস বৃদ্ধির আবেদন করেন পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় এবং পঞ্চায়েত সচিব সৌরভ দাস। আর এরপরেই দিল্লির তরফ থেকে সেই শ্রমদিবস বাড়িয়ে 26 কোটি করা হয়। কিন্তু সেই লক্ষমাত্রাকেও ছাপিয়ে দিল এই 100 দিনের কিজে যুক্ত বাংলার 52 লক্ষ পরিবার। 26 কোটিকে ছাড়িয়ে তা পৌছোয় 31 কোটি 25 লক্ষতে। এছাড়াও পুকুর কাটা, আম, আঙুর, আপেল চাষেও শীর্ষে রয়েছে বাংলা। তাই  সব কটি মিলিয়ে রাজ্যের দখলে এবার সাতটি পুরস্কার আসতে চলেছে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

জানা গেছে, আগামী 11 সেপ্টেম্বর দিল্লির বিজ্ঞান ভবনে রাজ্যের পঞ্চায়েত দপ্তরের কর্তাদের হাতে এই পুরস্কার তুলে দেবন কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রক। এদিকে কেন্দ্রের এহেন শংসাপত্রে খুশি রাজ্যও। এ প্রসঙ্গে সোশাল সাইটে রাজ্যবাসীকে অভিনন্দনও জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপাশি নিজের ফেসবুক পোষ্টে তিনি লেখেন, “জল সংরক্ষনেও বাংলা দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। বাগডোগড়া গ্রাম পঞ্চায়েত দেশের সেরা পঞ্চায়েতের স্বীকৃতি লাভ করেছে।” এই প্রসঙ্গে নবান্নের এক শীর্ষকর্তা জানান, কেন্দ্রের এই শংসাপত্রেই প্রমানিত যে গ্রামীন উন্নয়নে কতটা সজাগ বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। রাজনৈতিক মহলের মতে, পরপর তিনবার গ্রামীন প্রকল্পে সারা দেশে প্রথম স্থান লাভে এবার আর্থিক সাহায্যে যেমন কেন্দ্রের দ্বারস্থ হতে পারবে রাজ্য ঠিক তেমনি বিজেপির সাথে কাজের প্রতিযোগীতায় নিজেদের এগিয়ে রেখে রাজনীতিতেও এগিয়ে থাকবে রাজ্যের শাসকদল তৃনমূল কংগ্রেস।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!