এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বিজেপি বিরোধিতায় বামেদের ধর্মঘট কি সমর্থন করবেন মমতা! কি বললেন তিনি? জেনে নিন

বিজেপি বিরোধিতায় বামেদের ধর্মঘট কি সমর্থন করবেন মমতা! কি বললেন তিনি? জেনে নিন



 

বর্তমানে দেশের মধ্যে সবথেকে বেশি বিজেপি বিরোধিতায় নিজের সুর চওড়া করেন তৃণমূল নেত্রী তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনকি বিজেপির বিরোধিতায় এই দেশের সমস্ত বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোকে এক ছাতার তলায় আনার চেষ্টাও চালান তিনি। আর সেদিক থেকে বর্তমানে নাগরিকত্ব সংশোধনী ইস্যু সহ দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি সহ বিভিন্ন বিষয়ে কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে আগামী 8 তারিখ বাম-কংগ্রেস ডাকা ধর্মঘটে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সমর্থন করবেন কিনা, তার দিকে নজর ছিল প্রত্যেকেরই।

কারন 2011 সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই প্রায় যতগুলো ধর্মঘট হয়েছে, সবকটি ধর্মঘট বানচাল করতে এবং রাজ্যকে সচল রাখতে পদক্ষেপ গ্রহণ করতে দেখা গেছে রাজ্য প্রশাসনকে। সেদিক থেকে বিজেপি বিরোধিতায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজের সুরকে সপ্তমে নিয়ে গেলেও রাজ্যকে সচল রাখার জন্য তিনি এই ধর্মঘট সমর্থন করবে না বলে মনে করেছিল একাংশ। আর শেষ পর্যন্ত একাংশের সেই জল্পনাতেই সীলমোহর পড়তে চলেছে। সূত্রের খবর, আগামী 8 জানুয়ারি ধর্মঘট বাংলায় কোনমতেই সফল করতে দেওয়া হবে না বলে জানিয়ে দিলেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জানা গেছে, সোমবার কাকদ্বীপের হালদারচক ময়দানে দক্ষিণ 24 পরগনা জেলা প্রশাসনকে নিয়ে প্রশাসনিক বৈঠক করেন বাংলার প্রশাসনিক প্রধান। আর সেখানেই এই ধর্মঘটের বিরোধিতা করতে শোনা যায় তাঁকে।

তিনি বলেন, “বন্ধের বন্ধ্যা রাজনীতি আমি সমর্থন করি না। তবে যে ইস্যুতে আন্দোলন চলছে, আমার তার প্রতি সায় আছে। এই ইস্যুতে আমাদের দল গণতান্ত্রিক কায়দায় আন্দোলন করছে। সেই ভাবে করা যেতে পারত। কিন্তু ধর্মঘটের মধ্যে দিয়ে প্রতিবাদ জানানোর পদ্ধতি সঠিক নয়। কারণ তাতে দেশের কোটি কোটি টাকা নষ্ট হয়। সেই কারণে আট বছর এই রাজ্যে ক্ষমতায় থেকে আমাদের দল কোনো সময় বনধ থাকেনি।”

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তবে শুধু বন্ধের বিরোধিতা করাই নয়, এদিন বাংলা যাতে সচল থাকে, তার জন্য পুলিশ প্রশাসনকেও নির্দেশ দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জানা গেছেহ ইতিমধ্যেই যে সমস্ত কর্মচারীরা মঙ্গলবার ছুটি নিয়েছিলেন, তাদের সেই ছুটি বাতিল করে হাজিরা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। পাশাপাশি বন্ধের দিন যদি কেউ অনুপস্থিত থাকেন, সেই সরকারি কর্মীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও জানানো হয়েছে সরকারের তরফে। ফলে এক কথায় 2011 সালে ক্ষমতায় আসা তৃণমূল সরকার এতদিন যেভাবে বন্ধের বিরোধিতা করে এসেছে, এবারেও সেই বন্ধের একই বিরোধিতা করছে বলে মত ওয়াকিবহাল মহলের।

একাংশ বলছেন, বিজেপি বিরোধিতায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরব হলেও, বাম এবং কংগ্রেসের বিজেপি বিরোধিতায় বনধে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সমর্থন দেন কি না, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিয়েছিল। যেখানে সেই ধর্মঘট সমর্থন না করলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিজেপির দোসর হিসেবে ধরে নেওয়া হবে বলে জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু বাম, কংগ্রেস যাই বলুক না কেন, রাজ্যকে সচল রাখার স্বার্থে ইস্যুকে সমর্থন করলেও, তিনি যে ধর্মঘটে সমর্থন করেন না তা স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই ধর্মঘটের বিরোধিতা করে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করলেও, ধর্মঘটের দিন রাজ্য কতটা সচল থাকে! সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!