এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > ‘কেয়ারলেস’ মুখ্যমন্ত্রী,তাই মেডিকেল কলেজে পড়ুয়াদের অনশন নিয়ে কেন্দ্রকে চিঠি মুকুলের

‘কেয়ারলেস’ মুখ্যমন্ত্রী,তাই মেডিকেল কলেজে পড়ুয়াদের অনশন নিয়ে কেন্দ্রকে চিঠি মুকুলের



নিজেদের দাবি-দাওয়া পূর্ণ করতে অনশনে নেমেছেন মেডিকেল কলেজে ছাত্ররা।অনেক অনুরোধ সত্ত্বেও ছাত্ররা অনশন ভাঙতে রাজি হননি এবং এই আন্দোলনের জল এতো দূর গড়িয়েছে মেডিকেল কলেজে ছাত্রদের অনশন ভাঙাতে তাদেরকে বারবার অনুরোধ করতে সমাজের বিশিষ্টজনরা ছুটে যাচ্ছেন এবং দফায় দফায় নেতারাও গেছেন। এত মানুষকে পাশে পেয়ে কার্যত গণ আন্দোলনের রূপ নিয়েছে কলকাতা মেডিকেল কলেজের ছাত্রদের অনশন-আন্দোলন।

ছাত্রদের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন শিল্পী কবির সুমনও এবং মুখ্যমন্ত্রীকে অনুরোধ করেছেন যেন দ্রুত এ সমস্যা সমাধান করার জন্য তিনি এগিয়ে আসেন। পিছিয়ে নেই মুকুল রায়ও। অনশনরত পড়ুয়াদের নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী জেপি নাড্ডাকে এবং MCI-র এর সভাপতি জয়শ্রী মেহেতা কে চিঠি পাঠিয়েছেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। মুকুল রায় লিখেছেন, “অনশনরত পড়ুয়াদের দাবি মানবিকভাবেই পূরণ করা যেত। সেটা না করে পুলিশ এবং কয়েকজন দুষ্কৃতীদের দিয়ে দু’জন ছাত্রকে মারধর করা হয়েছে। তাঁরা বর্তমানে চিকিৎসাধীন।”

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এবছর তিনি মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে বলেছেন, “মুখ্যমন্ত্রী কেয়ারলেস তার কোন সহানুভূতি নেই।” তিনি জানান 13 দিন হয়ে গেছে মেডিকেল কলেজের ছাত্ররা অনশন করছে ওরাও তো আমাদের মতনই কারুর না কারুর বাড়ির ছেলে। কিন্তু উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ যেভাবে তাদের সঙ্গে অমানবিক আচরণ করছে সেটা মেনে নেওয়া যায়না। ওরা অন্যায় কি চাইছে সাধারণত দাবি করছে। আমরা আমাদের বাড়িতে ছোটরা যদি না খেয়ে থাকে তাহলে আমরা বড়রা ছেলেমেয়েদের অনুরোধ করি কেন তোরা খাচ্ছিস না? কি চাইছিস? তার জায়গায় ছাত্ররা অনশন করছে আর পুলিশ এসে তাদের মারধর করছে। এগুলো তো ১৯৬৮-৬৯-৭০ সালে হতো। সেই দিনগুলির কথা আমাদের মনে করাচ্ছে।

প্রসঙ্গত রাজ্যের স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিকর্তা দেবাশিস ভট্টাচার্য গতকাল সন্ধ্যায় একটি বিবৃতি জারি করেন। সেখানে অনশনকে বারবার প্রতীকী বলে উল্লেখ করেন। এরপরেই আরো ক্ষেপে যান অনশনকারীরা। যদিও এই বিবৃতিতে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিকর্তা জানিয়েছেন হোস্টেলের ঘরে অবস্থার উন্নতি ও সংস্কার হাসপাতালে জনগণকে পরিষেবা দেওয়া এবং স্বাস্থ্যপরিসেবা কোন রকম ব্যাঘাত যাতে না ঘটে এইসব ব্যাপার তারা গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করবেন। ছাত্ররা যেন অনশন প্রত্যাহার করে পড়াশোনায় ফিরে আসেন। কিন্তু মুখের কথাতেই আন্দোলনকারীরা ভুলছেন না বলে জানিয়েছেন তারা। তাদের দাবি বিবৃতিতে কোনো সুস্পষ্ট আশ্বাস দেওয়া হয়নি।

আপনার মতামত জানান -

Top
Facebook Friends
error: Content is protected !!