এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > তৃণমূলের ছাত্র-যুব কর্মশালায় অত্যন্ত করুণ দশা, ক্ষুব্ধ মমতা, ফেল পড়লো অভিষেকও

তৃণমূলের ছাত্র-যুব কর্মশালায় অত্যন্ত করুণ দশা, ক্ষুব্ধ মমতা, ফেল পড়লো অভিষেকও



দলের ছাত্র-যুবদের চাঙ্গা করতে ঘটা করে 27 শে জানুয়ারি নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে ছাত্র-যুব কর্মশালার কথা ঘোষণা করেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। অনেকেই আশা করেছিলেন, এই কর্মশালা থেকে হয়ত বা নতুন প্রজন্মের নেতা তুলে আনবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনকি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নিজেও যে সেই চেষ্টা করেননি, তা বলা যাবে না। তবে তৃণমূলের অতীতের ছাত্র-যুব কর্মশালা থেকে এবারের ছাত্র-যুব কর্মশালা যেন কিছুটা হলেও ভিন্ন রকমের।

অতীতের কর্মশালাগুলিতে ভিড় উপচে পড়লেও, এবার সেরকম ভিড় চোখে পড়ল না। সমাবেশ সন্ধ্যে ছটা পর্যন্ত চলার কথা থাকলেও, বিকেল তিনটের পরই কার্যত নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়াম ফাঁকা হতে শুরু করে। জানা যায়, এদিন যখন এই নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে বক্তব্য রাখতে পৌঁছন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, তখন স্টেডিয়ামের অত্যন্ত করুণ দশা ছিল। সমাবেশ লোকে-লোকারণ্য হবে বলে সকলে মনে করলেও, তা হয়নি।

উল্টে নেত্রী যখন মঞ্চে আসেন, তখন দেখা যায়, স্টেডিয়ামের অনেক ফ্লোরই ভরেনি। যার ফলে কিছুটা হতাশ হয়ে, মঞ্চের একদম পেছনের দিকে গিয়ে বসেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে তৃণমূল নেত্রী যখন বক্তব্য রাখতে ওঠেন, তখন অবশ্য ভরে ওঠে গোটা গ্যালারি। কিন্তু এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অত্যন্ত কাজের চাপ ছিল।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

কারণ এদিনই বিধানসভায় পাস হবে, নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন বিরোধী প্রস্তাব। এদিন মঞ্চে বক্তব্য রেখে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যাওয়ার আগে বারেবারেই বলে গিয়েছিলেন, “আমি বেরোনোর পর আপনারা এই কর্মশালা চালিয়ে যাবেন। এখানে আমাদের ফেসবুক টিম আছে। আমি পরে সব দেখে নেব, কে কি বক্তৃতা রাখছেন।” কিন্তু তৃণমূল নেত্রী ছাত্র-যুবদের এই কর্মশালা চালিয়ে যাওয়ার কথা বললেও, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মঞ্চ ছাড়ার পরই পরিস্থিতি অন্য আকার নিতে শুরু করে। মুহুর্তের মধ্যে ফাঁকা হয়ে যায় গোটা গ্যালারি।

পরিস্থিতি সামলাতে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে বক্তব্য রাখবার জন্য আহ্বান জানালেও, ফাঁকা মাঠে কেউ বক্তব্য রাখতে রাজি হয়নি। যার পরে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় মঞ্চ ছাড়ার সাথে সাথেই, গোটা গ্যালারি আরও ফাঁকা হতে শুরু করে। পরবর্তীতে সভা পরিচালনা করেন তৃণমূল ছাত্র পরিষদের রাজ্য সভাপতি তৃণাঙ্কুর ভট্টাচার্য। আর তৃণমূলের ছাত্র-যুব কর্মশালা এমন হওয়ায় এখন নানা মহলে উঠতে শুরু করেছে নানা প্রশ্ন।

অনেকে বলছেন, তৃণমূল ছাত্র-যুব কর্মশালা করলেও, এখানে প্রকৃত ছাত্র-যুব ডাক পাননি। অনেক ক্ষেত্রেই জেলা থেকে তারা বৈষম্যের শিকার হয়েছেন। আর তার ফলেই এহেন দুর্দশা। রাজনৈতিক কর্মী অপেক্ষা অরাজনৈতিক কর্মী কর্মশালায় আসায়, নেত্রীর বক্তব্য শেষ হওয়ার সাথে সাথেই পলায়ন করেছেন। যার ফলে সেই কর্মশালার পরিকল্পনা সম্পূর্ণরূপে ভেস্তে গিয়েছে বলে দাবি একাংশের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!