এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বর্ধমান > রাস্তার উন্নয়ন ঘিরে তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে রণক্ষেত্র মঙ্গলকোট! দুই শিবিরে তীব্র উত্তেজনা!

রাস্তার উন্নয়ন ঘিরে তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে রণক্ষেত্র মঙ্গলকোট! দুই শিবিরে তীব্র উত্তেজনা!



লকডাউনের কারণে রাজনৈতিক কর্মসূচি সম্পূর্ণরূপে বন্ধ ছিল প্রতিটা রাজনৈতিক দলের। যার কারণে সেভাবে কোনরূপ রাজনৈতিক সংঘর্ষের ঘটনাও খবরের শিরোনামে আসতে দেখা যায়নি। কিন্তু এবার পঞ্চম দফার লকডাউন কিছুটা শিথিল হতেই এবং রাজনৈতিক দলগুলো পথে নামার পরিকল্পনা করতেই ফের সংঘর্ষের ঘটনা সামনে চলে এল। এবার রাস্তা তৈরি নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ল তৃণমূল এবং বিজেপি।

জানা গেছে, বর্ধমানের মঙ্গলকোটের চানক অঞ্চলের রামনগর গ্রামের নাপিত পাড়ায় সম্প্রতি রাস্তা নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছিল। এদিন ওই রাস্তাটি মাপার সময় সেই রামনগর গ্রামে বিজেপি এবং তৃণমূল কর্মীদের মধ্যে চরম বিবাদ তৈরি হয়। পরিস্থিতি এমন আকার নেয় যে, একে অপরের বিরুদ্ধে হাতাহাতিতেও জড়িয়ে পড়ে দুই পক্ষ। ইতিমধ্যেই এই ঘটনায় চারজন গুরুতর ভাবে আহত হয়েছেন। যার মধ্যে এক বিজেপি কর্মীর অবস্থার অত্যন্ত অবনতি হওয়ায় তাকে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। কিন্তু কেন এই বিবাদ?

এদিন এই প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা কার্তিক বাগ বলেন, “আমরা অমিত শাহের সভায় যোগ দিয়েছিলাম বলে এদিন সকালে আমাদের সক্রিয় কর্মী প্রদীপ ঘোষকে রাস্তায় আটকে 7-8 জন তৃণমূল কর্মী ব্যাপক মারধর করে। আমি কয়েকজনের সঙ্গে সেখানে গেলে আমাদেরও মারধর করে তৃণমূলের লোকেরা।” যদিও বা তৃণমূলের পক্ষ থেকে এই অভিযোগকে সম্পূর্ণরূপে অস্বীকার করা হয়েছে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে চানক অঞ্চল তৃণমূলের সভাপতি রমজান শেখ বলেন, “অভিযোগ একেবারেই ভিত্তিহীন। রামনগর গ্রামের রাস্তার কাজ হচ্ছে। বিজেপি উন্নয়নের কাজে বাধা দিচ্ছিল। গ্রামবাসীরা প্রতিবাদ করেন। এরপরই বিজেপি কর্মীরা আমাদের কর্মীদের ওপর হামলা করে।”

এদিকে ইতিমধ্যে এলাকায় পৌঁছেছে পুলিশ। ফের যাতে অশান্তি না হয়, তার জন্য এলাকায় পুলিশ পিকেট রয়েছে। তবে যেভাবে লকডাউন শিথিল হওয়ার সাথে সাথেই তৃণমূল-বিজেপি দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়ল, তাতে সামনে বিধানসভা নির্বাচনের আগে এই দ্বন্দ্ব এবং সংঘর্ষের ঘটনা আরও বাড়বে বলেই আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!