এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > মধ্যপ্রদেশের রাজনীতি ঘিরে নাটক এখনও অব্যাহত, টানটান উত্তেজনায় রাজনৈতিক মহল

মধ্যপ্রদেশের রাজনীতি ঘিরে নাটক এখনও অব্যাহত, টানটান উত্তেজনায় রাজনৈতিক মহল



সম্প্রতি হঠাৎ করে সংকটের মুখোমুখি হয় কমলনাথের কংগ্রেস সরকার মধ্যপ্রদেশে। সূত্রের খবর, সরকার ফেলার প্রায় সমস্ত রকম বন্দোবস্ত করে ফেলেছিল বিজেপি শিবির, কিন্তু শেষরক্ষা করতে পারেনি তাঁরা। পুরো বিষয়টিতে কংগ্রেস অভিযোগ করে বিজেপির দিকে তাঁদের 10 বিধায়ককে অপহরণ করা হয়েছে বলে। যদিও বিজেপি শিবির এই অভিযোগ সম্পূর্ণ নস্যাৎ করে দেয়। আপাতত কংগ্রেস শিবির থেকে ওই দশ বিধায়ককে উদ্ধার করার পর শান্তির হাওয়া কংগ্রেস শিবিরে।

কিন্তু আবারও নতুন করে বিতর্ক জেগে উঠেছে মধ্যপ্রদেশের রাজনৈতিক শিবিরে। কারণ রাজনৈতিক মহলের দাবি, এবার বোধ হয় উল্টো ছবি দেখবে মধ্যপ্রদেশের রাজনৈতিক মহল। কারণ, ইতিমধ্যে মুখ্যমন্ত্রী কমলনাথ এর সঙ্গে বিজেপির এক বিধায়ক দেখা করেছেন বলে জানা গেছে। দেখা-সাক্ষাতের মধ্য দিয়েই যে রাজনৈতিক কার্যকলাপ স্থিরতা পাবে সে বিষয়ে নিশ্চিত রাজনৈতিক মহলের একাংশ। রাজনৈতিক মহলের আশঙ্কা, এবার বোধহয় বিজেপির অপারেশন লোটাস মুখ থুবড়ে পড়তে চলেছে।

এদিন বিজেপি বিধায়ক নারায়ণ ত্রিপাঠির কংগ্রেস শিবিরে সাক্ষাৎ করতে আসায় রীতিমত চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে মধ্যপ্রদেশের রাজনৈতিক মহলে। কানাঘুষা অন্য খবরও শোনা যাচ্ছে অবশ্য। সূত্রের খবর, ইতিমধ্যে কমল নাথের বিধানসভা থেকেও বিক্ষুব্ধ 18 জন সাংসদের খোঁজ মিলেছে। যাদের মধ্যে ইতিমধ্যে একজন বিধায়ক কংগ্রেস ত্যাগ করেছেন বলে জোর খবর। তবে সমস্ত প্রসঙ্গকে পিছনে ফেলে সামনে উঠে এসেছে বিজেপি বিধায়ক নারায়ন ত্রিপাঠির সঙ্গে মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী কমলনাথের সাক্ষাৎ।

রাজনৈতিক মহল থেকে গুঞ্জন উঠেছে, তবে কি one-to-one হিসেবেই মধ্যপ্রদেশের রাজনীতি দিক নির্ণয় করবে? সূত্রের খবর, এদিন বিজেপি বিধায়ক নারায়ন ত্রিপাঠি শুধু মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গেই নয়, তিনি স্পীকারের সঙ্গেও দেখা করেছেন। তবে তিনি জানিয়েছেন, এখনই তিনি বিজেপি শিবির ছাড়ছেন না। মুখ্যমন্ত্রী কমলনাথ এর সঙ্গে দেখা করার পর বিজেপি বিধায়ক নারায়ন ত্রিপাঠি দলের প্রতি তীব্র ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন। তবে তিনি স্পষ্ট ভাষায় জানিয়েছেন, বিজেপি বিধায়কের পদ থেকে এই মুহূর্তে তিনি পদত্যাগ না করলেও কোনরকম ধর্মীয় মেরুকরণ এর পথে হাঁটবেননা।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তবে এদিন তিনি কংগ্রেসে যোগ দেওয়া নিয়ে সমস্ত গুজব উড়িয়ে দিয়ে বলেছেন, শুধুমাত্র নিজের এলাকার উন্নয়ন সংক্রান্ত আলোচনার জন্যই তিনি মুখ্যমন্ত্রী কমলনাথের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছিলেন। অন্যদিকে কংগ্রেস শিবিরে হঠাৎ ভাঙ্গন। জানা গেছে, মধ্যপ্রদেশের কংগ্রেস শিবির থেকে ইতিমধ্যে এক কংগ্রেস বিধায়ক পদত্যাগ করে বিজেপি শিবিরে যোগ দেওয়ার পথে। গত বৃহস্পতিবার রাতে কংগ্রেস বিধায়ক হরদীপ সিং দাং স্পিকারের কাছে নিজের পদত্যাগপত্র পাঠিয়েছেন। সূত্রের খবর, এই পদত্যাগপত্রে বিধায়ক হরদীপ সিং উল্লেখ করেছেন, মুখ্যমন্ত্রী কমলনাথ এর প্রতি তীব্র ক্ষোভ।

তিনি জানিয়েছেন, মধ্যপ্রদেশের সরকার গঠনের পর থেকেই তিনি তাঁর নিজের দলে ভীষণভাবে কোণঠাসা হয়ে পড়েছেন। অন্যদিকে এদিন পদত্যাগকারী বিধায়ক হরদীপ সিং দাং উল্লেখযোগ্যভাবে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এবং জাতীয় নাগরিকপঞ্জির প্রতি নিজের সমর্থন দেখিয়েছেন। যা থেকে রাজনৈতিক মহলের স্পষ্ট এবং স্থির বিশ্বাস, তিনি আগামী দিনে যোগ দিতে চলেছেন বিজেপি শিবিরে। অতএব বলা যাচ্ছে, মধ্যপ্রদেশের রাজনীতিতে ইতিমধ্যে চূড়ান্ত নাটকীয়তা দেখা যাচ্ছে।

অন্যদিকে, বিজেপির একজন বিধায়কের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করা এবং কংগ্রেসের বিধায়ক এর দল ছেড়ে বিজেপি শিবিরের দিকে পা বাড়ানোর বিষয়টিকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের দাবি, বিধানসভায় সংখ্যাতত্ত্বের জোরে রাজনীতির কাঁটা যে কোন দিকে ঘুরে যেতে পারে। তবে এই মুহূর্তে মধ্যপ্রদেশ ঘিরে যে রাজনীতির টানটান উত্তেজনা বজায় রয়েছে, সে কথা অনস্বীকার্য। মধ্যপ্রদেশের রাজনৈতিক আকাশে এই মুহূর্তে দোলাচলের মুহূর্ত উপস্থিত তাই প্রতিটি বিষয়ের ওপর এখন নজর রেখে বসে আছে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকগণ।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!