এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক কর্মকর্তা বাছাই নিয়ে প্রভাব বিস্তারের অভিযোগ তৃণমূল শিক্ষা সেল -এর বিরুদ্ধে

মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক কর্মকর্তা বাছাই নিয়ে প্রভাব বিস্তারের অভিযোগ তৃণমূল শিক্ষা সেল -এর বিরুদ্ধে



ফের শিক্ষায় শাসকদলের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ ওঠায় চরম চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হল শিক্ষামহলে। সূত্রের খবর, মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার কনভেনর, জয়েন্ট কনভেনর, অ্যাডিশনাল সুপারভাইজার, বোর্ড এবং কাউন্সিল নমিনি বাছাইয়ে প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা করছে তৃণমূল শিক্ষা সেলের নেতা জয়দেব গিরি। অভিযোগ, শাসকদলের শিক্ষা সেলের পাচ জনের নম্বর দিয়ে সোশাল নেটওয়ার্কিং সাইটে একটি বার্তা দিয়ে এই জয়দেব গিরি লিখছেন যে, “কোনও শিক্ষক এই দায়িত্ব পালনে ইচ্ছুক হলে তাঁরা এঁদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন।” আর এই ঘটনা নিয়েই তুমুল বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে শিক্ষামহলে। শাসকদলের শিক্ষা সেলের নেতা হলেই কি প্রকাশ্যে এইভাবে কেউ বার্তা দিতে পারেন?

এই প্রশ্নের উত্তরে সেই জয়দেব গিরি বলেন, “শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নির্দেশেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।টেস্টের প্রশ্নপত্র বিক্রির সিন্ডিকেট যেভাবে বন্ধ করা হয়েছে, সেরকমভাবেই একটি সংগঠনের একচ্ছত্র আধিপত্য রুখতে এই পদক্ষেপ করা হচ্ছে।” পাশাপাশি এই উদ্যোগ শুধু তাঁরাই নয়, অন্যান্য সংগঠনও নিতে পারে বলে এদিন জানান তিনি। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত বছর মাধ্যমিকে জলপাইগুড়ির ময়নাগুড়িতে একটি স্কুলে প্রশ্নপত্র আগে খুলে ফেলা নিয়ে চরম বিতর্ক তৈরি হয়। আর এরপর থেকেই পরীক্ষা ব্যাবস্থায় সরকারি আধিকারিকদের আরও বেশি করে ব্যাবহারের পক্ষে সওয়াল করেন শিক্ষামন্ত্রী।কিন্তু এর ফলে তৃনমূলের শিক্ষা সেলের নেতারা প্রকাশ্যে তাঁদের সংগঠনের কজন নেতার নাম্বার দিয়ে তাঁদের সাথে সকলকে যোগাযোগ করতে বলবেন এটা মানতেপারছেন না কেউই।

এদিন এই প্রসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ শিক্ষক ও শিক্ষা বিষয়ক কর্মচারী সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সুব্রত চক্রবর্তী বলেন, ” শিক্ষামন্ত্রীর কথামত কনভেনর পদাধিকার বলে ডিআই হোক এটাই আমরা চাই পরীক্ষায় কোনও গণ্ডগোল হলে, তার জন্য সরকারের কাছে দায়বদ্ধ থাকেন মেইন ভেন্যুর সেন্টার সেক্রেটারি, ভেন্যু সুপারভাইজার অর্থাৎ সেই স্কুলের প্রধান শিক্ষক বা তাঁর মনোনীত প্রতিনিধি এবং প্রতিটি সেন্টারে সরকারের পাঠানো অফিসার ইনচার্জ। এর উপরে কোনও পর্ষদ বা সংসদ মনোনীত শিক্ষক প্রতিনিধি আমরা চাইছি না।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

আর যদি তা হয় তাহলে সে পদে সরকারিক আধিকারিককে বসানোর দাবি জানিয়েছেন তিনি। এদিকে তৃনমূলের শিক্ষা সেলের এহেন প্রভাব বিস্তারের ঘটনায় মুখ খুলেছে বিটিইও। এদিন এই প্রসঙ্গে সেই সংগঠনের সহ-সাধারণ সম্পাদক স্বপন মণ্ডল বলেন, “আগে সমস্ত শিক্ষক সংগঠনের প্রতিনিধিদের পরীক্ষা ব্যবস্থার সঙ্গে যুক্ত করার একটি রীতি ছিল। দীর্ঘদিন হল আর তা হয় না। সেটা যদি এবার শুরু হয়, তাহলে তা ভালো বলেই আমাদের মনে হয়।” সব মিলিয়ে এবার মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিকে কর্মকর্তা বছাই নিয়ে প্রভাব বিস্তারের অভিযোগে চরম বিপাকে তৃনমূলের শিক্ষা সেল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!