এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মাদক কান্ডে এবার হাজিরার তলব হেভিওয়েট বিজেপি নেতাকে লালবাজার গোয়েন্দা দপ্তর থেকে, প্রবল অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির

মাদক কান্ডে এবার হাজিরার তলব হেভিওয়েট বিজেপি নেতাকে লালবাজার গোয়েন্দা দপ্তর থেকে, প্রবল অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – রাজ্যজুড়ে ইতিমধ্যেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে রাজ্য বিজেপির যুবনেত্রী পামেলা গোস্বামীর মাদকসহ হাতেনাতে ধরা পড়ায়। এই নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে ব্যাপক জল্পনা। তবে জল্পনা চরমে ওঠে যখন পামেলা গোস্বামী ভরা আদালত চত্বরে জোর গলায় মাদক কাণ্ডে অভিযুক্ত হিসাবে কৈলাস বিজয়বর্গীয় ঘনিষ্ঠ নেতা রাকেশ সিংয়ের নাম করেন। যথারীতি এই ঘটনা বড়োসড়ো অস্বস্তির মুখে দাঁড় করায় গেরুয়া শিবিরকে বলে মনে করা হচ্ছে। যদিও রাকেশ সিং পাল্টা পামেলার অভিযোগ খন্ডাতে শুরু করেন। আর এই টানাপোড়েনের মধ্যেই এবার রাকেশ সিংকে লালবাজারে তলব করা হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। স্বাভাবিকভাবে তোলপাড় শুরু হয়েছে রাজ্য রাজনীতিতে।

সূত্রের খবর, সোমবার রাতে কোকেনসহ গ্রেপ্তার হওয়া বিজেপির যুব নেত্রী পামেলা গোস্বামীর তদন্তভার হাতে নিয়েছে লালবাজার গোয়েন্দা বিভাগ। আর সেই তদন্ত সূত্র ধরেই লালবাজার থেকে ডাক পাঠানো হয়েছে হেভিওয়েট বিজেপি নেতা রাকেশ সিংকে। জানা গেছে, মঙ্গলবার বিকেল চারটের মধ্যে তাঁকে কলকাতা পুলিশের সদর দপ্তরের হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ পাঠানো হয়েছে। অন্যদিকে এখনো পর্যন্ত রাকেশ সিং গোয়েন্দা দপ্তরের এই নির্দেশের পরিপ্রেক্ষিতে কোনো প্রতিক্রিয়া জানাননি। তবে আগেই জানিয়েছিলেন তিনি, তদন্তে সবরকম সাহায্য করবেন। প্রসঙ্গত, গত 19 তারিখে নিউ আলিপুর থেকে 100 গ্রাম কোকেনসহ বিজেপি যুব নেত্রী পামেলা গোস্বামী পুলিশের হাতে ধরা পড়েন।

আগে থেকেই অবশ্য পুলিশের কাছে পামেলার মাদক চক্রে জড়িত থাকার খবর ছিল। দীর্ঘদিন নজরদারি চালানোর পর শুক্রবার পামেলাকে পুলিশ গ্রেফতার করে। পামেলার সাথে গ্রেপ্তার হন তার আরো এক সঙ্গী বিজেপি যুব নেতা প্রদীপ দে। এরপরেই আসে চমক। পরের দিন ওর্থাৎ শনিবার পামেলাকে যখন আলিপুর আদালতে নিয়ে যাওয়া হয়, ঠিক সে সময় সংবাদ মাধ্যমের সামনে গলা চড়িয়ে পামেলা বিস্ফোরক অভিযোগ করেন বিজেপি নেতা রাকেশ সিংয়ের বিরুদ্ধে।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তিনি দাবি করেন, কৈলাস বিজয়বর্গীয় ঘনিষ্ঠ রাকেশ সিংয়ের চক্রান্তে তাকে ফাঁসানো হয়েছে। তাই অবিলম্বে রাকেশ সিংয়ের গ্রেফতারের দাবি করেন তিনি। অন্যদিকে রাকেশ সিংও পামেলার এই অভিযোগ খন্ডাতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। রাকেশ দাবি করেন, পুলিশের চাপেই অভিযোগ করেছেন পায়েল তাঁর প্রতি। পাশাপাশি রাকেশ সিং জানান, দীর্ঘ এক বছরের বেশি সময় ধরে তাঁর সঙ্গে পায়েল গোস্বামীর কোন যোগাযোগ নেই। একইসাথে রাকেশ সিং পুলিশকেও হুঁশিয়ারি দেন, তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হলে তিনি পুলিশের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করবেন।

আর তারপরেই উল্লেখযোগ্য ভাবে এই মামলার তদন্তভার হাতে নেয় লালবাজার গোয়েন্দা বিভাগ। খুব স্বাভাবিক ভাবেই ক্রমশ মাদক কান্ডে উত্তাপ বাড়ছে রাজ্যে বলে দাবী ওয়াকিবহাল মহলের। পাশাপাশি ক্রমাগত অস্বস্তি বেড়ে চলেছে গেরুয়া শিবিরের। অন্যদিকে মাদক কাণ্ড নিয়ে ইতিমধ্যেই বিজেপি বিরোধী শিবিরগুলি ব্যাপক আক্রমণ শুরু করেছে। আপাতত দেখার, লালবাজারে গোয়েন্দাদের সামনে বসে রাকেশ সিং কি স্বীকারোক্তি দেন! কি নতুন রহস্য উন্মোচন হয় রাজনীতির আঙিনায়, সেদিকেই নজর থাকবে সবার।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!