এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > লাভ জেহাদে ব্যর্থ হওয়ায় প্রেমিকাকে কলেজের সামনে গুলি করে হত্যা সংখ্যালঘু যুবকের, উত্তাল দেশ

লাভ জেহাদে ব্যর্থ হওয়ায় প্রেমিকাকে কলেজের সামনে গুলি করে হত্যা সংখ্যালঘু যুবকের, উত্তাল দেশ



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – এবার দিনে-দুপুরে প্রকাশ্য দিবালোকে এক তরুণী হত্যা হয়ে গেল হরিয়ানায়। জানা যাচ্ছে, পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে গুলি চালিয়েছে দুষ্কৃতীরা। সাথে সাথেই ওই তরুণী প্রাণ হারিয়ে লুটিয়ে পড়ে রক্তাক্ত অবস্থায়। গোটা ঘটনাই ক্যামেরার মাধ্যমে সবার সামনে এসেছে। জানা যাচ্ছে, লাভ জিহাদের কারণে প্রকাশ্যে অপহরণের চেষ্টা ব্যর্থ হতে এই মর্মান্তিক পরিণতি হিসাবে ঘটেছে তরুণী হত্যা ফরিদাবাদে। শোনা যাচ্ছে, প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ার কারণে ওই তরুণীকে তাঁর কলেজের সামনে প্রেমিক এবং তাঁর বন্ধু অপহরণের চেষ্টা করে।

সেই চেষ্টা ব্যর্থ হতেই একেবারে সামনে থেকেই গুলি করে ওই তরুণীকে অপহরণকারীরা। ইতিমধ্যেই পুলিশের হাতে দুই অভিযুক্ত ধরা পড়েছে বলে জানা গিয়েছে। গুলিবিদ্ধ তরুনীর নাম নিকিতা তোমার। সূত্রের খবর, এই খুনের পেছনে লাভ জিহাদকে অন্যতম কারণ হিসেবে জানাচ্ছে মৃতার পরিবার। নিকিতার পরিবারের অভিযোগ, সংখ্যালঘু পরিবারের ছেলে তৌসিফ দীর্ঘদিন ধরেই নিকিতাকে বিরক্ত করতো। তাঁকে প্রেম নিবেদন করতো। 2018 সালে তৌসিফের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করে নিকিতার পরিবার।

পরে অবশ্য তাঁরা ওই অভিযোগ তুলে নেয়। এদিন জানা গিয়েছে, ফরিদাবাদ জেলার বাল্লাগড়ের কাছে যখন নিকিতা পরীক্ষা দিয়ে কলেজ থেকে ফিরছিলেন একাকী, তখন একটি গাড়ি করে এসে তাঁকে অপহরণের চেষ্টা চালাতে থাকে তৌসিফ ও তাঁর সঙ্গী। অপহরণে ব্যর্থ হতেই নিকিতাকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় অপহরণকারীরা। সাথে সাথেই নিকিতা লুটিয়ে পড়ে। তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন। এই ঘটনাকে ঘিরে ইতিমধ্যেই ফরিদাবাদে তুমুল উত্তেজনা ছড়িয়েছে বলে জানা গিয়েছে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

মঙ্গলবার ফরিদাবাদে বিভিন্ন দোকান ভাঙচুর করা হয়। প্রতিবাদকারীরা ধর্নায় বসে। তাঁদের মধ্যে নিকিতার পরিবারের তরফ থেকে দাবী তোলা হয়, মূল অভিযুক্ত কে যতক্ষণ না এনকাউন্টার করা হচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত তাঁরা নিকিতার দেহ দাহ করবেন না। পরে অবশ্য পুলিশ এসে আশ্বস্ত করলে ধর্না ওঠে বলে জানা গেছে। অন্যদিকে সোশ্যাল মিডিয়াতেও এই ঘটনায় ঝড় উঠেছে। ইতিমধ্যে হরিয়ানা পুলিশ কমিশনার জানিয়েছেন, অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং তাদের যথাযথ শাস্তি দেওয়া হবে।

যদিও পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, মৃতা তরুণী এবং মূল অভিযুক্ত একে অপরের পরিচিত ছিল। তাই গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখে তবেই ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। তবে নিকিতার হত্যার বিচার চেয়ে অপরাধীদের শাস্তির দাবিতে ইতিমধ্যেই সোচ্চার হয়েছে সারাদেশ। কিভাবে প্রকাশ্য দিবালোকে এভাবে সবার সামনে জোরজবরদস্তি করা হল, এবং গুলি করা হল তাই নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন। আরও একবার নারী নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠে গেল এই ঘটনায়।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!