এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > এবার ‘ভুল’ প্রেম-ভালোবাসা-বিয়ে আটকাতে বাংলায় স্কুল-কলেজে প্রচারে নামবে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ

এবার ‘ভুল’ প্রেম-ভালোবাসা-বিয়ে আটকাতে বাংলায় স্কুল-কলেজে প্রচারে নামবে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ



কথায় আছে “বিনাশকালে বীপরিত বুদ্ধি”। বিজেপি সমর্থিত হিন্দুত্ববাদী সংগঠন বিশ্ব হিন্দু পরিষদের সাম্প্রতিক কর্মকান্ডে অনেকেই এই প্রবাদপ্রবচনের সাথেই সাদৃশ্য লক্ষ করেছেন রাজনৈতিকমহল । কিন্তু কি এমন করল এই হিন্দুত্ববাদী সংগঠন?

সূত্রের খবর, হিন্দু ধর্ম রক্ষায় এবার “লাভ জেহাদ”-এর বিরুদ্ধে প্রচার করতে রাজ্যের সমস্ত স্কুল, কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়, টিউটোরিয়াল হোম, কম্পিউটার সেন্টারের পড়ুয়া এবং অভিভাবকদের কাছে গিয়ে এই বিষয় বোঝাতে চায় তাঁরা। জানা গেছে, সেপ্টেম্বরের শেষ সপ্তাহ থেকে শুরু করা এই প্রচার অভিযানের নাম দেওয়া হবে “বেটি বাচাও, বধূ লাও।” কিন্তু হঠাৎ এহেন উদ্যোগ কেন?

এ প্রসঙ্গে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের পূর্ব ক্ষেত্রের সংগঠন সম্পাদক শচীন্দ্রনাথ সিংহ বলেন, “হিন্দু সমাজকে বাঁচাতেই আমরা এই লাভ জেহাদ বিরোধী কর্মসূচী নিচ্ছি।” কিন্তু বিশ্ব হিন্দু পরিষদের এহেন কর্মসূচীতে বিজেপির কি বক্তব্য? এ প্রসঙ্গে ইতিবাচক সাড়া দিয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, “হিন্দু সমাজকে রক্ষার দায় তো নিতেই হবে।”

তবে বিজেপি এহেন  উদ্যোগকে স্বাগত জানালেও বিশ্ব হিন্দু পরিষদের এই সিদ্ধান্তের বিরোধীতায় একসুর শোনা গেছে তৃনমূল, বাম এবং কংগ্রেসের গলায়। এদিন রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেন, “প্রেম ভালোবাসা মানুষের স্বাভাবিক বৃত্তি। এর বিরুদ্ধে যারা চিন্তা করে তাঁদের মানুষের হাতে মার খেতে হবে।” অন্যদিকে বিজেপির এই মধ্যযুগীয় ধ্যানধারনা বাংলার মানুষ যে সফল হতে দেবে না সে ব্যাপারে প্রবল আত্মবিশ্বাসের সুর শোনা গেল বামেদের পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তীর গলায়। অন্যদিকে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী বলেন, “প্রেম-ভালোবাসা এসব যদি বিজেপি আর সঙ্ঘ পরিচালনা করে তাহলে বাংলার সংস্কৃতি তার মোকাবিলা করবে।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

পাশাপাশি অভিনেত্রী নুসরত জাহান এবং সাহিত্যিক শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় এর তীব্র বিরোধীতা করেছেন। তবে শুধু বিরোধী দল বা বুদ্ধিজীবি মহলই নয়, বিশ্ব হিন্দু পরিষদের এই কর্মসূচীতে একমত নন বিজেপি নেত্রী তথা বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপিকা তনভীর নাসরিনও। সব মিলিয়ে এবার ব্যাক্তিগত স্তরে মানুষের প্রেম ভালোবাসা নিয়েও বিধিনিষেধ বিশ্ব হিন্দু পরিষদের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!