এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > লোকসভায় তৈরি হওয়া “গড়” বিধানসভার আগে আরও মজবুত করতে ক্রমশ ঘুটি সাজাচ্ছে বিজেপি

লোকসভায় তৈরি হওয়া “গড়” বিধানসভার আগে আরও মজবুত করতে ক্রমশ ঘুটি সাজাচ্ছে বিজেপি



 

উত্তরবঙ্গে এবারে ভালো ফল করেছে ভারতীয় জনতা পার্টি। লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গের আটটি আসনের মধ্যে সাতটি আসন পদ্মফুল শিবিরের দখলেই গেছে। কিন্তু মূল লক্ষ্য 2021 সালের পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন। তাই সেই অনুযায়ী বিধানসভা নির্বাচনের আগে চরম মাত্রায় সাংগঠনিক প্রস্তুতি এবং নিজেদের ভোটব্যাংক রক্ষা করার কার্যক্রম চালাচ্ছে ভারতীয় জনতা পার্টি।

জানা যাচ্ছে, ভারতীয় জনতা কিষাণ মোর্চার মাধ্যমে এলাকায় চা শ্রমিকদের মধ্যে সাংগঠনিক বিস্তারে মনোযোগী হতে চলেছে রাজ্যের গেরুয়া শিবির। সম্প্রতি ভারতীয় জনতা কিষাণ মোর্চা রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে একাধিক দাবির ভিত্তিতে একদিকে যেমন নিজেদের শাখা সংগঠনকে শক্তিশালী করার পরিকল্পনা রয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টির, অন্যদিকে তেমনই বিভিন্ন দাবির মাধ্যমে রাজ্য সরকারকে চাপের মুখে ফেলার রণনীতি তৈরি করেছে বলে খবর।

সূত্রের খবর, সংগঠনের দাবি সনদের মধ্যে রয়েছে, ট্যুরিজমের ছাড়পত্রের সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করা, রাজ্যজুড়ে সহায়ক মূল্যে কৃষকের ধান কেনার নিয়ম সরলীকরণ সহ একাধিক ইস্যু। তবে ভারতীয় জনতা পার্টির কৃষক শাখা ভারতীয় জনতা কিষান মোর্চার এই 11 তম রাজ্য সম্মেলন রাজ্যের চা বাগান এলাকায় করা যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। জানা গেছে, মাদারিহাট এলাকায় এই সম্মেলন হবে।

বিশেষজ্ঞদের ব্যাখ্যা অনুযায়ী, উত্তরবঙ্গের 302 টি চা বাগানের মধ্যে 192 টি চা বাগান জলপাইগুড়ি ও আলিপুরদুয়ার জেলার অন্তর্গত। যাদের মধ্যে অন্তত 44 শতাংশ নির্বাচকমণ্ডলীর বাসস্থান চা বাগান ও বনস্থলী এলাকায়। ভারতীয় জনতা পার্টির পক্ষ থেকে একাধিকবার অভিযোগ করা হয়েছে, গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে লাগামহীন সন্ত্রাস হয় এই সমস্ত এলাকায়। 57 টি গ্রাম পঞ্চায়েতের মধ্যে 50 টি তৃণমূল কংগ্রেসের দখলে চলে যায়। যেখানে মাত্র সাতটি ভারতীয় জনতা পার্টির দখলে থাকে। তবে লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গ জুড়ে কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে ভোট হওয়ার ফলে কার্যত নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে তৃণমূল কংগ্রেস।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তাই আগামী বিধানসভা নির্বাচন পর্যন্ত নিজেদের ভোটব্যাঙ্ক রক্ষা করতে যে সচেষ্ট হবে ভারতীয় জনতা পার্টি, তা বলাই বাহুল্য। শুধু নিজেদের দলের সদস্যসংখ্যা অনেকটাই বাড়িয়ে নিতে এই সম্মেলনকে হাতিয়ার করছে ভারতীয় জনতা পার্টি। সূত্রের খবর, সম্মেলন থেকে নিজেদের সদস্য সংখ্যা অন্তত 10 লক্ষ করার পরিকল্পনা রয়েছে গেরুয়া শিবিরের। তবে বিজেপির এই উদ্যোগকে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি তৃণমূলের চাবাগান মজদুর ইউনিয়নের রাজ্য সভাপতি মোহন শর্মা।

তিনি বলেন, “বন্ধ চা বাগান খুলতে শ্রমিকদের মজুরি সহ নানা সমস্যা মেটাতে ব্যর্থ ভারতীয় জনতা পার্টি। বিজেপির ব্যর্থতা ধরে ফেলেছে শ্রমিকরা। ফলে বিধানসভা ভোটে এবার চুপসে যাবে বিজেপির স্বপ্নের ফানুস।” তবে পাল্টা মাদারিহাট এলাকার সম্মেলন নিয়ে ভারতীয় জনতা পার্টির কিষান মোর্চার জেলা সভাপতি সুজিত সাহা বলেন, “মাদারিহাট একটি বেসরকারি গেস্টহাউসে সংগঠনের রাজ্য সম্মেলন হবে। সেজন্য আমরা সমস্ত প্রস্তুতি নিয়েছি।”

এক্ষেত্রে তৃণমূলের কোনো কথাকেই যে গুরুত্ব দিতে চায় না ভারতীয় জনতা পার্টি, তা স্পষ্ট হয়ে গেছে দলীয় নেতাদের কথায়। এখন নিজেদের সম্মেলনকে সঠিকভাবে কাজে লাগিয়ে আদৌ লক্ষ্যে পৌঁছতে পারে কিনা ভারতীয় জনতা পার্টি, সেদিকেই নজর থাকবে ওয়াকিবহাল মহলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!