এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > লোকসভা বিজয়ের জন্য তৃণমূল কর্মীদের নতুন ‘মন্ত্র’ দিলেন শুভেন্দু অধিকারী

লোকসভা বিজয়ের জন্য তৃণমূল কর্মীদের নতুন ‘মন্ত্র’ দিলেন শুভেন্দু অধিকারী



পুরুলিয়ার শিমুলিয়ায় এদিন তৃণমূল কংগ্রেস দলের একটি জনসভার আয়োজন হয়েছিলো। এদিনের সভায় উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, শশী পাঁজা, শুভেন্দু অধিকারী প্রমুখ। রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রী এদিনের সভা থেকে ঝাঁঝালো কথায় গেরুয়া শিবিরকে আক্রমন করে বললেন,  ”পুরুলিয়ায় বিজেপির সভায় রাজ্যের মানুষ ছিলেন না। ছিলেন ঝাড়খন্ড বিহারের লোক। অমিত শাহর গোটা সভাটাই মিথ্যাচারের উপর দাঁড়িয়েছিল সেদিন। মানুষকে ভুল তথ্য দেওয়া হয়েছে। পুরুলিয়ায় মানুষ নাকি পাঁচ কিলোমিটার হেঁটে জল আনতে যান! ভুল কথা। বিজেপি নেতারা ভুল তথ্য দিয়েছেন অমিত শাহকে।” একই সাথে মিড ডে মিলের প্রসঙ্গে মন্ত্রী বললেন রাজ্যে প্রায় সাত কোটি মানুষ ২ টাকা কেজি দরে চাল পাচ্ছেন। কেন্দ্র তো মিড-ডে মিলের টাকা দেওয়াও বন্ধ করে দিয়েছে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

একপ্রকার খড়্গহস্ত হয়েই তিনি বললেন,  ”দিল্লির টাকা বলে কিছু নেই। বাংলা নিজের অধিকারে টাকা পায়। যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামোয় দিল্লির টাকা বলে কিছু হয় না।” নন্দীগ্রামের এই বিধায়কের মতে গেরুয়া শিবির জন ধন যোজনার নামে অ্যাকাউন্ট খুলিয়েছে ঠিকই কিন্তু তার পিছনে অন্য উদ্দেশ্য রয়েছে। কী সেই উদ্দেশ্য ? অন্য কিছুই না সেই অ্যাকাউন্টে নোটবন্দির টাকা জমা করা হয়েছে। আর তারপর নীরব মোদী সেই টাকা নিয়ে গা ঢাকা দিয়েছেন। প্রকাশ্য সভা থেকে এদিন স্বমহিমায় বিজেপির বিরুদ্ধে স্লোগান দিয়ে তিনি বললেন, ‘কৃষ্ণ কৃষ্ণ হরে হরে, তৃণমূল ঘরে ঘরে। দাঙ্গাবাজ বিজেপির নেতারা শুনে রাখুন অত সহজে তৃণমূলকে রোখা যাবে না। তৃণমূল মানুষের মনের মধ্যে আছে।  চমকে ধমকে তৃণমূলকে রোখা যাবে না। ” রাজ্যে সদ্য সমাপ্ত পঞ্চায়েত নির্বাচনে দলীয় ফলাফল সম্পর্কে আলোকপাত করে প্রসঙ্গে তিনি, ”পঞ্চায়েত ভোটে আমরা জিতেছি। হ্যাঁ পুরুলিয়ায় কয়েকটা আসনে এদিক ওদিক হয়েছে। দল ব্যবস্থা নিচ্ছে। কেন ক্রুটি দেখছে। পুরুলিয়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছিল। থাকবে।” তাঁর এদিনের ভাষণের শেষ পর্যায়ে গেরুয়া শিবিরের উদ্দেশ্যে রাজ্যের বিধায়ক তথা মন্ত্রী পরামর্শের সুরেই বললেন, ”লোকসভা ভোটে অর্ধেকের বেশি আসন ওসব গল্প। তৃণমূলকে সরানোটা দিবাস্বপ্ন। আগে ২০১৯ সালের ভোটটা সামলান। তারপর ২০২১ নিয়ে ভাববেন।”

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!