এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > লকডাউন আতঙ্কে আবারও মূল্যবৃদ্ধি হতে শুরু করেছে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের, হৈ চৈ বাজারে

লকডাউন আতঙ্কে আবারও মূল্যবৃদ্ধি হতে শুরু করেছে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের, হৈ চৈ বাজারে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – একে তো বাংলায় চলছে নির্বাচনী আবহ, তারমধ্যে শুরু হয়েছে করোনার বাড়বাড়ন্ত। পরিস্থিতি সামাল দিতে রীতিমতো হিমশিম খেতে হচ্ছে বর্তমান রাজ্য সরকারকে। অন্যদিকে দেশজুড়ে করোনা মাত্রাছাড়া হারে বেড়ে উঠেছে। ইতিমধ্যেই মৃত্যুহারে বাঁধ দিতে বিভিন্ন রাজ্যে শুরু হয়ে গেছে লকডাউন থেকে নাইট কার্ফু। এই অবস্থায় বাংলায় কি লকডাউন হতে পারে। এই প্রশ্ন বড় হয়ে দেখা দিয়েছে। যদিও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আশ্বস্ত করেছেন ইতিমধ্যে রাজ্যে এখনও লকডাউন করার মতন পরিস্থিতি আসেনি।

কিন্তু বাংলার সাধারণ মানুষ এখনো 2020 স্মৃতি ভোলেনি। আর তাই লকডাউনের আতঙ্কে ভুগছে বাংলার জনতা। ইতিমধ্যেই কানাঘুষো শোনা যাচ্ছে, দোসরা মে নির্বাচনের ফল ঘোষণার পর রাজ্য জুড়ে লকডাউন শুরু হবে। আর সেই আতঙ্ককে হাতিয়ার করে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বাড়তে শুরু করেছে। এবং যথারীতি এই আতঙ্কের হাত ধরে মুনাফা খুঁজে নিচ্ছে একপ্রকার ব্যবসায়ীরাও। নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র মজুদ করতে শুরু করেছে অনেকেই।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

সাধারণ জিনিস চাইলেও গ্রাহককে বেশি করে দেওয়া হচ্ছেনা। এই নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় গন্ডগোলের খবর আসছে। ইতিমধ্যেই রাজ্য সরকারের টাস্কফোর্স এ ধরনের ঘটনা খতিয়ে দেখছে। গত বছরেও লকডাউনের সুযোগ নিয়ে কালোবাজারির অভিযোগ উঠেছিল। সে সময় প্রশাসনের পক্ষ থেকে একাধিকবার বিভিন্ন বাজারে হানা দিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করা হয়। শুধু শহর নয়, সূত্রের খবর- বিভিন্ন জেলাতেও একাধিক বাজার থেকে কালোবাজারির অভিযোগ আসছে।

এমনকি গ্রাহকদের মধ্যেও হাতাহাতি হচ্ছে বলে শোনা যাচ্ছে বিভিন্ন জায়গায়। সব মিলিয়ে স্পষ্ট হয়ে উঠছে লকডাউনের আতঙ্ক। গতবছরের শুরু থেকে যে লকডাউনের আতঙ্ক শুরু হয়েছিল, তা এখনো মানুষকে তাড়া করে বেড়াচ্ছে। যদিও মুখ্যমন্ত্রী আশ্বস্ত করেছেন লকডাউন নিয়ে, কিন্তু তাতেও কোন বিশেষ লাভ হচ্ছেনা বলে মনে করা হচ্ছে। তবে নির্বাচন না মিটলে এ ধরনের সমস্যার আশু সমাধান কোনভাবেই সম্ভব নয় বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!