এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > বীরভূম থেকেই গা ঝাড়া দিয়ে উঠে বঙ্গ রাজনীতিতে ঘুরে দাঁড়াতে চাইছে বামফ্রন্ট

বীরভূম থেকেই গা ঝাড়া দিয়ে উঠে বঙ্গ রাজনীতিতে ঘুরে দাঁড়াতে চাইছে বামফ্রন্ট



বীরভূম জেলা কে পুঁজি করেই পুরোনো ভূমিকায় রাজ্যের শাসন ক্ষমতায় ফিরতে চাইছে বাম শিবির। শনিবার সিপিএমের জেলা সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য, প্রয়াত সুহাস সরকারের স্মরণসভা অনুষ্ঠানে নলহাটি যাওয়ার আগে রামপুরহাটে মিছিল করল বামফ্রন্ট। এদিন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু রোদের তাপ উপেক্ষা করেই মিছিলে সাত কিমি হাঁটলেন। রবিবার রামনবমীর আগের দিন রাজ্য বামফ্রন্টের এ হেন আচরনে সমগ্র রামপুরহাট জুড়ে ব্যাপক উন্মাদনা ছড়িয়ে পড়ে।

রামনবমী উপলক্ষ্যে যখন রাজ্য জুড়ে উৎসব উদযাপনের পরিকল্পনা ঘিরে শাসক ও বিরোধী শিবিরে চাপা উত্তেজনা চলছে , তখন এদিনের মিছিল প্রসঙ্গে বিমান বাবু বললেন, ”আমরা রাম রাজনীতির ধারে-কাছে নেই। আমরা ধর্ম যার যার, দেশটা সব্বার। এটা মানুষকে বোঝানোর জন্য সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী সম্প্রীতির মিছিল বের করেছি। রামনবমীর দিন বিজেপি এবং তৃণমূল শহরে শোভাযাত্রা বের করবে। সেই মিছিল ঘিরে কোনও অঘটন ঘটলে তার দায়দায়িত্ব ওই দুই দলকেই নিতে হবে। এক বছর আগে বিজেপি অনেকগুলো সংগঠন ধর্মের সঙ্গে রাজনীতি মিশিয়ে রামনবমী উত্‍সব পালন করে। আর আগে থেকে তৃণমূল সেই উত্‍সবের প্রস্তুতি নিতে পারেনি বলে হনুমানজয়ন্তী উত্‍সব করে। এ বছর তৃণমূল নিজেই রামনবমী পালন করছে।আমরা আগেই বলেছিলাম, বিজেপি আর তৃণমূল প্রতিযোগিতা মূলক সাম্প্রদায়িকতা করছে। অনেকে প্রমাণ চাইত। প্রমাণ তো এখন হাতের মুঠোয় চলে এসেছে।”

এছাড়াও ফরওয়ার্ড ব্লকের রাজ্য সম্পাদক নরেন চট্টোপাধ্যায় এই মিছিল বিষয়ে বক্তব্য রাখেন। সিপিএম সূত্রের খবর, জেলা সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য, প্রয়াত সুহাস সরকারের স্মরণে বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান বিমান বসু নলহাটি তে উপস্থিত হবেন এ বিষয়ে স্থানীয় পার্টি কর্মীরা অবগত ছিলেন। কিন্তু এই দিন টি রামনবমীর আগের দিন হবে সেটা পূর্ব নির্ধারিত ছিলোনা। এই বিষয়ে বাম নেতৃত্ব জানালেন, ”এর পিছনে কোনও ধর্মের রাজনীতি নেই। বরং আমাদের এখন প্রয়োজন সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী সম্প্রীতির মিছিল বের করা। ঠিক সেটাই হয়েছে।”

আপনার মতামত জানান -

Top
Facebook Friends
error: Content is protected !!