এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > অবশেষে কি জার্সি বদল করছেন রাজ্যের তৃণমূলের হেভিওয়েট প্রাক্তন মন্ত্রী?জোর শোরগোল !

অবশেষে কি জার্সি বদল করছেন রাজ্যের তৃণমূলের হেভিওয়েট প্রাক্তন মন্ত্রী?জোর শোরগোল !



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া এক্সক্লুসিভ – অবশেষে জার্সি বদল করছেন রাজ্যের এই হেভিওয়েট প্রাক্তন মন্ত্রী? তাহলে কি তাকে বিজেপিতে যোগদান করানোর জন্যই তার বাড়িতে বিজেপি নেতাদের এই উপস্থিতি?প্রশ্নটা উঠেছে তৃণমূলের প্রাক্তন মন্ত্রী কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরীকে নিয়ে। মালদহ জেলা রাজনীতিতে তিনি অবিসংবাদিত নেতা হিসেবেই পরিচিত। তবে কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী এবং নীহার রঞ্জন ঘোষের মধ্যে গন্ডগোলের কথা কারোরই অজানা নয়। দীর্ঘদিনের পোড়খাওয়া রাজনীতিবিদ কৃষ্ণেন্দুবাবু নানা সময়ে নীহারবাবুর বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন। এটাও জল্পনা ছড়িয়েছিল যে, কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী দলে কিছুটা অপ্রাসঙ্গিক হয়ে যাওয়ায় তিনি জার্সি বদল করতে পারেন। তবে তারপরেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতি আস্থা রেখে দলের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব সামলাচ্ছেন কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী।

কিন্তু হঠাৎ করেই বিজেপির একটি প্রতিনিধিদল রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা হেভিওয়েট নেতা কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী বাড়িতে চলে যাওয়ায় এবার রাজনৈতিক মহলে ব্যাপক জল্পনা ছড়িয়ে পড়ল। সূত্রের খবর, শুক্রবার বিজেপির একটি প্রতিনিধিদল কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরীর বাড়িতে যায়। যেখানে ছিলেন হবিবপুরের বিজেপি বিধায়ক জুয়েল মুর্মু, জেলা বিজেপির সভাপতি গোবিন্দ চন্দ্র মন্ডল সহ অন্যান্যরা। মূলত বিজেপি নেতা দুলাল বরের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল হঠাৎ করেই কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী বাড়িতে গিয়ে উপস্থিত হয়।

কৃষ্ণেন্দু চৌধুরীর দাদার শারীরিক অবস্থা বর্তমানে অত্যন্ত খারাপ। তাই তাকে দেখতেই তারা কৃষ্ণেন্দু চৌধুরীর বাড়িতে গেছেন বলে দাবি করছে গেরুয়া শিবির। তবে গোটা ঘটনায় রাজনীতির গন্ধ দেখছে একাংশ। অনেকে বলছেন, সম্প্রতি ইংরেজবাজার পৌরসভার প্রশাসক মন্ডলীর কাজ নিয়ে ক্ষিপ্ত দলের একাংশ প্রাক্তন কাউন্সিলর। ইতিমধ্যেই কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরীর নেতৃত্বে তৃণমূলের অনেক প্রাক্তন কাউন্সিলর সেই প্রশাসক বোর্ডের মাথায় থাকা নীহার রঞ্জন ঘোষের বিরুদ্ধে সরব হয়ে গোপনে বৈঠক করেছেন বলে জানা যাচ্ছে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এমনকি এই সমস্ত প্রাক্তন কাউন্সিলররা এককাট্টা হয়ে নীহার রঞ্জন ঘোষ এবং বর্তমান প্রশাসকমন্ডলীর বিরুদ্ধে রাস্তায় নামতে পারেন বলেও আশঙ্কা রয়েছে। আর এমত পরিস্থিতিতে যখন তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব নিয়ে সকলে চিন্তায়, ঠিক তখনই শাসকদলের চিন্তা বাড়িয়ে হেভিওয়েট তৃণমূল নেতা তথা রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী বাড়িতে বিজেপি নেতাদের উপস্থিতি নয়া জল্পনা স্থাপন করল। তাহলে কি অবশেষে জার্সি বদল করছেন রাজ্যের এই হেভিওয়েট প্রাক্তন মন্ত্রী? তাহলে কি তাকে বিজেপিতে যোগদান করানোর জন্যই তার বাড়িতে বিজেপি নেতাদের এই উপস্থিতি?

এদিন এই প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা দুলাল বর বলেন, “কোনো রাজনৈতিক কারণ নয়। নেহাৎ সৌজন্য সাক্ষাৎকার। কৃষ্ণেন্দুবাবুর সঙ্গে দীর্ঘদিনের সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক। তার দাদা শুভেন্দু চৌধুরীর শারীরিক অবস্থা খারাপ‌। তাই তাকে দেখতে যাওয়া।” তবে বিজেপি নেতারা যে কথাই বলুন না কেন, রাজনৈতিক দলের নেতারা এক জায়গায় উপস্থিত থাকবেন, সেখানে রাজনীতি নিয়ে আলোচনা হবে না, একথা মানতে নারাজ বিশেষজ্ঞরা। আর যখন তৃণমূলে চরম গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব চলছে, ঠিক তখনই হেভিওয়েট প্রাক্তন মন্ত্রীর বাড়িতে বিজেপি নেতাদের উপস্থিতি নিঃসন্দেহে চিন্তা বাড়াচ্ছে শাসকদলের‌।এই নিয়ে মুখ খোলেননি তৃণমূলের প্রাক্তন মন্ত্রীও।

এখন প্রকাশ্যে গোটা ঘটনাকে সৌজন্য সাক্ষাৎ বলে দাবি করা হলেও, কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরীর বাড়িতে গিয়ে তার সাথে কি আলাপচারিতা সেরে এলেন বিজেপি নেতারা, তার রহস্য উন্মোচন করতেই ব্যস্ত রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। প্রসঙ্গত, লোকসভা নির্বাচনের ফলাফলের ভিত্তিতে দেখা যাচ্ছে ইংরেজবাজার বিধানসভা আসনে বিজেপি তৃণমূলের থেকে প্রায় ১ লক্ষের কাছাকাছি ভোটে এগিয়ে আছে। এখন রাজ্যের হেভিওয়েট তৃণমূল নেতার বাড়িতে গিয়ে বিজেপি নেতারা সৌজন্যতা সেরে এলেও এর কোনো প্রভাব বাংলার রাজনৈতিক মহলে পড়ে কিনা, তার দিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!