এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > দলকে বাঁচাতে শেষ ভরসা ইনি, মাঠে নামছেন হেভিওয়েট নেত্রী

দলকে বাঁচাতে শেষ ভরসা ইনি, মাঠে নামছেন হেভিওয়েট নেত্রী



দেশজুড়ে কংগ্রেসের অবস্থা বর্তমানে খুব একটা ভালো নেই। একের পর এক নির্বাচনে পর্যুদস্ত হতে হচ্ছে তাদের। অনেকেরই দাবি, দলে নতুন মুখ চাই। সেদিক থেকে রাহুল গান্ধী একসময় দলের ব্যাটন ধরলেও গান্ধী পরিবারের কন্যা প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে চেয়েছিলেন কংগ্রেসের অনেক কর্মী সমর্থকরাই। এমনকি সেই মত দলের অনেককেই নিরাশ না করে 2019 সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে সরাসরি রাজনীতিতে পা রাখেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। তারপর নানা বিজেপি বিরোধী আন্দোলন তাকে চরম জনপ্রিয়তা এনে দিয়েছিল।

তবে লোকসভা নির্বাচন এবং তার পরবর্তীতে সদ্যসমাপ্ত দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেস চরমমাত্রায় পরাজিত হলেও প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর জনপ্রিয়তা কিন্তু গগনচুম্বী। তাই এমত পরিস্থিতিতে দলকে ঘুরে দাঁড় করাতে এবার প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে রাজ্যসভায় পাঠানো হবে বলে তৈরি হল জল্পনা।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, লোকসভা নির্বাচনে পরাজয়ের পর দলের হাল ছেড়ে দিয়ে সোনিয়া গান্ধীকে সভাপতি করানোর চেষ্টা করেন রাহুল গান্ধী। সেইমত সোনিয়া গান্ধী বর্তমানে কংগ্রেসের দায়িত্ব সামলাচ্ছেন। কিন্তু শারীরিক অসুস্থতার কারণে তিনি আর সেই দায়িত্ব সামলাতে পারছেন না। তাই অনেকেই চাইছেন যে, রাহুল গান্ধীকে দলের সভাপতি করে প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে রাজ্যসভায় পাঠানো হোক।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

কেননা রাজ্যসভায় যদি প্রিয়াঙ্কা গান্ধী যান, তাহলে তার বিজেপি বিরোধী নানা ইস্যুতে সরব হওয়া কংগ্রেসকে অনেকটাই উজ্জীবিত করবে বলে মত ওয়াকিবহাল মহলের। ইতিমধ্যেই নানা রাজ্যের কংগ্রেস নেতৃত্ব চাইছেন যে, প্রিয়াঙ্কা গান্ধী যাতে তাদের রাজ্য থেকে রাজ্যসভায় প্রতিনিধিত্ব করেন।

বস্তুত, সম্প্রতি কংগ্রেসের অম্বিকা সোনি, গুলাম নবি আজাদ এবং দ্বিগ্বিজয় সিংয়ের রাজ্যসভার সদস্য পদের মেয়াদ শেষ হয়ে যেতে চলেছে। তাই এর মধ্যে যে কোনো একটি জায়গায় প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে সেই রাজ্যসভায় পাঠিয়ে দলকে ঘুরে দাঁড় করাতে চাইছে কংগ্রেস। তবে যাদের মেয়াদ শেষ হচ্ছে, তার মধ্যে গুলাম নবি আজাদ যে ফের কংগ্রেসের হয়ে রাজ্যসভায় যাচ্ছেন, তা একপ্রকার স্পষ্ট হয়ে গেছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যদি সত্যিই কংগ্রেস প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে রাজ্যসভায় পাঠায়, তাহলে তা কংগ্রেসের পক্ষে অত্যন্ত লাভবান হতে পারে। কেননা নরেন্দ্র মোদির ব্যক্তিগত ক্যারিশমায় বিজেপি বর্তমানে সারা দেশের ক্ষমতায় রয়েছে। তাই সেদিক থেকে বিরোধী দল কংগ্রেসের যদি একজন মহিলা মুখ এবং তা যদি গান্ধী পরিবারের পক্ষ থেকে উঠে আসে, তাহলে তা কংগ্রেস নেতৃত্বকে অনেকটাই উজ্জীবিত করবে। এমনকি বিজেপিও ঘরে-বাইরে অনেকটাই চাপে পড়বে।

কেননা বর্তমানে নানা ইস্যুতে ভারতীয় জনতা পার্টি অত্যন্ত চাপে রয়েছে। কিন্তু বিরোধী দল হিসেবে কংগ্রেস শক্তিশালী না হওয়ার কারণেই সেভাবে চাপে পড়ছে না গেরুয়া শিবির। তাই সেদিক থেকে যদি গান্ধী পরিবারের কন্যা প্রিয়াঙ্কা গান্ধী এবার সরাসরি রাজ্যসভায় আসেন, তাহলে বিজেপির অস্বস্তি তিনি অনেকটা বাড়িয়ে দিতে এবং দলকে ঘুরে দাঁড় করাতে সক্ষম হবেন বলে মত ওয়াকিবহাল মহলের। এখন প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর রাজ্যসভায় আসা কতটা পাকা হয়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!