এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > লকডাউনে ব্যবসা লাটে ওঠায় কলকাতার যৌনকর্মীরা এবার তোলাবাজি, ছিনতাইয়ের পেশা বেছে নিচ্ছেন?

লকডাউনে ব্যবসা লাটে ওঠায় কলকাতার যৌনকর্মীরা এবার তোলাবাজি, ছিনতাইয়ের পেশা বেছে নিচ্ছেন?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট- কলকাতায় রাস্তায় বাইপাস ধরে গন্তব্যস্থলের দিকে এগোতে গিয়ে সমাজের তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের থেকে টাকা চাওয়ার ঘটনার সাক্ষী থাকেননি, এমন মানুষ কমই আছে। বাইপাস ধরে এয়ারপোর্ট এর দিকে যতই এগোনো যায়, এমন মানুষদের ছবি চোখে পড়ে বিভিন্ন জায়গায়। সম্প্রতি সেই জায়গায় যৌনকর্মীরাও যে নেমে এসেছেন সম্প্রতি সেই ঘটনা দেখা গেছে কলকাতার বুকে।

লকডাউনে যৌনকর্মীদের ব্যবসা যে মার খাচ্ছে সে কথা আলাদা করে বলে দিতে হয় না। তবে সম্প্রতি রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাওয়া এক নিরীহ ব্যক্তিকে ধরে তোলাবাজি বা ছিনতাইয়ের মতো ঘটনা ঘটেছে উল্টোডাঙ্গা এলাকায়। জানা গেছে, উল্টোডাঙার ফুট ব্রিজের নিচে থেকে এক ব্যক্তির কাছ থেকে টাকা এবং মোবাইল সহ বেশ কিছু সামগ্রী জোর করে কেড়ে নিয়েছে ৪ যৌনকর্মী। যাদের বিরুদ্ধে পুলিশ তদন্তে নেমেছে বলে জানা গেছে।

বস্তুত, বুধবার দুপুর নাগাদ উল্টোডাঙ্গা ফুট ব্রিজের নিচে দিয়ে হেটে যাচ্ছিলেন এক বেসরকারি সংস্থার কর্মী। এমন সময় আচমকা ৪জন মহিলা হঠাৎ তাঁকে ঘিরে দাঁড়ান বলে জানান তিনি। এরপরই কারণ ছাড়া ওই মহিলারা তাঁকে যে শুধু মারধর করে তাই নয়, সেই সঙ্গে তার কাছে থাকা দুটি মোবাইল সহ ৩০০০ টাকা এবং দামি হেডফোন কেড়ে নেওয়া হয় বলে পুলিশকে জানিয়েছেন ওই ব্যক্তি।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এরপর ব্যাগ ঘেঁটে দেখার সময় ব্যাগে এটিএম কার্ড দেখতে পেয়ে ওই চার মহিলা ব্যক্তিটিকে জোর করে এটিএম সেন্টারে নিয়ে যায় এবং তাঁকে এটিএম থেকে নির্ধারিত মূল্যের টাকা তুলে দিতে জোর করে। এমন পরিস্থিতিতে মেশিনে কার্ড পাঞ্চ করা হলেও ওই ব্যক্তির একাউন্টে পর্যাপ্ত পরিমাণ টাকা না থাকায় টাকা ওঠে না। এরপর ওই মহিলারা তাকে ছেড়ে দিয়ে চলে যান বলে পুলিশকে জানিয়েছেন তিনি।

এরপর ঐ ব্যক্তি মানিকতলা থানায় যান এবং সমস্ত ঘটনা জানান বলে জানা যায়। এরপর তদন্তে নেমে পুলিশ উল্টোডাঙ্গা ফুটব্রিজ এরিয়ার সিসিটিভি ক্যামেরা সংক্রান্ত ফুটেজ সংগ্রহ করে এবং বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করে। সেক্ষেত্রে দেখা যায় ওই ব্যক্তিকে ঘিরে চার মহিলা অনেক কিছু কেড়ে নিচ্ছেন বলেই উঠে আসে সেই ভিডিও ফুটেজে।

পরবর্তীকালে তদন্ত করে পুলিশ জানতে পারে ওই চার মহিলা সোনাগাছির যৌনকর্মী। এর পর পুলিশ সোনাগাছিতে তল্লাশি চালিয়ে ওই চারজনকে গ্রেফতার করে বলেও জানা গেছে। এবং তাদের কাছ থেকেই ওই ব্যক্তির লুট হয়ে যাওয়া সামগ্রীও উদ্ধার হয়েছে বলে জানা যায়। সেই সঙ্গে ধৃতদের জেরা করে পুলিশ জানতে পারে লকডাউনের জন্য এদের অনেকেরই রোজগার বন্ধ, তাই নিরীহ মানুষ দেখলেই তাদের কাছ থেকে নির্জন জায়গায় এমনই ছিনতাইয়ের কাজ করে বেড়াত তারা।

সেই সঙ্গে কেউ যদি এসে তাদের সময়ের দাম জিজ্ঞেস করেই শুধু চলে যেতেন, তবুও তাদের থেকেও টাকা নিতে ছাড়তেন না ওই অভিযুক্তরা। গতকাল এই চার অভিযুক্তকে শিয়ালদহ আদালতে তোলা হয়েছে বলে জানা যায় এবং বিচারক এই চারজনকে জেল হেফাজতের পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন বলে তথ্য সূত্রে জানা গেছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!