এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > জল্পনা-কল্পনার অবসান! এই সপ্তাহেই কলকাতাবাসীর জন্য অনন্য উপহার দিতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী

জল্পনা-কল্পনার অবসান! এই সপ্তাহেই কলকাতাবাসীর জন্য অনন্য উপহার দিতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী



আপনাদের সুবিধার্থে খবরের শেষে বিধানসভা ২০২১ উপলক্ষে আমাদের করা সর্বশেষ সমীক্ষার প্রতিটির লিঙ্ক দেওয়া আছে।

আপনার মতামত জানান -

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – সময়টা ছিল ২০১৮ সালের ৪ঠা সেপ্টেম্বর। বিকেল ৪টে ৪২ মিনিট নাগাদ আচমকা ভেঙে পড়ে পুরনো দুই লেনের মাঝেরহাট ব্রিজ। এই পরিস্থিতিতে চরম উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। যেহেতু বজবজ সেকশনের লাইনের উপর দিয়ে এই সেতু নির্মিত, তাই প্রথা অনুযায়ী রেলওয়ের অংশের নির্মাণের দায়িত্ব এবং খরচ দেওয়ার কথা ছিল রেলের।

কিন্তু কেন্দ্রের তরফে বরাদ্দ টাকার অপেক্ষায় না থেকে পুরো ব্রিজের খরচের ২৫০ কোটি টাকার সমস্ত দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অন্যদিকে, কিছুদিন আগেই মাঝেরহাট সেতু দ্রুত উদ্বোধনের দাবিতে বিজেপির মিছিল ঘিরে তারাতলা এলাকায় তুমুল ধুন্ধুমার ঘটে। সেখানে কিছুদিন আগেই রেলের বিরুদ্ধে গড়িমসি করে ৯ মাস সময় নষ্ট করার অভিযোগ এনে পালটা মিছিল করতে দেখা গিয়েছিল বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়কে।

তবে সম্প্রতি জানা গেছে, বৃহস্পতিবার বিকেলে মাঝেরহাটের নবনির্মিত চার লেনের কেবল সেতুর উদ্ভোধন করা হবে। আর সেটি করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেইসঙ্গে রেলের তরফে সুরক্ষার চূড়ান্ত সার্টিফিকেট পাওয়ার পরেই ব্রিজের সমাপ্তির সর্বশেষ প্রযুক্তিগত পরিস্থিতি ও প্রেক্ষাপট পরিদর্শন শেষে পূর্তমন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস শনিবার এই খবর জানিয়েছেন।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

সেখানে বলা হয়েছে, ৩রা ডিসেম্বরই জনসাধারণের জন্য ব্রিজটি চালুর কথা বলতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে নতুন সেতু চালু হলে মাঝেরহাট ব্রিজ দিয়ে ফের যাতায়াত করার খবরে বেহালা তথা দক্ষিণ ২৪ পরগনার মানুষ খুশি হয়েছেন বলে জানা গেছে। অন্যদিকে, রাজ্য সরকারের পূর্ত দপ্তর করোনাকালের বাধা অতিক্রম করে যে রেকর্ড সময়ে নির্মাণকাজ শেষ করতে সক্ষম হয়েছে, তার কৃতিত্বের কথাও এদিন শোনা গেছে।

জানা গেছে, রেলের সঙ্গে চুক্তি অনুসারে নয়া সেতু চালু হয়ে গেলে অস্থায়ীভাবে নির্মিত নিউ আলিপুর ও করুনাময়ীর কাছের বেইলি ব্রিজ দুটি ভেঙে ফেলতে হবে। অন্যদিকে, পূর্তমন্ত্রী ব্রিজের ‘ফিনিশিং টাচ’ দেখতে এসে অভিযোগ করেছেন বলে জানা গেছে। তাঁর কথায়, “রেল তো টাকা দেয়নি, উলটে নানা কাজে সাহায্য করার জন্য ৩৩,২৯ কোটি টাকা নিয়েছে।”

এদিন তিনি বলেন, কেন্দ্রীয় সরকার সাহায্য করার বদলে ৯ মাস দেরি করিয়ে হেনস্তা করেছে। নাহলে অনেক আগে মুখ্যমন্ত্রী ব্রিজ চালু করে দিতেন বলেও দাবি করেছেন তিনি। যদিও নতুন ব্রিজ চালু হওয়া নিয়ে বলতে গিয়ে এদিন বিজেপির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক জানান, “জনস্বার্থে আমরা আন্দোলন করি, তাই জনতার জন্য ব্রিজ উদ্বোধনে বাধা দেওয়ার প্রশ্ন নেই।”

একনজরে দেখে নিন আমাদের সর্বশেষ বিধানসভা ২০২১ ওপিনিয়ন পোল –

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – দ্বিতীয় পর্ব – 

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – প্রথম পর্ব – 

# মালদহ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# উত্তর দিনাজপুরে জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# জলপাইগুড়ি ও কালিম্পঙ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# আলিপুরদুয়ার ও দার্জিলিং জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# কুচবিহার জেলার ওপিনিয়ন পোল –

আপনার মতামত জানান -
আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!