এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > পার্টি অফিসের নামে অন্যের জমি জোর করে জবরদখল? ভোটের আগে হাইকোর্টে বড়সড় ধাক্কা খেল তৃণমূল!

পার্টি অফিসের নামে অন্যের জমি জোর করে জবরদখল? ভোটের আগে হাইকোর্টে বড়সড় ধাক্কা খেল তৃণমূল!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বিরোধীরা মাঝেমধ্যেই অভিযোগ করে, শাসন ক্ষমতায় আসার পর থেকেই তৃনমূল গণতন্ত্রের কণ্ঠরোধ করতে শুরু করেছে। বিরোধীদের মুখ যেমন প্রতি মুহূর্তে বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে, ঠিক তেমনই সাধারণ মানুষের জায়গা জমি দখল করে সেখানে তৃণমূলের নেতারা আধিপত্য ফলাতে শুরু করেছেন। তবে প্রত্যাশামতোই তৃণমূলের পক্ষ থেকে বারবার বিরোধীদের তোলা এই অভিযোগ নস্যাৎ করে দেওয়া হয়েছে।

কিন্তু এবার অন্যের জমিতে তৃণমূলের পার্টি অফিস হওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে রীতিমত চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ল শিলিগুড়িতে। যেখানে অন্যের জমিতে তৃণমূলের পক্ষ থেকে এই পার্টি অফিস হওয়া নিয়ে শিলিগুড়ি পৌরসভাকে পদক্ষেপ গ্রহণ করার নির্দেশ দিলেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি। স্বাভাবিকভাবেই হাইকোর্টের পক্ষ থেকে এই ধরনের নির্দেশ আসার পর তৃণমূল কংগ্রেস যে যথেষ্ট চাপে পড়ে গেল, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

জানা গেছে, সুতপা দাশ নামে এক মহিলা সম্প্রতি অভিযোগ করেন যে, 8 কাঠা জমিতে প্রায় 800 বর্গফুট এলাকার কৌশলে একজন তা দখল করে রেখেছেন। আর সেই মামলা আদালতে যেতেই পৌরসভার এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার একটি রিপোর্ট পেশ করেন। যেখানে বলা হয়, টিনের ছাউনি দেওয়া একটা বাড়ি সেখানে রয়েছে। যার সামনে পার্টি অফিসের একটি বোর্ড টাঙ্গানো হয়েছে। আর এরপরই মামলাকারীর আইনজীবী দাবি করেন, এই নির্মাণের জন্য অনুমোদন নেওয়া বাধ্যতামূলক।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

যার ফলে তৈরি হয় বিতর্ক। তাই গোটা পরিস্থিতি সামাল দিতে অবশেষে আদালতের পক্ষ থেকে প্রধান বিচারপতি শিলিগুড়ি পৌরসভাকে আইনানুগ পদক্ষেপ গ্রহণ করার নির্দেশ দিয়েছেন। অনেকে বলছেন, এমনিতেই তৃণমূল কংগ্রেস নানা দিক থেকে চাপে রয়েছে। তার মধ্যে এবার যেভাবে অন্যের জমি দখল করে পার্টি অফিস গঠন করার অভিযোগ উঠল তাদের বিরুদ্ধে, তাতে শাসকদল যথেষ্ট চাপে পড়ে গেল। আইনানুগ ব্যবস্থা বা ফলাফল কী দাঁড়াবে, সেটা সময় বলবে।

কিন্তু আদালতের পক্ষ থেকে পৌরসভাকে এই ব্যাপারে আইনানুগ পদক্ষেপ গ্রহণ করার নির্দেশ দেওয়ার সাথে সাথেই রীতিমত চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে গোটা শিলিগুড়ি শহর জুড়ে। সত্যিই কি তাহলে এতদিন বিরোধীরা তৃণমূলের বিরুদ্ধে যে জবর দখলের অভিযোগ তুলত, তা বাস্তব? আদালতের নির্দেশ বা অন্যের জমিতে পার্টি অফিস গঠনের যে অভিযোগ উঠেছে, তারপরে এই প্রশ্ন কিন্তু আরও জোরালো হয়ে দেখা দিতে শুরু করেছে। সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!