এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > খোদ বিজেপির রাজ্য সভাপতিকে দেখানো হল কালো পতাকা, তীব্র শোরগোল রাজনৈতিক মহলে

খোদ বিজেপির রাজ্য সভাপতিকে দেখানো হল কালো পতাকা, তীব্র শোরগোল রাজনৈতিক মহলে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – একাধিক কর্মসূচি উপলক্ষে আজ উত্তরবঙ্গে এসেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ ও ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। পরিবর্তন যাত্রার কর্মসূচি রয়েছে পাহাড়ে। দার্জিলিং, কালিম্পঙ, কার্শিয়াং বিধানসভা পরিক্রমন করে শিলিগুড়িতে এসে মূলযাত্রার সঙ্গে যুক্ত হবে এই যাত্রা। আবার দার্জিলিংয়ের জনসভায় যোগদান করতে চলেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। কিন্তু আজ দার্জিলিঙে আসতেই কালো পতাকা দেখানো হল বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে। আজ ঘুম স্টেশনের কাছে দিলীপ ঘোষ ও অর্জুন সিংকে কালো পতাকা দেখালেন গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার নেতা বিমল গুরুংয়ের অনুগামীরা। এই ঘটনায় তীব্র শোরগোল পড়ে গেছে রাজ্য রাজনীতিতে।

দলীয় কর্মসূচিতে গিয়ে বাধা পেয়ে প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ হয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। ক্ষুব্ধতার সঙ্গে দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন যে, পাহাড়ে তাঁদের বিরক্ত করার জন্যই বিমল গুরুংকে তাঁদের পেছনে লাগানো হচ্ছে। তিনি জানিয়েছেন যে, সাধারণ মানুষ তৃণমূলের সঙ্গে নেই, গুরুংয়ের সঙ্গেও নেই। এখানে সবাই বিজেপির সঙ্গে যুক্ত হতে চাইছেন। তিনি জানালেন, পাহাড়ের ছোট ছোট দল বিজেপির সঙ্গে যুক্ত হয়েছে ও আরও দল যুক্ত হচ্ছে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

বিজেপি কোন প্রতিশ্রুতি দেয়নি। বিজেপি পাহাড়ের সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করেছে। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর সহযোগিতা না থাকার কারণে কোনো লাভ হয়নি। তিনি অভিযোগ করেছেন যে, যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন পাহাড়বাসীদের বিমল গুরুং, সে প্রতিশ্রুতি পালন করেননি তিনি। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানালেন, নির্বাচনের কারণে বিমল গুরুংয়ের ওপর থেকে কেস তুলে নিয়েছে রাজ্য সরকার। তিনি জানালেন রাজনৈতিক কারণেই তাঁর উপরে কেস দেওয়া হয়েছিল। রাজনীতির কারণেই তাঁর উপর থেকে কেস তুলে নেওয়া হয়েছে।

দিলীপ ঘোষ জানালেন, এই ধরনের রাজনৈতিক, যাদের দেশদ্রোহী বলা হয়, তাদের সঙ্গে কাজ করছে, নিজেদের বিশ্বাসযোগ্যতা হারিয়ে ফেলেছে তৃণমূল। জঙ্গলমহলেও এদেরকে নিজেদের দলের নেতা বানাচ্ছে তৃণমূল। রাজ্যের মানুষ দেখছেন যে, রাজনীতির কারণে কাউকে নেতা বানানো হচ্ছে, কাউকে বোকা বানানো হচ্ছে। প্রসঙ্গত, ইতিপূর্বে গত ২০১৭ সালে দার্জিলিং এসে প্রবল বাধার সম্মুখীন হয়েছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সেসময় বিনয় তামাং এর অনুগামীরা তাঁকে নানাভাবে বাধা দিয়েছিলেন। এবারের বিমল গুরুংয়ের অনুগামীদের বাধার মুখে পড়লেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

 

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!