এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > কেন্দ্রীয় ঘোষণা মত নভেম্বরেই খুলে যাচ্ছে কলেজ? বড়সড় ঘোষণা শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জির!

কেন্দ্রীয় ঘোষণা মত নভেম্বরেই খুলে যাচ্ছে কলেজ? বড়সড় ঘোষণা শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জির!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – করোনা সংক্রমণ কালে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পঠন পাঠন চালু করার বিষয়ে গত শুক্রবার ইউনিভার্সিটি গ্রান্ট কমিশন এর পক্ষ থেকে ৩ পাতার ও ৮ দফার একটি বিশেষ গাইডলাইন প্রকাশ করা হয়েছিল। যে গাইডলাইনে স্পষ্ট নির্দেশ দেয়া হয়েছিল যে, চলতি ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষ ও আগামী ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের পঠন-পাঠনের যাতে কোন ক্ষতি না হয়, তাই প্রয়োজন হলে সপ্তাহে ৬ দিন ক্লাস নিতে হবে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে। সেই সাথে হ্রাস করতে হবে এককালীন ছুটিগুলিকে।

তবে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো যদি প্রয়োজন মনে করে তবে প্রভিশনাল অ্যাডমিশন করতে পারবে। আগামী ৩১ সে ডিসেম্বরের মধ্যে সমস্ত নথিপত্র গ্রহণ করার নির্দেশ দেওয়া হয়।শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিতে। প্রবেশিকা বা মেধাভিত্তিক ছাত্র ভরতির প্রক্রিয়া আগামী অক্টোবর মাসের মধ্যেই শেষ করে ফেলার নির্দেশ দেওয়া হয়। তবে বাকি থাকা আসন গুলিতে ৩০ সে নভেম্বর পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের ভর্তি করা যাবে।

এর সঙ্গেই স্পষ্ট নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল যে, সমস্ত রকম করোনা সংক্রান্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনেই ক্লাস নিতে হবে। এক্ষেত্রে ইউনিভার্সিটি গ্রান্ট কমিশন প্রকাশিত ২৯ সে এপ্রিল বা ৬ ই জুলাই এর বিধি কার্যকর করতে হবে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এভাবে কেন্দ্রীয় শিক্ষা মন্ত্রকের পক্ষ থেকে আগামী নভেম্বর মাস থেকে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় গুলিকে খোলার অনুমতি দেওয়া হলেও, পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে করোনার বহুল সংক্রমণ এর কারণেই এখনই কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খুলতে নারাজ পশ্চিমবঙ্গ সরকার। বর্তমানের করোনা সংক্রামক পরিস্থিতিতে কোনভাবেই কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী উপস্থিত হওয়া সম্ভব নয় বলে জানালেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

আজ রবিবার রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্যের সঙ্গে বিশেষ ভার্চুয়াল বৈঠক করতে দেখা গিয়েছিল শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে। উপাচার্যদের সঙ্গে এই বৈঠকের পর স্নাতকোত্তর পর্বের ক্লাস চালুর বিষয় নিয়ে রাজ্য সরকারের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী। এ প্রসঙ্গে শিক্ষামন্ত্রীর নির্দেশ, ” ৩১ অক্টোবর স্নাতকোত্তরে ফলপ্রকাশ। তারপরই পয়লা নভেম্বর থেকে ক্লাস শুরু করা সম্ভব নয়। সেই সময় ভরতি প্রক্রিয়া শুরু হবে। ১ ডিসেম্বরে স্নাতকোত্তরের ক্লাস হবে। তবে তা অনলাইনে। উৎসবের জন্য শিক্ষাবর্ষ পিছোচ্ছে। ডিসেম্বরের আগে কিছুতেই ক্লাস শুরু সম্ভব নয়। তবে ক্লাস নেওয়া হবে অনলাইনে।” এরপর স্নাতক পর্বের ক্লাস প্রসঙ্গে শিক্ষামন্ত্রীর স্পষ্ট নির্দেশ, ” আগামী ২ নভেম্বর থেকে কলেজে ক্লাস নেওয়া হবে। তবে তা হবে অনলাইনে।”

এভাবে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্বের ক্লাসের বিষয়টি স্পষ্ট করে জানিয়ে দিলেন শিক্ষা মন্ত্রী। সেইসঙ্গে কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকেও পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দিলেন যে, রাজ্যের বর্তমান করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতিতে ছাত্র-ছাত্রীদের কোনো ক্রমেই শারীরিকভাবে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে উপস্থিত হওয়া সম্ভব নয়। তাদের স্বাস্থ্যের বিষয়ে কোন ঝুঁকি নিতে ইচ্ছুক নয় রাজ্য সরকার।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!